কোভিড-১৯ মোকাবিলায় নেপালে বিক্ষোভের ঘটনা বিভ্রান্তিকর দাবি সহ ভাইরাল

বুম দেখে নেপাল সরকারের কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যথাযথ পদক্ষেপের দাবিতে বালুয়াতরে ১১ জুন ওই বিক্ষেভে অংশ নেয় তরুণরা।

নেপালে প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি নেতৃত্বাধীন সরকারের কেভিড-১৯ মোকাবিলা নিয়ে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় প্রতিবাদ-বিক্ষেভের ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকর দাবি সহ শেয়ার করা হচ্ছে। ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হচ্ছে ভারতের পক্ষে সমর্থন জানাতেই নাকি এই বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হচ্ছে।

ফেসবুকে পোস্ট করা ১ মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে দেখা প্রধানত যুবক-যুবতীদের বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে দেখা যায়। উত্তাল স্লোগান দিতে দেখা যায় তাদের। রাস্তায় দাঙ্গা মোকাবিলাকারী পুলিশদেরকেও দেখা যাচ্ছে। নেপালি ভাষার সাথে ইংরেজিতেও প্ল্যাকার্ড রয়েছে ওই বিক্ষোভে প্রদর্শনে। প্রধানমন্ত্রী কে পি অলির নাম সহ ও প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। একটি প্ল্যাকার্ডে ইংরেজিতে লেখা ছিল 'আদা রসুন উত্তর নয়' (Ginger and Garlic is not the answer।'

ফেসবুকে এই ভিডিও পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "চীনের দালাল নেপালের লাল সন্ত্রাসী সরকারের বিরুদ্ধে এবং ভারতের পক্ষে প্রদর্শনে নেপালী জনতা।"
পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। আর্কাইভ করা আছে এখানে
একই ক্যাপশন দিয়ে ফেসবুকে অনুসন্ধান করে বুম দেখে যে ভিডিওটি অনেকেই শেয়ার করেছেন।

তথ্য যাচাই

বুম দেখে ভিডিওটি জুন মাসের। নেপাল সরকারের কোভিড-১৯ মোকাবিলায় যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় ওই বিক্ষোভে সামিল হয় যুবকযুবতীরা।
বুম ভাইরাল ভিডিওতে থাকা লোগোতে 'ক্লিক মান্ডু' (CLICK MANDU) লেখা দেখে ফেসবুকে অনুসন্ধান করে
পেজটি
খুঁজে পায়। বুম দেখে ১১ জুন বেলা ১ তা ৪৬ মিনিটে এই পেজ থেকে ভাইরাল হওয়া উক্ত ভিডিওটি লাইভ সম্প্রচার করা হয়েছিল। সম্পূর্ণ ভিডিওটি ২ ঘন্টা ১০ মিনিট ৫৩ সেকেন্ডের।
এই ভিডিওর ৮ সেকেন্ড থেকে ১ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড সময়ের অন্তর্বর্তী ভিডিওটি ফেসবুকে ভুয়ো বিবরণ দিয়ে শেয়ার করা হয়েছে। ক্লিক মান্ডু পেজ থেকে ১১ জুন সম্প্রচার করা লাইভ ভিডিওর ক্যাপশনে লেখা আছে: "বালুয়াতরে সরকারের বিরুদ্ধে প্রদর্শন" (নেপালি ভাষায় মূল ক্যাপশন: "बालुवाटारमा सरकारविरूद्ध प्रदर्शन, बालुवाटारमा सरकारविरूद्ध प्रदर्शन")
ভিডিওটি আর্কাইভ করা আছে
এখানে
নিচে ভাইরাল ভিডিও এবং ফেসবুকে লাইভ সম্প্রচারিত ভিডিওর ফ্রেমের তুলনা করা হল।

ভাইরাল ভিডিওর ৪৬ তম সেকেন্ড (বাম দিকে) ও লাইভ সম্প্রচারিত ভিডিওর ৫৪ তম সেকন্ডের ( ডান ডিকে) স্ক্রিনশটের তুলনা

যুবকেরা সমবেত হয়ে প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলির বাড়ির সামনে বিক্ষোভে সামিল হয়। কাঠমান্ডু পোস্ট ৯ জুন ২০২০ প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানায়, প্রায় ১৫০ জন লোক প্রাধানমন্ত্রীর বাসভবন বালুয়াতর-এর বাসভবনে সকাল ১০ টায় জমায়েত হয়ে পরিমারেজ টেস্টের দাবিতে সরব হয়।
পরিস্থিতি সামাল দিতে জল কামান, পুলিশি লাঠিচার্জ ও গ্রেফতারির ঘটনা ঘটে ১১ জুন। ১৪ জুন ২০২০ এপি আর্কাইভ এর ইউটিউব চ্যানেলে ১১ জুনের ওই বিক্ষোভের খবর প্রকাশিত হয়েছে।

কাঠমান্ডু পোস্টেরই ১২ জুন প্রকাশিত আরেকটি প্রতিবেদনে ভাতাবাথেনিতে আরেকটি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রধানত যুবকরা ওই বিক্ষোভের ডাক দেয়।

রয়টর্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী নেপাল সরকারের বয়ানে এখন অবধি নেপাল মাত্র ৮৯ মিলিয়ন ডলার কোভিডের মোকাবিলার জন্য বরাদ্দ করেছেন, যা বিক্ষোভকারীদের মতে ৩ কোটি নাগরিকের যথেষ্ট কম। নেপালে প্রায় ৩ লক্ষ ১০ হাজারের মতো টেস্ট করা হয়েছে কিন্তু বিক্ষোভকারীদের দাবি এই টেস্ট করার হার যথেষ্ঠ নয়।

Updated On: 2020-07-06T19:54:48+05:30
Claim Review :   ভিডিওর দাবি নেপালে জনগণ ভারতের পক্ষে বিক্ষোভ করছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story