হাসপাতালে দিলীপ কুমারের শেষ মুহূর্তের দৃশ্য? ছড়াল পুরনো ভিডিও

বুম দেখে ভিডিওটি ২০১৩ সালের। সে সময় হৃদরোগের কারণে দিলীপ কুমারকে মুম্বইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে চিকিত্সারত অভিনেতা দিলীপ কুমার (Dilip Kumar) ও তাঁর স্ত্রী সায়রা বানুর (Saira Banu) ৮ বছর আগের একটি ভিডিওকে ভাইরাল করে দাবি করা হচ্ছে, এটি ৭ জুলাই, ২০২১-এ তাঁর অন্তিম সময়ের দৃশ্য।

কিংবদন্তী অভিনেতা দিলীপ কুমার ৭ জুলাই, ২০২১-এ মুম্বইয়ের পি ডি হিন্দুজা ন্যাশনাল হসপিটাল ও মেডিকেল রিসার্চ সেন্টারে ৯৮ বছর বয়সে পরলোক গমন করেনl তিনি প্রস্টেট-এর ক্যান্সারে ভুগছিলেন বলে জানানো হয়েছে।

ভারতের সর্বকালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসাবে গণ্য দিলীপ কুমার বলিউডের "ট্র্যাজেডির রাজা" বলেও পরিচিত ছিলেনl দেবদাস (১৯৫৫), নয়া দৌড় (১৯৫৭), মুঘলে আজম (১৯৬০), গঙ্গা-যমুনা (১৯৬১), ক্রান্তি (১৯৮১) ও কর্ম (১৯৮৬)-র মতো চলচ্চিত্রে তাঁর অনন্য ভূমিকার জন্য তিনি সুপরিচিত ছিলেন।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে: "হাসপাতালে দিলীপ কুমার ও তাঁর স্ত্রী সায়রা বানুর শেষ সময়ের দৃশ্য" l


এই ধরনের পোস্টগুলি দেখতে এখানে , এখানে এবং এখানে ক্লিক করুন।




আরও পড়ুন: মাস্ক পরা নিয়ে সরকারের পুরনো প্রচার ভিডিও বিভ্রান্তিকর দাবিতে ভাইরাল

তথ্য যাচাই

ভিডিও-র মূল ফ্রেমগুলি আলাদা করে নিয়ে বুম সেগুলি রিভার্স সার্চ করে দেখে, এনডিটিভিইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-এ ২০১৩ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এই একই ভিডিও-এর স্ক্রিনশট ব্যবহার করা হয়েছে।


ওই প্রতিবেদন অনুসারে দিলীপ কুমার যখন ২০১৩ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর মুম্বইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে বুকে ব্যথা ও অস্বস্তি নিয়ে ভর্তি হন, ছবিটি তখনকারl চিকিত্সকরা পরে জানিয়েছিলেন যে, অভিনেতা সে সময় হাল্কা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

ওই বছরেরই ২২ সেপ্টেম্বর দিলীপ কুমারের নিজস্ব টুইটার হ্যান্ডেল থেকেও ওই একই ভিডিও প্রকাশ করা হয়, যার ক্যাপশন ছিলঃ "আপনাদের সকলের প্রার্থনা ও ভালবাসার জন্য ধন্যবাদ ! এখন হাসপাতালে বিশ্রাম নিচ্ছি l ভিডিওটি গতকালের l"

এর পর ২০১৩-র ২৬ সেপ্টেম্বরেই তাঁর স্বাস্থ্যের উন্নতি হলে হাসপাতাল থেকে দিলীপ কুমারকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: কানাডায় তাপপ্রবাহে দাবানল বলে গণমাধ্যম দেখাল ২০০৭ সালের গ্রিসের ছবি

Claim :   ভিডিওর দাবি হাসপাতালে দিলীপ কুমারের শেষ মুহূর্তের দৃশ্য
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.