শিকল বাঁধা ভাইরাল ছবির বৃদ্ধ ব্যক্তি স্ট্যান স্বামী নন

২০২১ সালের মে মাসের ছবিটিতে উত্তরপ্রদেশের ইটাহ জেলার এক হাসপাতালে খুনের আসামি ৯২ বছরের বাবুরাম সিংহকে দেখা যাচ্ছে।

উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh), ৯২ বছরের এক সাজাপ্রাপ্ত খুনের আসামির ছবি এই মিথ্যে দাবি সমেত ভাইরাল হয়েছে যে, উনি হলেন সদ্যপ্রয়াত আদিবাসী সমাজকর্মী স্ট্যান স্বামী (Father Stan Swamy)। যিনি ভীমা কোরেগাঁও (Bhima Koregaon) মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন এবং সোমবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের মেডিক্যাল ডিরেক্টর ডা. ইয়ান ডিসুজা বম্বে হাইকোর্টকে জানান যে, স্বামী (৮৪) ২ জুলাই ২০২১ ভোরে হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাঁকে ভেন্টিলেটারে দেওয়া হয়, কিন্ত বেলা ১.২৪-এ তিনি মারা যান।

তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায়, স্বামীর আইনজীবীরা জরুরি শুনানির আবেদন জানান। তাতে সাড়া দিয়ে উচ্চ আদালত আজ এক বিশেষ শুনানির ব্যবস্থা করেছিলেন। কিন্তু শুনানি শুরু হওয়ার এক ঘন্টা আগেই, ৮৪ বছর বয়সের ওই ধর্মযাজকের মৃত্যু হয়।

ছবিতে এক বয়স্ক ব্যক্তিকে একটি হাসপাতালের খাটে বসে থাকতে দেথা যাচ্ছে। তাঁর নাকে রয়েছে অক্সিজেন মাস্ক আর পায়ে লাগানো চেন, বাঁধা আছে খাটের রেলিংয়ের সঙ্গে। ছবিটি এই বলে শেয়ার করা হচ্ছে যে, উনি হলেন স্ট্যান স্বামী। ক্যাপশনে লেখা আছে, "হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের ডা. ডিসুজা বম্বে হাই কোর্টকে জানান যে, ফাদার স্ট্যান স্বামী আজ বেলা ১.৩০শে মারা যান।"


দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।


দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন; আর্কাইভের জন্য এখানে

ছবিটিতে সত্যিই স্ট্যান স্বামীকে দেখা যাচ্ছে কিনা, তা জানতে চেয়ে ভাইরাল ছবিটি বুমের হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইন নম্বরেও (৭৭০০৯০৬১১১) আসে।

আরও পড়ুন: হাইতিতে বিমান ভেঙে পড়া বলে গণমাধ্যম দেখাল ২০১৮ সালের হন্ডুরাসের ছবি

তথ্য যাচাই

বুম দেখে, ভাইরাল ছবিটি হল খুনের দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বাবুরাম সিংহের (৯২)। মে ২০২১-এ, শ্বাস কষ্ট দেখা দেওয়ায় তাঁকে ইটাহ জেলার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা চলাকালে, তাঁর পা চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়।

গুগুলে রিভার্স ইমেজ সার্চ করলে, কয়েকটি সংবাদ প্রতিবেদন বেরিয়ে আসে, যাতে বাবুরাম সিংহ ও উত্তরপ্রদেশের ইটাহ'তে তাঁর হাসপাতালে থাকার ব্যাপারে লেখা হয়।


১৩ মে, ২০২১-এ এনডিটিভি-র রিপোর্টে বলা হয় যে, ছবিটি সোশাল মিডিয়ায় আপলোড করা হলে, উত্তরপ্রদেশের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেল (জেল) আনন্দ কুমার, জেলের ওয়ার্ডেন অশোক যাদবকে সাসপেন্ড করেন ও যাদবের উর্দ্ধতন অফিসারের বক্তব্য তলব করেন।

একটি খুনের মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হলে, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বাবুরাম সিংহকে ইটাহ জেলে আনা হয়। ১৪ মে ২০২১, টাইমস অফ ইন্ডিয়া তাদের রিপোর্টে বলে, উনি হলেন ইটাহ জেলার কুল্লা হাবিবপুর গ্রামের বাসিন্দা।

আরও পড়ুন: ফ্রান্সে মন্দির গড়তে বিল? ভুয়ো উক্তি সহ ছড়াল রাষ্ট্রপতি মাকরঁর ছবি

Claim Review :   ফাদার স্ট্যান স্বামীকে হাসপাতালে চেন দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছিল
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story