না, নেপালকে হিন্দু-রাষ্ট্র ঘোষণা করা হয়নি

বুম যাচাই করে দেখে নেপালকে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণা করা হয়নি, সংবিধান অনুযায়ী এখনও ধর্ম নিরপেক্ষ-গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রই রয়েছে।

নেপাল (Nepal)-কে হিন্দু রাষ্ট্র (Hindu Rastra) ঘোষণা করা হয়েছে এমন ভুয়ো দাবিতে বিভ্রিন্ত পুরনো কিছু ছবি সোশাল মিডিয়াযতে ভাইরাল হয়েছে। সোশাল মিডিয়া ভাইরাল হওয়া পোস্টটিতে দাবি করা হয়েছে নেপালকে হিন্দুরাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

নেপালে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক অচলাবস্থা চলছে। বিরোধী জোট ও ভারপ্তাপ্ত প্রধানমন্ত্রী তাঁর সংখ্যগরিষ্ঠতা প্রমাণে ব্যর্থ হলে ২২ মে রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারি নেপালের সংসদ ভেঙে দেন। ১২ ও ১৯ নভেম্বর নতুন করে ভোটগ্রহণ হতে চলেছে নেপালে। রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারি গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সংসদ ভেঙে দেন কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আবার পদ ফিরে পান প্রধামন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি

২০০৭ সালে অন্তর্বর্তীকালীন সংবিধান অনুসারে নেপাল কে ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ২০১৫ সালে নতুন সংবিধান প্রণয়ন করে নেপাল-কে ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ২০১৫ সালে রাষ্ট্রীয় প্রজাতন্ত্র দলের নেপালের প্রধান কমল থাপা নেপাল কে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণা করার আর্জি জানালে নেপালের গণপরিষদ তা খারিজ করে দেয়। ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে নেপালের ৮১.৪% জনসংখ্যা হিন্দু। ২০২০ সালে নেপাল কে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণার দাবিতে সেখানকার বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ হতে দেখা যায়।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া একটি ছবিটিতে এক প্রতিবাদী মহিলাকে দেখা যায়। অন্য ছবিতে দেখা যায় মাস্ক পরে পতাকা নিয়ে জনতার বিক্ষোভের ছবি।

সোশাল মিডিয়াতে ভাইরাল পোস্টটিতে দুটি ছবিসহ ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, " আজ নেপাল কে হিন্দু রাষ্ট্র ঘোষণা করা হয়েছে। পৃথিবীর বুকে এই প্রথম হিন্দুরাষ্ট্র। জয় শ্রীরাম"


পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম দেখে একই ক্যাপশন সহ ছবিদুটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।


আরও পড়ুন: সবজি ও মদ বিক্রিতে লকডাউন বিধি বৈষম্য মিথ্যে দাবিতে ছড়াল পুরনো ছবি

তথ্য যাচাই

বুম যাচাই করে দেখে, নেপাল এখনও ধর্মনিরপেক্ষ এবং গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র। হিন্দুরাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করার দাবিটি অসত্য।

বুম নেপালের আইন-কমিশনের ওয়েবসাইটে দেশটির সংবিধান খুঁজে দেখে। সেখানে স্পষ্টতই ধর্মনিরপেক্ষ কথাটির উল্লেখ রয়েছে। নেপাল রাষ্ট্রীয় প্রজাতন্ত্র দলের প্রধান কমল থাপা নেপাল-কে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণা করার আর্জি জানালে তা গণপরিষদে খারিজ করে দেওয়া হয় ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। ২০১৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর প্রণয়ণ করা সংবিধানটি দেখা যাবে কনস্টিটিউট প্রজেক্ট ওয়েবসাইটেও। এই ওয়েবসাইটিতে দেশ বিদেশের নানা দেশের সংবিধানের ব্যাপারে তুলনামূলক নিবন্ধ রয়েছে।


পুরনো ছবি

বুম রিভার্স সার্চ করে ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ প্রকাশিত হাফপোস্টের একটি প্রতিবেদনে ছবিটি দেখতে পায়। ওই প্রতিবেদনে ছবিটিকে অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের সৌজন্যে তোলা ছবি বলে দাবি করা হয়েছে।

এই সূত্র ধরে বুম ছবিটিকে অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসে-র (এপি) ছবির গ্যালারিতে খুঁজে পেয়েছে। ওই ছবির ক্যাপশন হিসেবে লেখা হয়, "২২ সেপ্টেম্বর ২০১৫, মঙ্গলবার ভারতের নতুন দিল্লিতে এক নেপালি মহিলা স্লোগান দিচ্ছেন নেপাল সরকারের বিরুদ্ধে যেন হিন্দু রাষ্ট্র হিসেবে ফিরেয়ে আনা হয়। নেপাল বলে ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করা নতুন সংবিধান-এর বিরুদ্ধে প্রচতিবাদ বিদ্বেষের। কয়েক ঘন্টার মধ্যেই পুলিশ প্রকাশ্যে জনতার উপর গুলি চালানোয়৩ জন আহত হয় ওই হিমালয়ের পূর্বের দেশে।"

এপি-এর পক্ষে ছবিটি তোলেন চিত্রসাংবাদিক সেরিং তোপগায়েল।


মাস্ক পরে প্রতিবাদের ছবিটি একাধিক ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের। নেপাল সময়গুডমর্নিং নিউজ প্রভৃতি একাধিক ওয়েব পোর্টালে দেখা যায়।

ওই সময় প্রকাশিত এবিপি নিউজে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী নেপাল কে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণা এবং হিন্দু রাজতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবিতে সে সময় দেশজুড়ে প্রতিবাদ বিক্ষোভ শুরু হয়।


২০১৫ সালে নতুন সংবিধান প্রণয়ন করে নেপাল-কে ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ২০১৫ সালে ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে নেপালের ৮১.৪% জনসংখ্যা হিন্দু। ২০২০ সালে নেপাল কে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণার দাবিতে সেখানকার বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ হতে দেখা যায়।

আরও পড়ুন: ২০২০'র কায়রোর তেলের পাইপলাইনে অগ্নিকাণ্ড ছড়াল ইজরায়েলে বিস্ফোরণ বলে

Updated On: 2021-05-23T21:36:52+05:30
Claim Review :   নেপালকে হিন্দুরাষ্ট্র ঘোষণা করা হল
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story