TMC কর্মীরা BJP নেতার দোকান পুড়িয়েছে বলে ফেসবুকে বিদেশের ছবি পোস্ট

বুম দেখে ছবিটি ২০১৪ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার সান মার্কোস-এ দাবানলে একটি বাড়ি পুড়ে যাওয়ার ছবি।

ভারতীয় জনতা পার্টির (Bharatiya Janata Party) পশ্চিমবঙ্গ (West Bengal) শাখার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, বসিরহাটে তাদের দলের নেতা নূর ইসলামের দোকানে তৃণমূল কংগ্রেস (Trinamool Congress) ভাঙচুর চালায়। এই দাবির সঙ্গে ২০১৪ সালের ক্যালিফোর্নিয়ায় (California) দাবানলের (Firest Fire) ঘটনার একটি ছবি শেয়ার করা হয়েছে।

বিভিন্ন প্রতিবেদন অনুসারে, বসিরহাটের মিনাখাঁ অঞ্চলের বিজেপির সংখ্যালঘু শাখার সভাপতি নূর ইসলাম গাজির কয়েকটি দোকান ও বাড়ি সম্প্রতি ভাঙচুর করা হয় ও আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। স্থানীয় বিজেপি নেতারা অভিযোগ করেন যে, তৃণমূল কংগ্রেস এই আক্রমণ করে। বিজেপি নেতা ও কর্মীদের বাড়িতে আগুন লাগানোর অভিযোগে মিনাখাঁ পুলিশ এখন পর্যন্ত চার জনকে গ্রেফতার করেছে। অভিযুক্তদের মধ্যে এক সিভিক ভলেন্টিয়ারও রয়েছে।
এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ (West Bengal BJP) শাখার ফেসবুক পেজ (Facebook Page) থেকে একটি গ্রাফিক শেয়ার করা হয়, যাতে মমতা ব্যানার্জির (Mamata Banerjee) ছবি ও একটি আগুন লাগা বাড়ির ছবি সঙ্গে টিএমসি ভাঙচুর চালিয়েছে বলে বাংলা ভাষায় লেখা টেক্সটে দাবি করা হয়।
ফেসবুক পোস্টে যে গ্রাফিকটি শেয়ার করা হয়েছে তাতে লেখা হয়েছে, "আবারও তৃণমূলের অনাচারের নিদর্শন এলো প্রকাশ্যে। বিজেপি নেতা নূর ইসলামের দোকান-স্কুলে আগুন লাগলো তৃণমূলের গুন্ডারা। বসিরহাটে তৃণমূলের অরাজকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোয় এই কান্ড করে তৃণমূলবাহিনী। আর কত মানুষ রাজনৈতিক হিংসার শিকার হবে পশ্চিমবঙ্গে? জবাব দাও পিসি"।
ছবিটির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "বিরোধীদের উপর আর কত অত্যাচার করবেন পিসি? আর কত মানুষকে রাজনৈতিক হিংসার শিকার হতে হবে আপনার রাজত্বে? জবাব দিন পিসি!"
এই পোস্টটির আর্কাইভ এখানে দেখতে পাবেন।
তথ্য যাচাই
গ্রাফিকে যে আগুন লাগা বাড়ির ছবি শেয়ার করা হয়েছে, বুম সেই ছবিটির উপর রিভার্স ইমেজ সার্চ করে এবং ২০১৪ সালের ১৪ মে প্রকাশিত ডেইলি মেলের একটি প্রতিবেদন দেখতে পায়, যাতে ওই একই ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে ক্যালিফোর্নিয়ায় জঙ্গলে আগুন লাগার ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয় এবং জানানো হয় যে আগুনের শিখা সমেত ঝোড়ো হাওয়ায় তৈরি হওয়া 'ফায়ারনাডো' থেকে বাঁচানোর জন্য হাজার হাজার মানুষকে ওখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ওই ছবিটির ক্যাপশনে লেখা হয় যে, ওই আগুন লাগা বাড়িটি ক্যালিফোর্নিয়ার কার্লসবাড অঞ্চলে অবস্থিত। খুব বেশি তাপমাত্রা, ঝোড়ো হাওয়া এবং শুকনো আবহাওয়া আগুন বাড়িয়ে তোলে এবং প্রায় ৫০০ একর জায়গায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে।
সিবিএস নিউজের গ্যালারিতেও আমরা একই ছবি দেখতে পাই এবং ছবিটিকে ২০১৪ সালের মে মাসে ক্যালিফোর্নিয়ায় আগুন লাগার ফলে একটি বাড়ি পুড়ে যাওয়ার ঘটনার ছবি বলে উল্লেখ করা হয়। ওই আগুন লাগার ঘটনার আরো অনেক ছবি এখানে দেখা যাবে।
তাছাড়া আন্তর্জাতিক স্টক ছবির আর্কাইভ গেট্টি ইমেজের ওয়েবসাইটেও এই একই ছবি দেখতে পাওয়া গেছে। ছবির সঙ্গে যে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে তাতে লেখা হয়েছে, "দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় ক্যালিফোর্নিয়ার কার্লসবাডে হাজার হাজার মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়। সান মার্কোস। সিএ- মে ১৪: ক্যালিফোর্নিয়ার সান মার্কোসে একটি বাড়ি দাবানলের আগুনে পুড়ে যায়। ঝোড়ো হাওয়া এবং শুকনো আবহাওয়া আগুন আরো বাড়িয়ে তোলে এবং প্রায় ৫০০ একর জায়গায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। চারপাশের অঞ্চলে আরও অন্তত চারটি জায়গা থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।"
ভাইরাল হওয়া ছবি ও গেট্টি ইমেজে থেকে পাওয়া ছবির তুলনা নীচে দেওয়ায় হল।
পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির পোস্টটি আসলে ক্যালিফোর্নিয়ার দাবানলের ছবি এবং বসিরহাটে সাম্প্রতিক আগুন লাগার ঘটনার সঙ্গে তার কোনও যোগসূত্র নেই।
Updated On: 2021-01-21T16:01:41+05:30
Claim Review :   পোস্ট দাবি করে ছবিটি তৃণমূল গুন্ডাদের দ্বারা বিজেপি নেতা নুর ইসলামের দোকান ও স্কুল পুড়িয়ে দেওয়ার ছবি
Claimed By :  BJP West Bengal
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story