পাদ্রী থেকে কৃষক? তামিলনাড়়ুর পাদ্রীর ভাইরাল ছবিটি ভুয়ো

বুম দেখে তামিলনাড়ুর খ্রিস্টান যাজক জগত ক্যাস্পার রাজ-এর তিনটি ছবিই পুরনো এবং প্রেক্ষিত থেকে বিচ্ছিন্ন।

তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) খ্রিস্টান যাজক (Pastor) জগত ক্যাস্পার রাজ-এর তিনটি ছবির কোলাজ ভাইরাল করে ভুয়ো দাবি করা হয়েছে যে, তাঁকে দিল্লির কৃষক আন্দোলনকারীদের (Farmers Protest) জমায়েতে শামিল হতে দেখা গেছে, যেখানে তিনি প্রতিবাদী কিসানের ছদ্মবেশে হাজির ছিলেন।

কোলাজে ব্যবহৃত তিনটি ছবির দুটিতে জগত ক্যাস্পারকে ধর্মীয় সমাবেশে বক্তৃতা দিতে দেখা গেছে আর তৃতীয়টিতে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতেl তিনটি ছবির সঙ্গেই ভাইরাল করা ভুয়ো বিবরণীতে দাবি করা হয়েছে, ফাদার ক্যাস্পার নিজের সুবিধে মতো ধর্মীয় পরিচয় পাল্টেছেন এবং স্রেফ অর্থের জন্য কৃষকদের প্রতিবাদ আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন।
ফাদার ক্যাস্পার তামিল মাইয়ম নামে একটি অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা এবং বহুধর্মাবলম্বীদের সভায় নিয়মিত বক্তা।
ফেসবুক ও টুইটারে তাঁর ছবি ভাইরাল করে তামিল, ইংরাজি ও কন্নড় ভাষায় অপবাদ দেওয়া হয়েছে যে, এই পাদ্রি কংগ্রেস দলের কাছ থেকে টাকা নিয়ে আত্মপরিচয় গোপন করে কৃষক আন্দোলনে যোগ দিয়েছেনl
ফেসবুকে পোস্টটির আর্কাইভ বয়ান দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

এ'সংক্রান্ত টুইটটির আর্কাইভ বয়ান দেখুন এখানে
কন্নড় ভাষায় লেখা ক্যাপশনে লেখা— "এই লোকটি মনে হয় যোগেন্দ্র যাদবকেও পিছনে ফেলে দিয়েছেন l ওঁর নাম জগত গ্যাস্পার রাজ l উনি কংগ্রেসের নির্দেশে সাধু বনে যান এবং এখন প্রতিবাদী কিসান সেজে বসেছেন l সবাই তালি বাজান!"
তিনটি ছবির এই কোলাজ বুম-এর কাছেও পাঠানো হয়েছে সত্যতা যাচাই করার জন্য:

তথ্য যাচাই

বুম প্রতিটি ছবিই অনুসন্ধান করে দেখেছেl প্রথম ছবিটি ২০১৮ সালের, আর্পুথার যিশু টিভি-র একটি ধর্মীয় প্রচারসভার ভিডিও আপলোডl ক্যাপশনে লেখা-- এটি ২০১৮ সালের ৩০ এপ্রিল তামিল খ্রিস্টানদের উদ্দেশে ফাদার ক্যাস্পারের উপদেশ।

দ্বিতীয় ভিডিওটি ২০১৭ সালে আরা টিভি থেকে আপলোড করা:

সেখানে মঞ্চে একটি গণেশ মূর্তিও দেখা যাচ্ছে, যে বিষয়ে আমরা ফাদার ক্যাস্পারকে প্রশ্ন করলে তিনি জানান, "তখন আমি তামিলনাড়ুর সালেমে একটি সত্সঙ্গ সম্মেলনে ভাষণ দিচ্ছিলাম। এটি অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ একটি ধর্মসভা, যেখানে নানা ধর্মের সার নিয়ে আলোচনা হয়। অন্যান্য বক্তারা যখন সম্মেলনে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন, তখনও গণেশমূর্তিটি সেখানে রাখা ছিল।"
ফাদার ক্যাস্পার আরও বলেন, "আমি বিভিন্ন ধর্মের অনুসারীদের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি বাড়ানোর চেষ্টা করি। আমার বাবা ছিলেন হিন্দু এবং মা একজন খ্রিস্টান। যেহেতু আমি ধর্মীয় সহিষ্ণুতা প্রচার করি, তাই নানা ধর্মের মঞ্চ থেকেই আমাকে বক্তৃতার জন্য ডাকে।"
তৃতীয় ছবিটিতে ফাদার ক্যাস্পারকে সংবাদসংস্থা এএনআই-এর সঙ্গে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে।

খোঁজখবর করে আমরা দেখেছি, এই ভিডিওটি টাইমস অফ ইন্ডিয়া আপলোড করেছে ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে। তাতে লেখা হয়েছে, কন্যাকুমারীর এক মন্দিরের ভিতর দুজন পাদ্রীকে হেনস্থা করার প্রতিবাদে তামিল মাইয়া সংগঠনের তরফে ফাদার ক্যাস্পার আরএসএস এবং তার নিয়ন্ত্রিত অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনকে দোষারোপ করছেন।
Claim Review :   ভিডিও দেখায় পাদ্রী জগৎ কাস্পার রাজ ছদ্মবেশে কৃষক বিক্ষোভে অংগ্রহন করেছে
Claimed By :  Twitter & Facebook Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story