ভারত-মার্কিন সেনার যৌথ মহড়ার পুরনো ছবি বিভ্রান্তিকর দাবি সহ ছড়াচ্ছে

বুম দেখে ভাইরাল হওয়া সৈনিকদের ছবিগুলি লাদাখের গালওয়ানে সংঘর্ষের আগে থেকে অনলাইনে আছে। আমেরিকা কোনও সেনা পাঠায়নি ভারতকে।

ভারতীয় এবং মার্কিন সেনাবাহিনীর যৌথ সামরিক সশস্ত্র মহড়ার কিছু পুরনো ছবিকে সাম্প্রতিক ভারত-চিন সীমান্ত সমস্যার প্রেক্ষিতে সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হচ্ছে। সোশাল মিডিয়া পোস্টে ভুয়ো দাবি করা হচ্ছে যে মার্কিন সেনাবাহিনী ভারতে এসেছে, পাক-অধিকৃত কাশ্মীর এবং আকসাই চিন অঞ্চলকে পুনরায় ভারতের দখলে আনতে সাহায্য করার জন্য। ১৫ জুন গালওয়ানে সীমান্ত সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর ভারত ও চিনের মধ্যে সম্পর্ক উত্তপ্ত হয়।

বুম দেখেছে দাবিগুলি ভুয়ো এবং ভাইরাল হওয়া অধিকাংশ ছবিগুলি ভারত-আমেরিকার মধ্যে যৌথ সামরিক মহড়ার পুরনো ছবি। আর বাকি কিছু ছবি মার্কিন সেনা বাহিনীর, ওই ছবিগুলির সঙ্গে ভারতের প্রতিরক্ষার সঙ্গে কোনও সম্পর্ক নেই।

এরকমই ৪ টি ছবি সহ একটি ভাইরাল ফেসবুক পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "ভারতে প্রবেশ করল প্রচুর আমেরিকা সেনা চিনের ও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে, কারা যেন বলেছিল আমেরিকাকে ওষুধ দিয়ে ঠিক করেনি মোদী এবার বুঝলে তো মোদী কি জিনিস"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে
উপরোক্ত পোস্টের ৪ টি ছবি সহ একই ধরনের সেনাবাহিনির মহড়ার মোট ১২ টি ছবি আরেকটি ফেসবুক পোস্টে শেয়ার করা হয়েছে। পোস্টটিতে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "বিগ ব্রেকিং নিউজ..এবার ভারতে প্রবেশ করছে বিপুল সংখ্যায় মার্কিন সেনা, লক্ষ্য চিন অধিকৃত (আকসাই চিন) ও পাকিস্তানের অধিকৃত(POK ) (আজাদ কাশ্মীর) ভারতের জমি পুনরুদ্ধার করা ও চিন পাকি জঙ্গি আগ্রাসনকে রোধ করা, তাছাড়া চিনের উপর আরও কিছু পদক্ষেপ নিতে চলেছে ভারত। তবে এক্ষেত্রে ভারতীয় সেনা দুর্বল বলে মার্কিন সেনার সাহায্য নিতে হচ্ছে এমনটা কিন্তু ভুলেও ভাববেন না (ভারতীয় সেনা পৃথিবীর দ্বিতীয় শক্তিশালী সেনা),বন্ধুর বিপদে বন্ধুর পাশে দাঁড়াতে চাইছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, #জয়_হিন্দ #ভারতমাতা_কি_জয়।"
পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

অন্য আরেকটি ফেসবুক পোস্টে তিনটি ছবির একটি সেট শেয়ার করে দাবি করা হয়েছে, "চিনের সাথে মোকাবিলা ভারতের পাশে আমেরিকা ২৭ হাজার সেনাবাহিনী পাঠালো আমেরিকা, এটাই বন্ধুত্ব।" এখানে সেনাবাহিনীর দুটি ছবি এবং আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র সাক্ষাতের একটি ছবিও রয়েছে।
পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে
মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেয়ো বলেছেন চিনের অগ্রাসন নিয়ে আমেরিকা নতুন করে সেনা মোতায়েনের বিষয়টি ভাববে। ১৫ জুন ২০২০ সিএনএন-এ প্রকাশিত এক
প্রতিবেদনে
বলা হয়েছে চিনকে চাপে রাখতে প্রশান্ত মহাসাগরে নজরদারি বৃদ্ধি করতে নতুন তিনটি নৌ যুদ্ধ বিমান মোতায়েন করেছে আমেরিকা।

