ট্রেনের দুটি কামরার মাঝে বাচ্চা কোলে মহিলার সফরের ভিডিওটি ভারতের নয়

বুম দেখে যে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি ২০১৬ সালের জুলাই মাসের এবং সম্ভবত এটি বাংলাদেশের ঘটনা।

বাচ্চা কোলে নিয়ে দ্রুতগামী একটি ট্রেনের দুটি কামরার জোড়ের ওপর বিপজ্জনকভাবে বসে রয়েছেন এক মহিলা, ভাইরাল হওয়া এমন একটি ভিডিওর দৃশ্যটি পুরনো এবং এটি ভারতের ঘটনা নয়। কোভিড-১৯ এর কারনে জারি হওয়া লকডাউনের মধ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের মরিয়া হয়ে বাড়ি ফেরার ঘটনাবলির প্রেক্ষিতে এই ভিডিওটি ভাইরাল করা হয়েছে।

বুম দেখে ভাইরাল হওয়া এই ভিডিও ক্লিপটি ২০১৬ সালের এবং সম্ভবত এটি বাংলাদেশের ভিডিও।

অগণিত পরিযায়ী শ্রমিক জাতীয় সড়ক বেয়ে দীর্ঘ পথ পায়ে হেঁটে তাদের নিজের রাজ্যে ফিরে যাওয়ার মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে। লকডাউনের তৃতীয় পর্যায়ে কেন্দ্রীয় সরকার এই পরিযায়ী শ্রমিকদের নিজের-নিজের রাজ্যে ফেরার জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু রেলওয়ে এই শ্রমিকদের কাছে টিকিটের দাম চাওয়ায় কঠোরভাবে সমালোচিতও হয়েছে। এ পর্যন্ত ৭৮ হাজারেরও বেশি মানুষ ভারতে কোভিড-১৯ রোগে সংক্রমিত হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ক্লিপটিতে দেখা যাচ্ছে, এক মহিলা তার কোলের শিশুকে আঁকড়ে ধরে দ্রুতগামী একটি ট্রেনের দুটি বগির মাঝে জোড়ের ওপর বিপজ্জনকভাবে বসে রয়েছেন। ভিডিও ক্লিপটির ক্যাপশন হল, "বন্ধুগণ, এই পৃথিবীতে মায়েরাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় যোদ্ধা l মোদীজি, এক অসহায় মহিলা কীভাবে আপনার সুপার-ক্লাস ট্রেনে সফরের মজা উপভোগ করছে দেখুন !"

এই টুইটটি অবশ্য মুছে দেওয়া হয়েছে। টুইটটি আর্কাইভ করা এখানে

টুইটারেও ভাইরাল

বেশ কয়েকজন টুইট ব্যবহারকারী রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে ট্যাগ করে বিশেষ ট্রেনে যাতায়াতকারী পরিযায়ী শ্রমিকদের নিরাপত্তার বিষয়টা নজর দিতে অনুরোধ করেন।

টুইটটি দেখা যাবে এখানে। টুইটটি আর্কাইভ করা এখানে

ফেসবুক

১০ই মে মাতৃ দিবস উপলক্ষেও ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

আরও পড়ুন: পরিবার নিয়ে এক পায়ে সাইকেল চালানোর ভিডিওটি লকডাউনের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়

তথ্য যাচাই

ভিডিওটা কি ভারতের?

বেশ কয়েকজন নেটিজেন মন্তব্য করেছেন যে, ভিডিওটি সম্ভবত বাংলাদেশের, কারণ ছবিতে ট্রেনের গায়ে হলুদ রঙের লাইন আড়াআড়ি টানা রয়েছে, ঠিক বাংলাদেশের ট্রেনে যেমন থাকে। এর পর আমরা ভাইরাল ভিডিও থেকে একটি ফ্রেম বার করে এনে বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি ট্রেনের ছবির সঙ্গে তুলনা করে দেখি, হলুদ লাইনের ব্যাপারটা মিলে যাচ্ছে।


আমরা ভাইরাল ভিডিওটিকে কয়েকটি মূল ফ্রেমে ভেঙে নিয়ে রিভার্স সার্চ ইঞ্জিন ইয়ানডেক্স মারফত অনুসন্ধান চালিয়ে দেখেছি, ভিডিওটি ২০১৬ সালের জুলাই মাসে তোলা। অনুসন্ধানে আরও জানা যায়, এই ভিডিওটি বাংলাদেশের জনপ্রিয় সংবাদপত্র 'প্রথম আলো'-র ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৩ তারিখে আপলোড করা হয়েছিল। বাংলায় যে ভিডিওটির ক্যাপশন দেওয়া হয়েছিল সেটা হল, "ইদ মানে বাড়ি ফেরা-সশরীরে বা মনে মনে l"

ভিডিওটি কি সাম্প্রতিক?

সব ধরনের খোঁজখবর নিয়ে আমরা দেখেছি, ভিডিওটি প্রথম অনলাইনে আপলোড হয় ২০১৬ সালের ৩১ জুলাই। তখন সেটির ক্যাপশন ছিল, "উদ্বাস্তু মা ও শিশু।"

এর পর ২০১৭ সালের ১৮ মে এই ভিডিওটি আমরা আপলোড হতে দেখি, যখন রেল মন্ত্রকের মুখপাত্র অনিল সাক্সেনা বলেন যে, তাঁরা ভিডিওটি তদন্ত করে দেখছেন। সাক্সেনা তাঁর রিপোর্টে জানান, এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে এবং বেশ কয়েকজনের কাছ থেকে রেল এটি পেয়েছে।

বুম নিজে থেকে ভিডিওটির ঘটনাস্থল কিংবা অন্যান্য বিস্তারিত বিবরণ যাচাই করে দেখতে পারেনি, তবে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পেরেছে যে, এটি ২০১৬ সালের জুলাই মাসের ঘটনার ছবি এবং খুব সম্ভবত বাংলাদেশের কোনও ঘটনার।

আরও পড়ুন:পাকিস্তানের হিংসার ছবিকে পশ্চিমবঙ্গের তেলিনিপাড়ায় দাঙ্গার ঘটনা বলা হল

Claim Review :   ভিডিও দেখায় এক মহিলা তাঁর শিশু সন্তানকে নিয়ে ট্রেনের দুটি কামরার মাঝে সফর করছেন
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story