ট্রাম্পের কুশপুতুলে ঘুষি-লাথি মারার পুরনো ভিডিওটি জিইয়ে উঠলো

বুম দেখে ২০১৬ সালের নভেম্বরে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে থেকেই ভিডিওটি ইউটিউবে রয়ছে।

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের কুশপুতুলে পথচলতি সাধারন মানুষের বক্সিং গ্লাভস পরে ঘুষি-লাথি মারার ২০১৬ সালের পুরনো ভিডিও বিভ্রান্তিকর দাবি সহ জিইয়ে তোলা হয়েছে। ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হচ্ছে এভাবেই মার্কিন রাষ্ট্রপতির গ্রহণযোগ্যতা কমছে। ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ে ভাইরাল হয়েছে আমেরিকা জুড়ে বর্ণবিদ্বেষের শিকার হওয়া জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যা করার পর প্রতিবাদ-বিক্ষোভের প্রক্ষিতে।

গত মাসে প্রতারণায় অভিযুক্ত হওয়া জর্জ ফ্লয়েডকে মিনিয়াপলিসের এক শেতাঙ্গ পুলিশকর্মী হাঁটু দিয়ে চেপে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে। সোশাল মিডিয়ায় ফ্লয়েড হত্যার নির্মম ভিডিও ভাইরাল হলে সারা দেশ জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। প্রতিবাদের অঙ্গ হিসেবে সাম্রজ্যবাদের ঐতিহাসিক বিভিন্ন চরিত্রের মূর্তিকে কালিমালিপ্ত ও ভাঙ্গা হচ্ছে।

বুম দেখে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অবমাননা করা ভিডিওটি ২০১৬ সালের। সেসময় তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্টের রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হননি।

আরও পড়ুন: বিক্ষোভকারীরা কি হোয়াইট হাউসে চড়াও হয়েছিল? একটি তথ্য যাচাই

১ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ফেসবুকে শেয়ার করা হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে যে, জনবহুল স্থানে- পার্কে, চৌমাথায়, মলে, সৈকতে বিভিন্ন জায়গায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কুশপুতুলকে সাধারন মানুষ কিল, চড়, ঘুসি লাথি মেরে উপভোগ করছেন। যুবক থেকে মধ্য বয়সী, ছেলে-মেয়ে, নারি-পুরুষ, কৃষ্ণাঙ্গ-শ্বেতাঙ্গ সবাই একে একে নির্দ্বিধায় ট্রাম্পের প্রতিকৃতিতে মুখে আঘাত করছে, কেউবা লাথি মারছে আর উল্লাসে ফেটে পড়ছে। ভিডিওতে একজন মধ্য বয়সী মহিলাকে ট্রাম্পের মূর্তিতে চুম্বন দিতেও দেখা গেছে।

ফেসবুক পোস্টের ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "USA তে ট্রাম্প এর অভ্যার্থনা প্রতিদিন বাড়ছে।"
পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে
একই ক্যাপশনে ফেসবুকে অনুসন্ধান করে বুম দেখে যে পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে।

তথ্য যাচাই
বুম ভাইরাল ভিডিওকে কয়েকটি মূল ফ্রেমে আলাদা করে নিয়ে ইন্টারনেটে রিভার্স ইমেজ অনুসন্ধান এবং উপযুক্ত কি-ওয়ার্ড দিয়ে গুগলে অনুসন্ধান করে দেখে যে, ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি ২০১৬ থেকে ইন্টারনেটে আছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প সেসময়আমেরিকার রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হননি। ২০১৬ সালের নভেম্বরে ডোনাল্ড ট্রাম্প রাষ্ট্রপতি হিসেবে
নির্বাচিত
হন।
বুম ২৬ অক্টোবর ২০১৬ তে ইউটিউবে আপলোড হওয়া দুটি আলাদা ভিডিও খুঁজে পায়। একটি ভিডিও ৬ মিনিট ৩ সেকেন্ডের এবং অপর ভিডিওটি ২ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডের। দুটি ভিডিইওই আপলোড করা হয় 'কাইললেভো' (KyleLEVO) নামের চ্যানেল থেকে। দুটি ভিডিওতে ট্রাম্প এবং হিলারীর আবক্ষ মূর্তিতে মানুষের আঘাত করার দৃশ্যগুলি দেশের নানান স্থান থেকে সম্পাদনা করে বসান হয়েছে।
ভিডিওর বিবরণে লেখা আছে: "ডোনাল্ড ট্রাম্প ও হিলারি ক্লিন্টনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আসছে আগামী ৮ নভেম্বর। উভয় প্রত্যাশীই কিছু মানুষের অপছন্দের। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হেনস্থার অভিযোগ আছে আর হিলারির আছে ই-মেইল কেলেঙ্কারী। তাই আমাদের কাছে একটা ট্রাম্প এবং একটা হিলারির কুশপুতুল আছে এবার মানুষকে ঘুষি মারতে দেওয়া হবে। ভিডিওটি শেয়ার করুন যদি আপনি নির্বাচন নিয়ে এক ঘেয়ে অনুভব করে থাকেন।"
(মূল ইংরেজি বিবরণ: "The Presidential election between Donald Trump and Hillary Clinton is coming up Nov. 8th, election day. Both candidates are disliked in some form. Trump has several rape allegations and Hillary has her email scandal. So we got a Trump dummy and a Hillary dummy and let people punch the candidates. Share if your tired of this election.")
ভিডিও দুটি নীচে দেওয়া হল।


প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে সম্প্রতি আমেরিকার খ্যাতনামা তথ্যচিত্র নির্মাতা মাইকেল মুর ট্রাম্পের একটি টুইটের প্রেক্ষিতে এই ভিডিওটিকে উদ্ধৃতি করে একটি টুইট করেন।

Claim Review :   ভিডিওর দাবি ট্রাম্পের কুশপুতুলে মানুষের লাথি-ঘুষি মারার দৃশ্যটি সাম্প্রতিক
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story