ভেনেজুয়েলার জেলে দাঙ্গায় মৃত বন্দিদের ছবিকে কাশ্মীরের সঙ্গে জোড়া হল

বুম দেখে মূল ছবিটি ভেনেজুয়েলার। ১ মে ২০২০ জেল ভেঙে সশস্ত্র বন্দিরা পালাতে চাইলে সেনার সঙ্গে গোলাগুলিতে মারা যায় তারা।

সোশাল মিডিয়ায় ভেনেজুয়েলার সংশোধানাগারে দাঙ্গার ফলে মৃত সারি সারি রক্তাক্ত লাশের ছবি শেয়ার করে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে কাশ্মীরে মুসলিমরা ইদের নামাজ পড়তে গিয়ে নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছেন।

ফেসবুকে শেয়ার করা ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে রাস্তার উপর সারি সারি রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে আছে। দূরে বন্দুকহাতে দাঁড়িয়ে রয়েছে নিরাপত্তা রক্ষীরা।

পোস্টটিতে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "তাদের প্রতিপালক আল্লাহর উপর। (সুরা- বুরুজ-০৯ )গতকাল ঈদের সালাত আদায় করতে যায় কাশ্মীরি মুসলমানেরা। তাদের সেখানেই হত্যা শুরু করে কসাই মোদির পেটুয়া বাহিনী। হে রব্বুল আলামিন আপনি দয়া করে সারা পৃথিবীর নির্যাতিত মুসলমানদের সাহায্য করুন। আর তাদের শহীদি মর্যাদা দান করুন। আমীন"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা হয়েছে এখানে।

এই ছবিটি ফেসবুকের বিভিন্ন জায়গায় একই দাবি করে শেয়ার করা হয়েছে।


বুম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে জানতে পারে ভাইরাল ছবিটির সঙ্গে কাশ্মীর বা ভারতের কোনও অঙ্গরাজ্যের কোনও যোগ নেই। মূল ছবিগুলি ভেনেজুয়েলার সেন্ট্রাল পর্তুগিসা রাজ্যের লস লালানস সংশোধানাগারে জেলবন্দিদের দাঙ্গার ভিডিও।

২ মে ২০২০ মুন্ডে ওরিয়েন্টাল-এর ছবি সহ প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যাবে ছবিটি। গণমাধ্যম রয়টর্স জানিয়েছে সশস্ত্র বন্দিরা জেলের প্রধান গেট ভেঙে পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে। জেলকর্মীরা তাদের বিরত হতে বললে বন্দিরা পিছু হঠতে অস্বীকার করে। পরে পরিস্থিতি আয়ত্বে আনতে সেনারা গুলি চালায়। কিউপাসা প্রতিবেদনে জানিয়েছে স্থানীয় সময় দুপুর ১ টার সময় এই ঘটনা ঘটে।

মুন্ডো অরিয়েন্টাল-এর প্রতিবেদনের স্ক্রিনশট।

মানব অধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ২ মে ২০২০ এই ঘটনার ছবিসহ রিপোর্ট প্রকাশ করে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয় এই হিংসার ঘটনায় ৪৬ জন বন্দির মৃত্যু হয়েছে ও ৭০ জন আহত হয়েছে।

Claim Review :  ছবির দাবি কাশ্মীরে ইদের নামাজ পড়তে যাওয়া মুসলিমদের উপর সেনা গুলি চালিয়েছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story