শ্রীলঙ্কার বৌদ্ধ স্মারকের ভিডিও ছড়িয়ে দাবি অশোক কাননে সীতার বসার পাথর

বুম যাচাই করে দেখে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি আসলে শ্রীলঙ্কা থেকে আনা পবিত্র বৌদ্ধ স্মারকের দৃশ্য।

কুশীনগর আন্তর্জাতিক (Kushinagar) বিমানবন্দরে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) শ্রীলঙ্কা থেকে আসা একটি বৌদ্ধ স্মারক (Buddha Relics)গ্রহণ করার ভিডিও শেয়ার করে ভুয়ো প্রচার চলছে যে, এটি অশোক কাননের সেই পাথর, যার উপর নাকি সীতা (Sita) বসতেন!

রামায়ণ মহাকাব্য অনুসারে ত্রেতা যুগে রাবণ-শাসিত লঙ্কায় এই অশোক কানন নামের প্রশস্ত উদ্যানেই নাকি অপহৃত সীতাকে বন্দি করে রাখা হয়েছিল।

ভিডিওতে দেখা যায়, মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ এবং কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া শ্রীলঙ্কা থেকে আগত বৌদ্ধ শ্রমণদের একটি প্রতিনিধিদলকে বিমানবন্দরে ওই বৌদ্ধ স্মারক সহ স্বাগত জানাচ্ছেন এবং তার পর বাদ্যযন্ত্র সহযোগে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

ভিডিওটি টুইট করে জনৈক আশিস জাগ্গি ক্যাপশন দিয়েছেন, "অশোক কাননে যে পাথরটার ওপরে সীতামাতা বসতেন, শ্রীলঙ্কা থেকে আজ সেটাই অযোধ্যায় নিয়ে আসা হলো। বলো জয় সিয়ারাম! শুভ দীপাবলি!"


টুইটটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে

এই টুইটটি উদ্ধৃত করেই সাংবাদিক সাগরিকা ঘোষ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী সহ অন্যান্য মন্ত্রীদের সমালোচনা করে টুইট করেন— "২০২২-এর রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে এই পাথরের আবির্ভাব নিশ্চিতভাবেই ভাগ্যপ্রেরিত। কী ভালই না হতো, যদি এই একই মন্ত্রীরা কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর জনসাধারণকে স্বাস্থ্য-পরিসেবা দিতে এভাবেই লাইন দিতেন!"

টুইটটির আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম তার হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইন নম্বরেও (৭৭০০৯০৬১১১) এই ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করার অনুরোধ পেয়েছে।


(মূল হিন্দতে বার্তা: अशोक वाटिका में जिस शिला पर सीतामाता बैठती थीं वह शिला आज श्री लंका एयर लाइंस द्वारा अयोधया में पहुँचा दी गयी. जय् सियाराम)

আরও পড়ুন: বিরাট কোহালির কন্যাকে ধর্ষণের হুমকি ভারত থেকে, পাকিস্তানি ব্যক্তি নয়

তথ্য যাচাই

বুম দেখেছে, ২০২১ সালের ২০ অক্টোবর উত্তরপ্রদেশের কুশীনগর বিমানবন্দরে একটি পবিত্র বৌদ্ধ স্মারকের আগমনের দৃশ্যই ভিডিওতে বিধৃত হয়েছে। স্মারকটি নিয়ে আসেন বৌদ্ধ শ্রমণদের এক প্রতিনিধিদল।

ভাইরাল হওয়া টুইটের জবাবেই আমরা খেয়াল করি, এই পাথরটিকে অশোক কাননে সীতার উপবেশনের পাথর রূপে শনাক্ত না করে একটি বৌদ্ধ স্মারক রূপেই গণ্য করা হয়েছে।

২০২১ সালের ২০ অক্টোবর টাইমস অফ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে লেখা হয়, বিমানবন্দরে শ্রীলঙ্কার ১২৩ জন প্রতিনিধির দলের আনা বৌদ্ধ স্মারকটি গ্রহণ করেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

ওই প্রতিবেদনে যে সব ছবি ব্যবহার হয় এবং ঘটনার পরম্পরা যে ভাবে দেখানো হয়, ভাইরাল ভিডিওর সঙ্গে তা হুবহু মিলে যায়।


ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে, স্মারকটি আদৌ কোনও পাথর নয়l টাইমস অফ ইন্ডিয়ার সাংবাদিক সৌরভ সিনহা আগেই এটি টুইট করে লিখেছিলেন—"কলম্বো থেকে এক বিশেষ শ্রীলঙ্কা বিমানে কিছু পবিত্র স্মারক এসে পৌঁছেছে।"

কেন্দ্রীয় পর্যটন ও সংস্কৃতি মন্ত্রী জি কিসান রেড্ডিও একটি টুইটে বিমানবন্দরের ওই অনুষ্ঠানটির ছবি সহ বর্ণনা দেন, "অশ্বিন পূর্ণিমার অবসরে শ্রীলঙ্কা থেকে আসা পবিত্র বৌদ্ধ স্মারকের যথাবিহিত সম্বর্ধনা করা হয়। একই সঙ্গে বৌদ্ধ শ্রমণদেরও স্বাগত জানানো হয়। আজ উত্তরপ্রদেশের কুশীনগরে 'অভিধম্ম দিবস' উপলক্ষে এই বৌদ্ধ স্মারক প্রদর্শিত হবে।"

এর আগের দিনই অর্থাত্ ১৯ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকও একটি টুইটে ক্যাপশন দিয়েছিল, "অনুষ্ঠানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো শ্রীলঙ্কার ওয়াস্কাদুয়া শ্রীসুবুদ্ধি রাজবিহার মন্দির থেকে মন্দিরের মহানায়কের নিয়ে আসা বৌদ্ধ স্মারকের প্রদর্শন।"

২০ অক্টোবর, ২০২১-এই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কুশীনগর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্বোধন করেনl ওই দিন কুশীনগর-মুখী ওই উদ্বোধনী উড়ানে সওয়ার হয়েছিলেন শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ ধর্মের চারটি শাখা —আসগিরিয়া, অমরাপুরা, রামান্যা ও মালওয়াট্টা-র অনুনায়ক বা উপপ্রধানরা, সেই সঙ্গে ছিলেন ক্যাবিনেট মন্ত্রী নমল রাজাপক্ষের নেতৃত্বে সে দেশের ৫ জন মন্ত্রী এবং বৌদ্ধ স্মারকবাহী ১২ জনের প্রতিনিধিদল, জানায় টাইমস অফ ইন্ডিয়া

টাইমস অফ ইন্ডিয়া দাবি করেছে, শ্রীলঙ্কার এক প্রতিনিধিদল গত ২৯ অক্টোবর অযোধ্যা সফর করে মহাকাব্যে উল্লেখিত অশোক কাননের একটি পাথর রামজন্মভূমি মন্দির নির্মাণের জন্য তুলে দেন। কিন্তু ভাইরাল ভিডিওতে দেখানো স্মারকটি বৌদ্ধ স্মারক, যার সঙ্গে অশোক বাটিকার কোনও সম্পর্ক নেই।

আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে এক অপরাধীকে হত্যার দৃশ্য ছড়াল ত্রিপুরায় হিংসার ঘটনা বলে

Updated On: 2021-11-08T11:10:23+05:30
Claim Review :   অশোক কাননে সীতার বসার পাথর শ্রীলঙ্কা থেকে উত্তর প্রদেশে আনা হল
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story