তথ্য যাচাই

বুম পোস্টে থাকা ছবিগুলিকে ইন্টারনেটে রিভার্স ইমেজ অনুসন্ধানের মাধ্যমে যাচাই করেছে এবং ছবিগুলির প্রাথমিক সূত্র খুঁজে পেয়েছে। বুম দেখেছে ভাইরাল হওয়া ছবিগুলি গালওয়ানে ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষের আগের।
ভাইরাল ছবিগুলি ভারতকে আমেরিকার সেনার পাঠানোর ছবি নয়। ভারতকে আমেরিকার সেনা পাঠাচ্ছে, এ নিয়ে কোনও সাম্প্রতিক প্রতিবেদন খুঁজে পায়নি বুম।
বুম ছবিগুলির উৎস যাচাই করছে; কোলাজে সংশ্লিষ্ট ছবিগুলির নম্বর দেওয়া হল।
ছবি নং- ১
ভারতীয় এবং মার্কিন সেনা জওয়ানের কাঁধে কাঁধে দাঁড়ানো অবস্থায় তোলা পোট্রেট ছবিটি ২০১৪ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর তোলা হয়। উত্তরাখণ্ডের রানীখেত ক্যান্টনমেন্টে দশম ইন্দো-মার্কিন যৌথ সামরিক মহড়ার সময়ে তোলা হয়। মার্কিন সেনার ডিফেন্স ভিসুয়াল ইনফরমেশন ডিস্ট্রিবিউশন সার্ভিস-এর ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ২
২০১৮ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর ছবিটি ১৪ তম ভারত-মার্কিন যৌথ মহড়ার সময়ে তোলা হয়। এই মহড়াটি হয়েছিল চোউবাত্তিয়া ক্যান্টনমেন্ট এলাকায়। এখানে দেখা যায় একজন ভারতীয় সেনা জওয়ান মার্কিন জওয়ানের সাথে একটি আসল্ট রাইফেল দেখছেন। বর্ণনা সহ ছবিটি মার্কিন সেনার 'আর্মি ডট মিল' ওয়েবসাইটে দেখা যাবে
এখানে
ছবি নং- ৩

পিছনে সেনাবাহিনীর গাড়ি থামিয়ে দুইজন সেনাকে শুভেচ্ছা বিনিময়ের এই ছবিটি ভারত-মার্কিন সপ্তম যৌথ মহড়ার সময়ে তোলা হয়েছিল ২০১৩ সালের ৪ মে। মহড়াটি হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের ফরট ব্রাগে। এই ছবিতে ভারতীয় সেনার মেজর প্রশান্ত মিশ্রা এবং মার্কিন সেনার ক্যপ্টিন কুলেন লিঙ্কে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে দেখা যাচ্ছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা ওয়েবসাইটে ছবিটি দেখা যাবে এখানে

ছবি নং- ৪

২০১৬ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর উত্তরাখণ্ডের চোউবাত্তিয়ায় ভারত মার্কিন যৌথ সেনা মহড়ার সময়ে তোলা হয়েছিল। 'ডিফেন্স ফোরাম ইন্ডিয়া' নামের একটি ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে
এখানে

ছবি নং- ৫
২০১৪ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর উত্তরাখণ্ডের রানীক্ষেতে দশম যৌথ সমর মহড়ার সময়ে তোলা হয়েছিল এই ছবিটি। এখানে দুই দেশের সেনাদের নিবিড়ভাবে একটি এম-৪ স্বয়ংক্রিয় রাইফেল পর্যবেক্ষণ করতে দেখা যাচ্ছে। ছবিতে মার্কিন সেনার সার্জেন্ট মাটিন ম্যাটেন্সনকে ভারতীয় সেনার সাথে রয়েছেন। মার্কিন প্রতিরক্ষা ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ৬
এই ছবিটি উত্তরাখণ্ডের চোউবাত্তিয়ায় ১৪তম যৌথ সামরিক মহড়ার সময়ে ২০১৮ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর তোলা হয়েছিল। এখানে মার্কিন সেনার প্রথম ব্যাটেলিয়ন এবং ভারতীয় স্থল সেনার ২৩ তম ব্যাটেলিয়নের মধ্যে একটি এম-২৪৯ স্বয়ংক্রিয় রাইফেল নিয়ে আলোচনা করতে দেখা যাচ্ছে। 'আর্মি ডট মিল' ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে
এখানে
ছবি নং- ৭
মার্কিন বায়ু সেনার মেডিকেল সার্ভিস ওয়েবসাইট অনুসারে এই ছবিটিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনেরাল জ্ঞান ভূষণ এবং মার্কিন সেনার তরফে ওয়ালতার কলিন্ডারসকে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে দেখা যাচ্ছে। ছবিটির বর্ণনায় উল্লেখ আছে যে, ২০১১-১২ সাল নাগাদ রাষ্ট্র সংঘের তত্ত্বাবধানে শান্তি রক্ষার জন্য একটি মহড়ার সময়ে এই সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎকারটি হয়। ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ৮
মার্কিন সেনাবাহিনীর 'আর্মি ডট মিল' ওয়েবসাইটে ছবিটির বর্ণনা হিসেবে বলা হয়েছে, এটি মার্কিন স্থল সেনার ৭৫ তম আর্টিলারি ব্রিগেডে করোনাভাইরাসের উপসর্গের জন্য পরীক্ষা করার সময়ের ছবি। এবছরের ৭ এপ্রিল মাসের ছবিটি দেখা যাবে
এখানে

