বিজনৌরে সিএএ-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সময় আহত বাচ্চা ছেলের ভিডিও জিইয়ে উঠলো

বুম দেখে ভিডিওটি ২০১৯ সালের ২০ ডিসেম্বরের, যখন উত্তরপ্রদেশের বিজনৌরে একটি সিএএ বিরোধী প্রতিবাদ-বিক্ষোভ হিংসাত্মক হয়ে ওঠে।

উত্তরপ্রদেশের বিজনৌর জেলায় একটি বাচ্চা ছেলের রক্তাক্ত, আহত হওয়ার একটি কষ্টদায়ক দৃশ্যের ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় জিইয়ে তুলে দাবি করা হচ্ছে, এটি বারাণসীর একটি মসজিদে ঢুকে স্থানীয় পুলিশের শিশুহত্যার ঘটনা। ভিডিওতে একটি বাচ্চা ছেলেকে আহত অবস্থায় দেখা যাচ্ছে, যার মাথা-মুখ দিয়ে গলগল করে রক্ত ঝরছে। যখন এক ব্যক্তি তাকে জিগ্যেস করছে, কে তার এই অবস্থা করেছে, তখন সে উত্তরে জানাচ্ছে—পুলিশ!

বুম এ ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে যে, ভিডিওটি বিজনৌর জেলার জালালাবাদ এলাকার ঘটনার ছবি, যেখানে ২০১৯ সালের ২০ডিসেম্বর সিএএ-বিরোধী আন্দোলন হিংসাত্মক হয়ে উঠেছিল।

১২ ডিসেম্বর থেকেই গোটা উত্তরপ্রদেশ জুড়ে সিএএ-র বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ-বিক্ষোভ ও তার দমনের প্রক্রিয়া বহু স্থানে দাঙ্গার মতো পরিস্থিতি তৈরি করেছিল। শুধু বিজনৌর জেলাতেই দু জনের মৃত্যু ঘটেছিল, যেখানে গোটা রাজ্যে পুলিশি দমননীতিতে মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়।

বাচ্চা ছেলেটি সম্ভবত এই ধরনের কোনও নির্মম পুলিশি লাঠি-চার্জেরই শিকার হয়েছিল।

সতর্কতাঃ নীচের ভিডিওটি দেখতে অস্বস্তি হতে পারে

ভিডিওটি টুইট করা হয় @Dalal_alajmi_ অ্যাকাউন্ট থেকে এবং এই লেখার সময় পর্যন্ত এটি অন্তত ২ হাজার বারের বেশি সেটি রিটুইট করা হয়েছে।

টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম দেখেছে, ভিডিওটি সাম্প্রতিক নয়, কারণ এটা প্রথমবার ভেসে উঠেছিল ডিসেম্বরে, সিএএ-বিরোধী প্রতিবাদ-বিক্ষোভের সময়। আমরা টুইটগুলি স্ক্যান করে যেটুকু জানতে পেরেছি, তা হলো, এটি উত্তরপ্রদেশের বিজনৌর জেলার জালালাবাদ অঞ্চলের ঘটনার ছবি।

আরও কিছু অনুসন্ধান চালিয়ে আমরা ওই একই ভিডিওর খোঁজ পাই, যেটি আরও কিছু বিজনৌরের বিক্ষোভের ঘটনার ছবি সহ ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন ইম্মি ইমরান খান নামে এক ব্যক্তি। ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে


আমরা ইমরান খানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি স্বীকার করেন, তিনিই ২০ ডিসেম্বর জালালাবাদের কাজিয়ান মহল্লায় ওই আহত বাচ্চাটির ছবি তুলেছিলেন। তিনি জানান, "এই বাচ্চাগুলো সেদিন কাজিয়ান মহল্লার মসজিদ গলিতে জুম্মাবারের নামাজ আদায় করে ঘরে ফিরে আসছিল, তখনই আমি ওই রক্তাক্ত বাচ্চাটির ছবি তুলি।" বুম তার সঙ্গে যোগাযোগ করার পর তিনি ওই একই কাজিয়ান মহল্লায় ২৫ মে তারিখে আরও একটি ভিডিও তোলেন এবং সেটিও বুম-এর নাগালে এসেছে।

বুম স্থানীয় কিছু সংবাদ-বুলেটিনও হাতে পেয়েছে, যেখানে ২০ ডিসেম্বর জালালাবাদ এলাকায় সিএএ-বিরোধী প্রতিবাদে পুলিশের শিশুদের ওপরেও লাঠি-চার্জের ঘটনার প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিজনৌরের এক আদালত বিক্ষোভ চলাকালীন 'দাঙ্গায় লিপ্ত হওয়া এবং খুনের চেষ্টা'র পুলিশি অভিযোগে ধৃত ৪৮ জনকে জামিনে মুক্তি দিয়েছে বলে জানানো হয়। স্থানীয় পুলিশের দায়ের করা এফআইআর অনুযায়ী, জুম্মাবারের নামাজের পর হাজার-হাজার লোক জড়ো হয়ে বিনা প্ররোচনায় বেসরকারি গাড়ি ও দোকানপাট ভাঙচুর করতে থাকে, সরকারি যানবাহনেও ভাঙচুর চালায় এবং পরিস্থিতি মোকাবিলায় মোতায়েন পুলিশকে লক্ষ্য করেও পাথর ছোঁড়ে, এমনকী পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিও চালায়। বুম অবশ্য বাচ্চা ছেলেটির ওপর আক্রমণের ঘটনাটি নিজে থেকে যাচাই করে দেখতে পারেনি।

আরও পড়ুন: মুম্বইয়ের কেইএম হাসপাতালের কোভিড-১৯ ওয়ার্ডের ভিডিওকে দিল্লির বলা হল

Updated On: 2020-06-04T13:08:05+05:30
Claim Review :  ভিডিও দেখায় বারাণসীতে পুলিশ মুসলিম বাচ্চাদের উপর অত্যাচার করছে
Claimed By :  Twitter Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story