কৃষক আন্দোলনের পক্ষে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী? ছবিগুলি সম্পর্কহীন

বুম দেখে ছবি দু’টি পুরনো এবং ভারতে চলা কৃষক আন্দোলনের সঙ্গে সেগুলির কোনও সম্পর্ক নেই।

মাথায় কালো স্কার্ফ জড়ানো নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী (New Zealand Prime Minister) জেসিন্ডা আর্ডের্ন (Jacinda Ardern) ও কালো রঙ করা এয়ার নিউজিল্যান্ডের একটি বিমানের ছবির একটি সেট শেয়ার করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে মিথ্যে দাবি করা হচ্ছে যে, কৃষকদের প্রতিবাদ (Farmers' Protest) সমর্থন করতে আর্ডের্ন নিজে কালো স্কার্ফ পরেন ও বিমানটিকেও কালো রঙ করতে বলেন।

কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে কৃষকদের আন্দোলনের ছ'মাস পূর্তি উপলক্ষে, ২৬ মে ২০২১ কৃষকরা 'কালা দিবস' পালন করেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে শেয়ার করা হচ্ছে ছবি দুটি। (এখানে পড়ুন)।

শেয়ার-করা ছবিগুলির সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনে বলা হচ্ছে, "কালা দিবসে ভারতে কৃষকদের প্রতি সমর্থন জানাতে নিজে কালো পোশাক পরে ও একটি সরকারি বিমানকে কালো রঙ করিয়ে, নিউজিল্যান্ডের পিএম বিশ্বকে আশ্চর্য করে দিয়েছেন।"


দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন; আর্কাইভের জন্য এখানে

(হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন - न्यूजीलैंड की pm ने भारत के किसानो के पक्ष मे काला सूट पहनकर व सरकार जहाज को काला रंग करवाकर ब्लैक डे का समर्थन कर दुनिया को चौका दिया)

ফেসবুকে ভাইরাল

ওই ক্যাপশন দিয়ে ফেসবুকে সার্চ করলে দেখা যায়, একই মিথ্যে দাবি সমেত ছবি সেখানেও শেয়ার করা হচ্ছে।


ছবিগুলির সত্যতা যাচাই করার জন্য বুমের হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইনেও (৭৭০০৯০৬১১১)আসে সেগুলি।


আরও পড়ুন: অযোধ্যায় নির্মীয়মান রাম মন্দির বলে ছড়াল কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরের ছবি

তথ্য যাচাই

বুম দেখে ছবিগুলি সম্পর্কহীন। এবং নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডের্ন ভারতে বর্তমান কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন বলে যে দাবিটি করা হচ্ছে, সেটি মিথ্যে।

জেসিন্ডা আর্ডের্নের কালো স্কার্ফ-পরা ছবিটি তোলা হয়, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে একটি মসজিদে গুলি চালনার ঘটনার পরে। ওই ঘটনায় মুসলমান সম্প্রদায়ের যে সব মানুষ মারা যান, তাঁদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা ও সমর্থন জানাতে তাঁদের সঙ্গে দেখা করেন উনি।

মার্চ ২০১৯-এ, ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের এক শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্যবাদী, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে একটি মসজিদে গুলি চালনার দৃশ্য লাইভ সম্প্রচার করেন। ওই আক্রমণে ৫১ জন মারা যান। (এখানে পড়ুন)।

গেট্টি ইমেজেস-এও আমরা একই ছবি দেখতে পাই। সেটির বিবরণে বলা হয়, "২২ মার্চ, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদের বাইরে, হ্যাগলি পার্কে শুক্রবারের ইসলামীয় প্রার্থনার পর, নিহত মুসলমানদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানাতে, মাথায় স্কার্ফ পরে মুসলমান সম্প্রদায়ের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডের্ন।"


দেখার জন্য এখানে ক্নিক করুন।

দ্বিতীয় ছবিটিতে এয়ার নিউজিল্যান্ডের একটি কালো বিমান দেখা যাচ্ছে। ওই ছবিটিও পুরনো এবং ভারতের কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে সেটিকে কালো রঙ করা হয়, তা নয়। ডিসেম্বর ২০১০-এ, এয়ার নিউজিল্যান্ড তাদের অভ্যন্তরীণ বিমান চলাচল ব্যবস্থায় প্রথম জেট বিমানটিতে ওই রকম রঙ করে।

"নিউজিল্যান্ডে রাগবি খেলার জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে, আমাদের প্রথম এ৩২০ বিমান জানুয়ারিতে কালো পোশাকের রঙে সজ্জিত হয়ে আসবে। তার পিছনের রঙ হবে রূপলী ফার্নের আর ল্যাজে আকা থাকবে করু," এয়ার নিউজিল্যান্ডের সিইও রব ফাইফে ২০১০-এ বলেছিলেন।

৮ ডিসেম্বর ২০১০-এ এয়ার নিউজিল্যান্ডের আপলোড-করা ইউটিউব ভিডিওর সঙ্গে ভাইরাল ছবিটি মিলে যায়।

তাছাড়া, জেসিন্ডা আর্ডের্ন ভারতে কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছেন, সেই মর্মে কোনও বিশ্বাসযোগ্য সংবাদ প্রতিবেদন আমরা দেখতে পাইনি।

আর পড়ুন: কলকাতার নবসজ্জার ইসলামিয়া হাসপাতাল নিয়ে ভুয়ো সাম্প্রদায়িক দাবি ভাইরাল

Claim Review :   নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডের্ন কালো পোশাক পরেছেন ও নিউজিল্যান্ডের বিমানকে কালো রঙ করেছেন
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story