ছবি নং- ৯

ছবিতে রয়েছেন মার্কিন গ্রিন ব্যারেট সেনারা। ছবিটি ২০১৬ সালের ১০ ফেব্রুয়ারী তোলা হয়েছিল। অল্প দূরত্বের সংঘাতের জন্য একটি প্রস্তুতির মহড়ার সময় এই ছবি ক্যামেরাবন্দী করা হয়। ছবিটি প্রতিরক্ষা বিষয়ক জার্নাল 'জয়েন্ট ফরস কোয়ার্টালি'-এর ২০১৮ এর চতুর্থ সংখ্যার ৬২ তম পৃষ্ঠায় প্রকাশিত হয়েছিল। ছবিটি তুলেছিলেন সার্জেন্ট এফরেন লোপেজ। ছবিটি একই দিনে ফ্লিকারেও আপলোড করা হয়। ছবিটি দেখা যাবে এখানে এবং এখানে
ছবি নং- ১০

এই ছবিটি গেট্টি ইমেজের সংগ্রহে রয়েছে। পোল্যান্ডে মার্কিন সেনাবাহিনী সহ ন্যাটো (NATO) ভুক্ত দেশগুলির যৌথ সেনা মহড়ার সময়ে তোলা হয়েছে। ২০১৭ সালের ১৩ এপ্রিল ছবিটি তুলেছেন চিত্র সাংবাদিক ওজতেক রেডয়ানক্সি। ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ১১
উত্তরাখণ্ডের চোউবাত্তিয়ায় এই ছবিটি ২০০৭ সালের ৩ ডিসেম্বর তোলা হয়েছিল ভারত-মার্কিন যৌথ সেনা মহড়ার সময়ে। এখানে মার্কিন সেনার সাথে ভারতীয় সেনার গোর্খা রেজিমেন্টের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেছিলেন। 'আর্মি ডট মিল' ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ১২
২০০৯ সালে ১৫ অক্টোবর ছবিটি নবম যৌথ সামরিক মহড়ার সময়ে তোলা হয়েছিল বুন্দেলা ক্যাম্পে। 'আলামি'র সংগ্রহে থাকা ছবিটি দেখা যাবে
এখানে

ছবি নং- ১৩
২০২০'র ১ জানুয়ারী তোলা ছবিটিতে মার্কিন সেনা বাহিনীর ৮২ তম বায়ু সেনার ডিভিশনকে দেখা যাচ্ছে। বিবরণ সহ মার্কিন প্রতিরক্ষা ওয়েবসাইটে থাকা ছবিটি দেখা যাবে এখানে
ছবি নং- ১৪
সামরিক বিমানের ভেতরে সেনাদের সারিবদ্ধভাবে বসে থাকার ছবিটি মার্কিন সেনার ডিফেন্স ভিসুয়াল ইনফরমেশন ডিস্ট্রিবিউশন সার্ভিস ওয়েবসাইটে দেখা যাবে। ছবিটি ১২ এপ্রিল ২০২০ তোলা হয়েছিল। ছবির বর্ণনায় লেখা আছে যে, ছবিতে মার্কিন সেনাবাহিনী এবং তাদের বায়ুসেনার ১৮ তম মেডিকেল কমান্ডের সদস্যদের দেখা যাচ্ছে। ছবিটি হাওয়াই এর পারল হারবারে তোলা হয়েছিল, কোভিড-১৯ মোকাবিলার জন্য তাদেরকে সেখানে মোতায়েন করা হয়েছিল। ছবিটি দেখুন
এখানে
ছবি নং- ১৫
পিঠে রুকস্যাক ও দু'হাতে ব্যাগ নিয়ে হাস্যমুখে সেনা জওয়ানের ছবিটি ২০২০ সালের ৪ এপ্রিল তোলা হয়েছিল। ছবিটি মার্কিন সেনার ফেসবুক পেজে ১৩ এপ্রিল পোস্ট করা হয়েছিল। ফেসবুক পোস্টের বর্ণনা থেকে জানা যায়, এই সেনা জওয়ান টেক্সাস থেকে দুই সপ্তাহ পর নিউ জার্সিতে নিজের বাড়ি ফিরেছেন এবং নিজের পরিবারের সাথে সাক্ষাতের প্রাক-মুহূর্তে এই ছবিটি তোলা হয়। মার্কিন সেনার ডিফেন্স ভিসুয়াল ইনফরমেশন ডিস্ট্রিবিউশন সার্ভিস ওয়েবসাইটে ছবিটি দেখা যাবে এখানে

ছবি নং- ১৬
এই ছবিটি ২০১৬ সালের ৭ অক্টোবর 'আর্মি ডট মিল' ওয়েবসাইটে
প্রকাশিত
হয়। ২০১৬ সালের ৮ অক্টোবর মার্কিন সেনার অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে টুইট করা হয়।
Updated On: 2020-07-13T13:41:25+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি ভারত-চিনের সংঘাতের আবহে আমেরিকা ভারতে সেনা সাহায্য পাঠাচ্ছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story