সাইক্লোন ফণীর দৃশ্য সোশাল মিডিয়ায় ফিরে এল দিঘাতে আমপানের তাণ্ডব বলে

বুম দেখে যে, ভাইরাল হওয়া প্রবল ঝড় বৃষ্টির ভিডিওটি ২০১৯ সালের মে মাস থেকে সোশাল মিডিয়াতে আছে। ভিডিওটি সাইক্লোন ফণীর।

সোশাল মিডিয়াতে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে যে, অসম্ভব জোরে ঝড় বইছে, তার প্রবল গর্জন শোনা যাচ্ছে এবং বলা হচ্ছে এই দৃশ্যটা সম্প্রতি দিঘার উপর দিয়ে আমপান ঝড় বয়ে যাওয়ার দৃশ্য। বুম দেখেছে দাবিটি ভুয়ো এবং ভিডিওটি ২০১৯ সালে উড়িশা উপকূলে হওয়া সাইক্লোন ফণীর একটি দৃশ্য।

১ মিনিট ১ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, প্রবল বৃষ্টি এবং তীব্র ঝড়ো হাওয়ায় আশেপাশের গাছপালা নুইয়ে পড়েছে। রাস্তায় থাকা একটি ট্রাক উল্টে পড়ে গেছে। ভিডিওর ফ্রেমে থাকা দৃশ্যে একটি হলুদ কাপড়কে হাওয়ায় উড়তে দেখা যাচ্ছে সঙ্গে। ঝড়ের দাপটে একটি ইলেকট্রিক টাওয়ারও মাটিতে উল্টে পড়ে গেছে।

২০২০ সালের মে মাসের ২০ তারিখ এই ভিডিওটি ফেসবুকে পোস্ট করা হয়। পোস্টের ক্যাপশন হল, "#দিঘা তে তাণ্ডব চালালো আমফান।"
ভিডিওটি দেখা যাবে এখানে। ভিডিওটি আর্কাইভ করা এখানে
এই ভিডিওটি আর একটি ক্যাপশন দিয়েও ফেসবুকে বিভিন্ন জায়গায় শেয়ার করা হয়েছে। ক্যাপশনটি হল,"সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ঘূর্নি ঝড় #আমফান । দেখুন তার বিদ্ধংসী তেজ। সবাই সাবধানে থাকুন । এটা #দীঘা উপকূল এর এই মূহুর্তের ছবি।"
ভিডিওটি দেখা যাবে এখানে। ভিডিওটি আর্কাইভ করা এখানে
এই ভিডিওটি টুইটারেও অনন্ত রূপানাগুডি বলে একজন আমলা ২০২০ সালের মে মাসের একুশ তারিখ শেয়ার করেন। টুইটটিতে দাবি করা হয়েছে যে এই ঘটনাটি আমপানের ঝড়ের কারণে হয়েছে। এবং ক্যাপশনে লেখেন, "ঝড় এবং বৃষ্টির অসীম শক্তি ট্রাক এবং বিদ্যুতের টাওয়ার উল্টে দিল! #CycloneAmphan"
মূল ক্যাপশনটি ইংরেজিতে হল, "The power of the wind and rain is indeed frightening! Just look at the fallen vehicle and the electric tower! #CycloneAmphan"
টুইটটি দেখা যাবে এখানে। টুইটটি আর্কাইভ করা হয়েছে এখানে

