ভোপালে করোনাতে মৃত সৎকারের সংবাদপত্রের ছাঁটাই ছবি বারাণসীর বলে ভাইরাল

বুম দেখে ১৭ এপ্রিল ২০২১ গণশক্তিতে প্রকাশিত ভোপালের ভদভদা বিশ্রাম ঘাটে মৃতদের দাহ করার ছাঁটাই ছবি বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।

মধ্যপ্রদেশের ভোপালে ভদভদা বিশ্রাম (bhadbhada) ঘাটে কোভিড মৃতদের দাহকাজের গণশক্তি সংবাদপত্রে প্রকাশিত ছবি সম্পাদনা করে উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে দাহকাজ বলে সোশাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকরভাবে শেয়ার করা হচ্ছে।

বুম দেখে ভাইরাল হওয়া গ্রাফিক পোস্টটি ১৭ এপ্রিল ২০২১ গণশক্তি সংবাদপত্রের প্রকাশিত হয়েছে। ভাইরাল পোস্টটিতে ছবির ক্যাপশন বাদ দেওয়ায় নেটিজেনরা একে উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর ছবি বলে ভুল করছেন।

১৮ এপ্রিল ২০২১ স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড ও পশ্চিমবঙ্গে ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৬৬, ১২০, ৩২ ও ৩৪ জনের। সারা দেশে কেভিড-১৯ এর নতুন স্ট্রেইনের উর্ধমুখী সংক্রমণের গ্রাফ ও তার জেরে প্রাণহানির প্রেক্ষিতে ছবিটি শেয়ার করা হচ্ছে।

ভাইরাল হওয়া ছবিটিতে সারি সারি জ্বলন্ত চিতার ছবি দেখা যায়। গ্রাফিক পোস্টে ওই ছবিটি ব্যবহার করে লেখা হয়েছে, "আমার মা চলে যাচ্ছে, ছবি তুলে রাখবে", 'সোনার' বারাণসীতে কোভিড-দাবানল।" ছবিটির নিচে লেখা হয়েছে, "উত্তরাখণ্ডে এখন কোভিডের 'কুম্ভ' চলছে। হরিদ্বারে কুম্ভ নিয়ন্ত্রিত করার কোনও নির্দেশ জারি করতে সাহস দেখায়নি রাজ্যের বিজেপি সরকার। বরং মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, 'গঙ্গার কৃপায় করোনা হবে না।' এখন পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর দাঁড়িয়েছে।"

আপনারা এখানে পোস্টটিকে দেখতে পাবেন। পোস্টটির আর্কাইভ দেখতে ক্লিক করুন এখানে

আরও পড়ুন: বিজেপি প্রার্থী অসীম বিশ্বাস জওয়ানদের সঙ্গে খাচ্ছেন? একটি তথ্য-যাচাই

তথ্য যাচাই

বুম যাচাই করে দেখে ভাইরাল ছবিটি ১৭ এপ্রিল ২০২১ সিপিআইএম মুখপত্র গণশক্তিতে প্রকাশিত হয়েছিল প্রথম পাতায়। ওই প্রতিবেদনে ছবিটিকে বারাণসী নয়, মধ্যপ্রদেশের ভোপালের ছবি বলেই বর্ণনা করা হয়েছে।

গণশক্তিতে ওই ছবির ক্যাপশন লেখা হয়েছিল, "শুধু মানুষ পুড়ছে। দৈনিক ভাস্করের প্রকাশিত ভোপালের ভদভদা বিশ্রাম ঘাটের এই ছবি আলোড়ন তুলেছে।"

বুম জ্বলন্ত চিতার এই ছবিটিকে রিভার্স সার্চ করে ১৬ ই এপ্রিল, ২০২১ প্রকাশিত দৈনিক ভাস্করের অনলাইন-এর এক প্রতিবেদনে খুঁজে পায়। ওই প্রতিবেদনের শিরোনাম লেখা হয়, জ্বলন্ত চিতা বলছে আসল সত্যি: ভোপালে প্রথমবার ১১২ জন মৃত সরকারি নথিতে শুধুমাত্র ৪। প্রথমবার এত সংক্রমিতের অন্তিম সৎকার।"

(হিন্দিতে মূল শিরোনাম: जलती चिताएं बता रहीं सच:भोपाल में पहली बार 112 मौतें, सरकारी रिकॉर्ड में सिर्फ 4, पहली बार इतने संक्रमितों का अंतिम संस्कार)

ছবিটির ক্যাপশন হিসাবে লেখা হয়, "এই ছবিটি ভোপালের ভদভদা বিশ্রাম ঘাটের, বৃহস্পতিবার এখানে একসাথে করোনায় সংক্রমিতদের ৪০ টিরও বেশি চিতা জ্বলতে দেখা গেছে।"

ছবিটি ১৬ ই এপ্রিল, ২০২১ দৈনিক ভাস্করের ভোপাল মুদ্রণ সংস্করণেও প্রকাশিত হলে তীব্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়। ফটোগ্রাফার সঞ্জীব গুপ্ত কোভিড মৃতদের দাহকাজের এই ছবিটি তোলেন।

গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদন অনুযায়ী অনুয়ায়ী মধ্যপ্রদেশের ভূপালে করোনায় মৃতের সংখ্যা নিয়ে সরকারের হিসেবের গরমিলের অভিযোগ উঠেছে। উত্তরপ্রদেশেরও বারাণসীতেও কোভিড-১৯ মৃত ও সরকারি রেকর্ডের গরমিল নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে গণমাধ্যমে

করোনায় ভোপালের সংকটজনক পরিস্থিতি নিয়ে সঞ্জীব গুপ্তর বক্তব্য নিচে দেওয়া দৈনিক ভাস্করের রিপোর্টে দেখা যাবে।

বুম ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে এরকম একটি কাটছাঁট করা ভাইরাল সংবাদপত্রের ক্লিপিং সংক্রান্ত ভুয়ো খবর খণ্ডন করে। আজকাল সংবাদপত্রের প্রকাশিত কৃষি আইন নিয়ে অর্থনীতিবিদ কৌশিক বসুর বক্তব্য ছড়িয়েছিল আরেক অর্থনীতিবিদ নবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে। পড়ুন বুমের সেই তথ্য-যাচাই এখানে

আরও পড়ুন: বিভ্রান্তিকর দাবিতে ছড়াল ছত্তীসগঢ়ে সেনার সঙ্গে অমিত শাহের আহারের ছবি

Updated On: 2021-04-18T19:12:54+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে করোনায় মৃতদের দাহকাজের জ্বলন্ত চিতা
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story