বহুভুজা বোধিসত্ত্ব নৃত্যকে হিন্দু দেবতার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি হিসেবে শেয়ার করা হচ্ছে

বুম দেখেছে মূল ভিডিওটি বহুভুজা নৃত্যের। এটি চিনা মহিলারা রাষ্ট্রপুঞ্জের অনুষ্ঠানে মঞ্চস্থ করেন।

বৌদ্ধ দেবতার উদ্দেশে নিবেদিত একটি নৃত্যকলা সোশাল মিডিয়ায় এই ভুয়ো দাবি নিয়ে ভাইরাল হয়েছে যে, এটি ভারতের হিন্দুদের একটি ভক্তিমূলক অনুষ্ঠান। ভিডিওটির সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে রামের ভজন, যা গেয়েছেন ধ্রুপদী সঙ্গীতকার কুলদীপ এম পাই-এর দুই ছাত্রী বেবি নিরঞ্জনা এবং বেবি ভক্তি হিরন্ময়ী।

২ মিনিট ১৯ সেকেন্ডের এই সম্পাদিত ভিডিওটিতে চিনা নর্তকীদের সুসমন্বিত ও নিখুঁত নৃত্যকলা পরিবেশন করতে দেখা যাচ্ছে। ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে, “মোহময়ী নৃত্যকলা, যা পরিবেশিত হয়েছে দুই শিশু শিল্পীর ভজনের তালে-তালে, যে শিল্পীরা হলেন এক এবং একমাত্র গুরুর ছাত্রী”

ফেসবুক পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ওই একই ভিডিও একই ক্যাপশন দিয়ে টুইট করেছেন বিখ্যাত সাংবাদিক ও শিক্ষাবিদ অ্যাকেডেমিক মধুপূর্ণিমা কিশওয়ার।



এর আগেও নানা উপলক্ষে মধু কিশওয়ারকে ভুয়ো খবর এবং বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াতে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন: ভুয়ো খবরের সঙ্গে মধু কিশওয়ার নিরবচ্ছিন্ন সংশ্রব

মধু কিশোয়ার আবার সেই কাজটি করলেন: ভুয়ো প্রেক্ষিত ব্যবহার করে রাহুল গান্ধীর পুরনো ভিডিও টুইট করলেন

এই লেখার সময় পর্যন্ত কিশয়ারের টুইটটি ১ লক্ষ ৮০ হাজার জন দেখেছে।

পাকিস্তানি-কানাডীয় সাংবাদিক তারেক ফাতাহ-ও এই ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। তারও বিবরণ একই রকম—‘হিন্দুস্তানের জাদু।’



তথ্য যাচাই

অনেক নেটিজেনই অবশ্য উল্লেখ করেছেন যে, ভিডিওটি সম্পাদনা করা হয়েছে এবং এটি ভারতের ভিডিও নয়।





বুম এরপর বিষয়টি অনুসন্ধান করে দেখে, ভিডিওটি চিনের জিনহুয়া নিউজ-এর সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলে গত বছর নভেম্বরে আত্মপ্রকাশ করেছিল। তাতে এই নৃত্যকলাটিকে ‘বহুভুজা বোধিসত্ত্ব নৃত্য’ বলে বর্ণনা করা হয়।

তা ছাড়া, বেবি নিরঞ্জনা ও বেবি ভক্তি হিরন্ময়ীর গাওয়া রাম ভজনের অডিওটি ভিডিওতে পরে জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

নীচে সেই ভজনের ভিডিও—



গত বছর নিউ ইয়র্কে রাষ্ট্রপুঞ্জের সদর-দফতরে চিনের বিশেষ ভাবে সক্ষম শিল্পীদের নাচের দলএই নৃত্যকলাটি প্রদর্শন করে।

অনুষ্ঠানটির একটি দীর্ঘতর ভিডিও ক্লিপ ইউটিউবেও আপলোড করা হয়।



গবেষণায় জানা গেছে, বহুভুজা এই নাচটির সম্পর্ক রয়েছে দেবী গুয়ান ইন বা দয়ার দেবীর সঙ্গে। প্রখ্যাত নৃত্যগুরু ঝাঙ জিজাং এই নৃত্যশৈলীর প্রবর্তক। চিনের প্রতিবন্ধী শিল্পীদলের ৬৩ জন শ্রবণক্ষম নৃত্যশিল্পীকে নিয়ে এই নৃত্যকলা পরিবেশিত হয়েছে। এই নাচ সেই পুরাণকথা বিবৃত করে, যা বলে বোধিসত্ত্ব গুয়ান ইন-এর হাজারটি হাত ছিল।

নীচে ওই একই শিল্পীদলের পরিবেশিত অন্য একটি বহুভুজা নৃত্যকলার ভিডিও।



Claim Review :  দুজন শিশুর গাওয়া ভজনে মোহময়ী নৃত্য পরিবেশন
Claimed By :  FACEBOOK POST, MADHU KISHWAR, TAREK FATAH
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story