জখম প্রতিবাদী কৃষক মিথ্যে দাবিতে ছড়াল আহত গোরক্ষকের ছবি

বুম দেখে হরিয়ানার ওই গোরক্ষক গরুপাচারের সময় এক গাড়িকে বাধা দিতে গেলে আহত হয়।

এক ব্যক্তির মাথায় সেলাইয়ের মর্মান্তিক ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ক্যাপশনে দাবি করা হয়েছে যে, ছবিটি ২৮ অগস্ট হরিয়ানায় (Haryana) পুলিশি লাঠিচার্জে আহত এক ব্যক্তির।

বুম অনুসন্ধান করে দেখে যে, ছবিটি হরিয়ানার একটি গোরক্ষক দলের সদস্য এক তরুণের। ২০২১ সালের ২৮ আগস্ট কারনালে কৃষকদের উপর হরিয়ানা পুলিশ যে লাঠিচার্জ করে, তার সঙ্গে এই ছবিটির কোনও সম্পর্ক নেই।

২৮ আগস্ট হরিয়ানা পুলিশ কারনালের কাছে প্রতিবাদরত একদল কৃষকের উপর লাঠিচার্জ করে। কৃষকরা আপত্তিকর তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন অনুসারে, মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরের ভারতীয় জনতা পার্টির রাজ্য মিটিংয়ের আগে বিভিন্ন কৃষক ইউনিয়নের সদস্যরা ন্যাশনাল হাইওয়ে ৪৪-এর উপর বাস্তারা টোল প্লাজার উপর জড়ো হন। ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয় যে, ওই অঞ্চলে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। এই ধারা অনুসারে পাঁচ জন বা তার বেশি লোক এক জায়গায় জমায়েত হওয়া নিষিদ্ধ।

ট্রিবিউনের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায় যে, প্রতিবাদী কৃষকদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য পুলিশ লাঠিচার্জ করলে প্রায় ১০ জন কৃষক আহত হয়।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ওই আহত যুবকের ছবি ভাইরাল হয়েছে।

কংগ্রেস নেতা ইমরান প্রতাপগড়ি তাঁর অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে এই ছবিটি শেয়ার করেছেন। সঙ্গে হিন্দিতে যে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে তার অনুবাদ, "এটি এই দেশের এক কৃষকের মাথা। নরেন্দ্র মোদীজির লাঠির কারণেই আজ তাঁর মাথায় এই সেলাইগুলো পড়েছে।"

(হিন্দিতে লেখা মূল ক্যাপশনঃ ये सर देश के एक किसान का है और इस फटे सर पर लगे टॉंकों की वजह नरेंद्र मोदी जी की लाठियॉं हैं)

বুম ইমরান প্রতাপগড়ির করা টুইটের স্ক্রিনশট এখানে ব্যবহার করেছে কিন্তু ছবিটি অস্বস্তিকর বলে ঝাপসা করে দেওয়া হয়েছে।

ইমরান অবশ্য পরে টুইটটি মুছে দেন।

এই একই ছবি বিভিন্ন টুইটার হ্যান্ডেল এবং ফেসবুক পেজ থেকে শেয়ার করা হয়েছে। টুইটগুলি এখানে, এখানে এবং এখানে দেখতে পাবেন। ফেসবুক পোস্ট দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

আরও পড়ুন: হরিয়ানায় কৃষকদের ওপর পুলিশি তৎপরতা দাবিতে ভাইরাল শ্রীনগরের পুরনো ছবি

তথ্য যাচাই

বুম ইমরান প্রতাপগড়ির মুছে দেওয়া টুইটের একটি রিপ্লাইয়ের সন্ধান পায়। তাতে বলা হয়েছে যে, ছবিটি আসলে হরিয়ানার গুরগাঁওয়ের একটি ঘটনার ছবি।

ওই টুইট অনুসারে ভাইরাল হওয়া ছবিটি বজরং দলের এক গোরক্ষকের। বজরং দল বিশ্ব হিন্দু পরিষদের (ভিএইচপি)একটি শাখা সংগঠন। আরও চার জনের সঙ্গে ওই ব্যক্তি একটি গোরু পাচারকারী গাড়ি তাড়া করতে গিয়ে আহত হন।

ওই টুইটের সূত্র ধরে বুম কিওয়ার্ড সার্চ করে এবং ২৫ অগস্টের কিছু সংবাদ প্রতিবেদন দেখতে পায়। ওই প্রতিবেদনগুলি থেকে জানা যায় গুরগাঁওয়ের উল্লাওয়াস নামক একটি গ্রামে ২৫ অগস্ট এই ঘটনাটি ঘটে।

ট্রিবিউনে ২৫ অগস্ট প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায় যে, গোরু পাচারকারীদের একটি গাড়ি তাড়া করার সময় তাঁদের গাড়িটি উলটে যায় এবং ৫ জন গোরক্ষক এই দুর্ঘটনায় আহত হন। ওই প্রতিবেদন থেকে আরও জানা যায় যে, পাচারকারীরা তাদের পিকআপ ভ্যান থেকে একটি গরু গোরক্ষকদের গাড়ির সামনে ফেলে দেয়।

বুম ফেসবুকে আর একটি কিওয়ার্ড সার্চ করে এবং দেখে যে, গোরক্ষকদের পেজ থেকে ২৫ অগস্টের ঘটনাটি সম্পর্কে বিশদে জানিয়ে অনেকগুলি পোস্ট করা হয়েছে। আমরা দেখতে পাই Gauputr Bamlehari নামে একটি ফেসবুক পেজ থেকেও ভাইরাল হওয়া ছবিটি দিয়ে একটি পোস্ট শেয়ার করা হয়েছে।

এই পোস্টের সূত্র ধরে বুম বজরং দলের মানেসর ইউনিটের প্রধান সোনুর সঙ্গে যোগাযোগ করে।

সোনু বুমকে জানান যে, ভাইরাল হওয়া ছবিটি ২৫ অগস্টের ঘটনার। ছবিতে যাকে দেখা যাচ্ছে, তিনি তাঁকে টিংকু নামে এক গোরক্ষক বলে শনাক্ত করে। সনু বলেন, " আমরা যখন তাড়া করছিলাম, তখন পাচারকারীরা আমাদের গাড়ির সামনে একটি গরু ছুঁড়ে ফেলে দেয়। তাতে টিংকু এবং আমাদের দলের আরও চার জন আহত হয়।"

সোনু আরও জানান যে, ২৫ অগস্ট রাত্রে সোনুই এই ভাইরাল হওয়া ছবিটি তোলেন। তিনি আমাদের আরও টিংকুর ছবি দেখান এবং সেই সঙ্গে ভাইরাল হওয়া ছবিটির ফাইল ডিটেল এবং ঘটনাটির এফআইআরের কপিও দেখান।


এফআইআরের কপি

ভাইরাল ইমেজে যাঁকে দেখা গেছে, সেই টিঙ্কুর সঙ্গেও বুম কথা বলে। টিংকু আমাদের নিশ্চিত ভাবে জানান যে, ২৫ অগস্ট তাঁর মাথায় চোট লেগেছিল। টিংকু আরও জানান যে, যারা তাঁর ছবি মিথ্যে দাবি করে শেয়ার করেছে, তিনি তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করবেন।

আরও পড়ুন: ফের ছড়াল হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উক্তির ভুয়ো খবর

Updated On: 2021-09-01T18:25:40+05:30
Claim Review :   পুলিশের লাঠি চার্জ আহত এক কৃষকের মাথা ফেটে যাওয়ায় সেলাই করতে হয়েছে
Claimed By :  Social Media Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story