পাকিস্তানে এক ব্যক্তির বিদ্যুৎচুরির স্বীকারক্তি ছড়াল ভারতের ঘটনা বলে

বুম দেখে ভাইরাল ভিডিওটি ২০২০ সালের ২৭ জুলাই করাচি শহরের একটি ঘটনার দৃশ্য, ভারতের নয়।

একটি ভিডিওতে এক পাকিস্তানিকে (Pakistani) বিদ্যুৎ চুরির কথা কবুল করতে দেখা যাচ্ছে। সেই সঙ্গে, যাঁরা এ কাজে তাঁকে বাধা দেবে, তাঁদের খুন করার হুমকিও দিচ্ছেন তিনি। কিন্তু ভিডিওটি এই মিথ্যে দাবি সমেত শেয়ার করা হচ্ছে যে, ওই ব্যক্তি হলেন ভারতের (India) এক মুসলমান (Muslim)।

বুম দেখে, ভিডিওটি, ২৭ জুলাই, ২০২০ তে, করাচির এক ঘটনার ওপর তোলা। সেটি ভারতের কোনও ঘটনা নয়।

ভিডিওটিতে ওই লোকটি মুফ্তি আত্তা-উর রহমান স্বাতী বলে নিজের পরিচয় দেন। এবং বিদ্যুতের তারের সঙ্গে হুক লাগিয়ে, বিদ্যুৎ চুরি করার কথা উনি স্বীকারও করেন। কিন্তু সেই সঙ্গে হুমকি দেন যে, কেউ যদি হুকটি খোলার চেষ্টা করে, তাহলে নয় তিনি আত্মহত্যা করবেন আর নয়তো অন্যদের মেরে ফেলবেন।

ভিডিওটি সোশাল মিডিয়ায় এই ইঙ্গিত সমেত ভাইরাল হয়েছে যে, তালিবান আফগানিস্তান দখল করার ফলে, ভারতের মুসলমানরা আইন ভাঙ্গার সাহস পাচ্ছেন।

ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "দিল্লিবাসীদের জন্য বিশেষ ভিডিও। শুনুন ভিডিওটিতে লোকটি কী বলছে। বিদ্যুৎ চুরি করব। মানবো না। মরবো নয় মারবো। এই তালিবান তো দেশের ভেতরই তৈরি হচ্ছে।"

(হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন: दिल्ली वालों के लिए विशेष वीडियो - सुनिये वीडियो में शख्स क्या बोल रहा है। बिजली चोरी करूंगा ! नहीं मानूंगा। मरूंगा या मारूंगा। ये तालिबान तो देश के भीतर ही पैदा हो रहा है")

টুইটটির আর্কাইভ এখানে দেখা যাবে।

টুইটটির আর্কাইভ এখানে দেখা যাবে।

টুইটটির আর্কাইভ এখানে দেখা যাবে।

ওই একই মিথ্যে দাবি সমেত ভিডিওটি ফেসবুকেও একাধিকবার শেয়ার করা হয়েছে।


আরও পড়ুন: বৈঠকের সময় বাইডেন ঘুমিয়ে পড়েন দাবিতে ছড়াল ছাঁটাই ভিডিও

তথ্য যাচাই

ইনভিড সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে আমরা ভিডিওটির প্রধান ফ্রেমগুলি আলাদা করে ফেলি। এবং ইয়ানডেক্স-এর সাহায্যে সেগুলির রিভার্স ইমেজ সার্চ করি আমরা। তার ফলে, ২৭ জুলাই, ২০২০ তে, পাকিস্তানের করাচি শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা কে-ইলেক্ট্রিক-এর এই টুইটটি দেখতে পাই।

সেটি সম্পর্কে নিজের প্রতিক্রিয়া জানানোর সময়, এক টুইটার ব্যবহারকারী ওই ঘটনারই, অন্য দিক থেকে তোলা, আরও বড় একটি ভিডিও পোস্ট করেন। ওই ভিডিওটির বিবরণে বলা হয়, কে-ইলেক্ট্রিক ওই ব্যক্তিকে ১.৭ মিলিয়ন (১৭ লক্ষ) পাকিস্তানি টাকার একটি বিল ধরায়।

দু'টি ভিডিও তুলনা করে দেখলে বোঝা যায় যে, বড় ভিডিওটি স্বাতীর ফোনে তোলা।

ঘটনাটি যে করাচিতে ঘটেছে, সে ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পর, আমরা উর্দু কি-ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করি। তার ফলে, ৩১ জুলাই, ২০২০তে, 'উর্দুপয়েন্ট'-এ প্রকাশিত প্রতিবেদন আমাদের নজরে আসে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, মুফ্তি আত্তা-উর রহমান স্বাতী নামের যে ব্যক্তিকে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ হল তিনি হুক লাগিয়ে বিদ্যুৎ চুরি করছিলেন।

অধিকারিকরা তাঁকে চেপে ধরলে, উনি হুমকি দিয়ে বলেন যে, কেউ যদি বিদ্যুতের তার থেকে হুক খুলে নেওয়ার চেষ্টা করে, তাহলে উনি মরবেন নয়তো মারবেন।

এআরওয়াই নিউজ-এও আমরা ওই ঘটনাটি সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দেখতে পাই।

আরও পড়ুন: পঞ্জশিরে পাক বাহিনীর হামলা বলে রিপাবলিক টিভি দেখাল ভিডিও গেমের দৃশ্য

Updated On: 2021-09-07T13:14:35+05:30
Claim Review :   ভারতে বিদ্যুৎচুরির কথা স্বীকার করা এক মুসলিম ব্যক্তির খুন করার হুমকি
Claimed By :  Facebook and Twitter Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story