'দৃষ্টিভঙ্গী' নামের একটি নিউজ পোর্টাল ও এই ভিডিওটি ২০২০ সালের মে মাসের কুড়ি তারিখে শেয়ার করে একই দাবী করে যে, ঘটনাটি দিঘা তে ঘটেছে। ভিডিওটি দেখা যাবে
এখানে
এবং আর্কাইভ করা এখানে। 'ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস' ও ২০২০ সালের মে মাসের ২১ তারিখে তাদের আর্টিকেলে এই ভিডিও টি শেয়ার করে এবং দাবী করে যে ঘটনাটি সাইক্লোন আমপানের কারণে হয়েছে।তারা অনন্ত রূপানাগুডি যে ভিডিওটি টুইটারে পোষ্ট করেছিলেন, সেই ভিডিওটিকেই শেয়ার করে।
জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে আন্তর্জাতিক সক্রিয়কর্মী গ্রেটা থানবার্গও এই একই ভিডিওটি টুইটারে গত ২০ মে রিটুইট করেন। গ্রেটা ভিডিওটি সাহিনী নামক এক মহিলার প্রোফাইল থেকে রিটুইট করেন। এই পোস্টটিতে দাবী করা হচ্ছে যে বঙ্গোপসাগর থেকে উত্থিত আমপানের ফলে দীঘায় ঘটনাটি ঘটেছে।
ভিডিওটির ক্যাপশন হল: "এখন দীঘা। #Cyclone Amphan এখন বাংলার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, চলুন হাত জোড় করে সম্মিলিত প্রার্থনা করি।"

(মূল ইংরেজি ক্যাপশন: "Digha right now #CycloneAmphan heading towards bengal now..lets pray for all our safety।")

টুইটটি দেখা যাবে এখানে। টুইটটি আর্কাইভ করা এখানে

আরও পড়ুন: জলে ডুবে সুন্দরবনে ত্রাণ নিচ্ছে শিশু? ছবিটি আমপানের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়

তথ্য যাচাই

তথ্যের অনুসন্ধান করে বুম দেখে যে এই ভিডিওটি আমপান ঝড়ের কোন দৃশ্য নয়, এটি গতবছর, অর্থাৎ ২০১৯ এর মে মাসে উড়িশা উপকূলের উপরে আছড়ে পড়া সাইক্লোন ফণীর দৃশ্য। এই ভিডিওটি ৩ মে ২০১৯ থেকে ইন্টারনেটে আছে।
বুম ভিডিওটিকে কি ফ্রেমে ভাগ করে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখে যে, ২০১৯ সালের মে মাসের তিন তারিখে 'ভূবনেশ্বর বাজ্ ' নামের একটি পেজ তাদের ফেসবুক প্রোফাইলে এই ভিডিওটি আপলোড করে এবং ওড়িয়া ভাষায় ক্যাপশনে লেখে। বুম গুগল ট্রান্সলেটারের মাধ্যমে দেখে যে ক্যাপশনে বলা হয়েছে, "পুরীতে, ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার বেগে বাতাস বইছে, চার চাকা বয়ে যাচ্ছে!"

ভিডিওটি দেখা যাবে এখানে। ভিডিওটি আর্কাইভ করা এখানে

ভিডিওটি ২০২০ সালের মে মাসের ৩ তারিখে আপলোড করা হয় এবং তাঁরা ক্যাপশনে লেখেন, গত বছর ঠিক এই দিনে তাঁরা এই ভিডিওটি আপলোড করেছিলেন। পুরীতে সাইক্লোন ফণীর সময় তাঁরা এটি লাইভ ভিডিও করেন এবং পরে সেটি ভাইরাল হয়। তাঁরা বলেন, এই ভিডিওটি সকাল দশটায় তোলা হয়, তখন ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ১৭০ কিলোমিটার।

গত ৩ মে তারিখে তাদের পোস্ট করা এই ভিডিওটি দেখা যাবে এখানে। ভিডিওটি আর্কাইভ করা এখানে

অর্থাৎ এই ভিডিওটির সঙ্গে সাইক্লোন আমপানের কোনও সম্পর্ক নেই এবং ঝড় বৃষ্টির মধ্যে ট্রাক ও বিদ্যুতের টাওয়ার উল্টোনোর ঘটনাটিও সাইক্লোন আমপানের সাথে সম্পর্কহীন।

Updated On: 2020-05-26T16:17:39+05:30
Claim Review :   ভিডিওতে দেখা যায় দিঘাতে আমপান ঘূর্ণিঝড় ঘাতে আছড়ে পড়ছে
Claimed By :  Social Media Posts & News Websites
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story