হিজাব বা বোরখা পরে সিএএ-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদে যোগ দিন, পোস্টারটি ফোটোশপ করা

বুম আয়োজকদের সঙ্গে কথা বলে জেনেছে, যোগদানকারী মহিলাদের পোশাক-বিধি সংক্রান্ত পোস্টারটি ফোটোশপ করে সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল করা হয়েছে।

শুক্রবার মুম্বইয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে যোগ দিতে মহিলাদের পোশাক-বিধি সংক্রান্ত নির্দেশিকাটি ফোটোশপ করে পোস্টারে জোড়া হয়েছে। বুম সমাবেশের সংগঠকদের সঙ্গে কথা বলেছে এবং সোশাল মিডিয়ায় তার আগের সপ্তাহে ছড়ানো পোস্টগুলিও দেখেছে, যাতে মনে হয়েছে পোশাক-বিধি সংক্রান্ত এই পোস্টার ফোটোশপ করা হয়েছে।

এর আগেই, শুক্রবারই বেশ কয়েকটি দক্ষিণপন্থী টুইটার-হ্যান্ডেল নাগরিকত্ব আইন বিরোধী সমাবেশের পোস্টারটি ফোটোশপ করে ভাইরাল করে, যেখানে দেখানো হয় যে, মহিলাদের এই জমায়েতে বুঝি পোশাক-বিধি হিসাবে বোরখা বা হিজাব পরে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে।

আইনটির বিরুদ্ধে মুসলিমরাই ব্যাপকভাবে প্রতিবাদে নেমেছে, দক্ষিণপন্থী সোশাল মিডিয়ায় এই মর্মে একটা জনমত তৈরি করার প্রেক্ষাপটেই বিকৃত করা পোস্টারটি ভাইরাল হয়।

সুপ্রিম কোর্টের দিল্লির আইনজীবী প্রশান্ত উমরাও প্যাটেল এই ফোটোশপ করা পোস্টারটি তার টুইটে শেয়ার করে ক্যাপশন দেন: "প্রতিবাদটা সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে, অথচ প্রতিবাদীদের পোশাক-বিধি হচ্ছে হিজাব আর বোরখা। পিতৃতন্ত্র এবং মনুবাদ থেকে মুক্তি তাহলে হিজাব আর বোরখাতেই মিলবে! সোজা কথায়, এটা কোনও দেশব্যাপী আন্দোলন নয়, এটা নিছকই একটা শক্তি-প্রদর্শনের ব্যাপার, যার লক্ষ্য—হিন্দুদের সহিষ্ণুতার পরীক্ষা নেওয়া।"

টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

প্রশান্ত উমরাও যে এই প্রথম এ ধরনের ভুয়ো পোস্ট করছেন, যা পরে বিভ্রান্তিকর ও মিথ্যা প্রতিপন্ন হয়েছে তা নয়। এরকম আরও পড়তে এখানে, এখানে ক্লিক করুন।

ফেসবুকেও এই বিকৃত করা ভুয়ো পোস্টারটি শেয়ার করা হচ্ছে।

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে


টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

তথ্য যাচাই

প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজক মুম্বই নাগরিক মঞ্চের সংগঠকদের সঙ্গে কথা বলে আমরা জানতে পারি, এ ধরনের কোনও পোশাক-বিধি মহিলাদের জন্য ছিল না এবং এ বিষয়ে প্রচারটি ভুয়ো। অ্যাডভোকেট জুবেইর আজমি বুম-কে জানান, "কোনও পোশাক-বিধির উল্লেখ করা হয়নি। পোস্টারটি ভুয়ো।"

আজমি আমাদের তাদের মূল পোস্টারটি পাঠিয়ে দেন, যেটাকে ভুয়ো পোস্টারের পাশাপাশি ফেললেই স্পষ্ট হয়, মহিলাদের জন্য কোনও পোশাক-বিধির উল্লেখ আসল পোস্টারে নেই।


ভুয়ো পোস্টারে সংযোজিত অংশটি ছোট হাতের অক্ষরে জুড়ে দেওয়া আর তাতে যে হলুদ রঙ লেপা হয়েছে, তাও মূল পোস্টারটির হলুদের চেয়ে বিবর্ণ, মলিন।

তা ছাড়া, সমাবেশের বেশ কয়েকদিন আগে থেকেই আমরা সোশাল মিডিয়াতেই মূল পোস্টারটি দেখেছি, যাতে মহিলাদের পোশাক-বিধির কোনও নির্দেশিকা নেই। নীচে দেওয়া আমির এদ্রেসির ফেসবুক পোস্টটি দেখলেই বোঝা যাবে, সেখানে কোনও পোশাক-বিধির কথা নেই।

১৬ জানুয়ারি টুইট করা পোস্টেও সিএএ-বিরোধী প্রতিবাদের পোস্টারটি দেখা যাবে, যা গোটা দেশে এই প্রতিবাদের কর্মসূচি সংক্রান্ত টুইট-থ্রেড-এ দেওয়া আছে।

তা ছাড়া, শুক্রবার সন্ধ্যায় আয়োজিত সেই সমবেশ-অনুষ্ঠানের কিছু ছবিও বুম সংগ্রহ করেছে, যাতে হিজাব কিংবা বোরখা না-পরা মুসলিম মহিলারাদেরও দেখা যাচ্ছে।

১ ছবি:


ছবি:



Updated On: 2020-01-20T20:36:26+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি সিএএ বিরোধী প্রতিবাদীদের হিজাব/বোরখা পড়তে বলা হয়েছে
Claimed By :  IP Patel
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story