ভুয়ো সতর্কবাণী: জামা মসজিদ তানিস্কের বিরুদ্ধে কোনও ফতোয়া জারি করেনি

দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম আহমেদ বুখারির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি ভাইরাল দাবিটি খারিজ করে দেন।

সোশাল মিডিয়া পোস্টে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে যে, দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম আহমেদ বুখারি তানিস্কের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেতে চলেছেন। কারণ, ওই অলঙ্কার প্রস্তুতকারক তাদের সম্প্রতি বাতিল-করা বিজ্ঞাপনে সাধের মত একটি 'হিন্দু আচার অনুষ্ঠান' দেখিয়েছে।

শাহি ইমাম আহমেদ বুখারির সঙ্গে যোগাযোগ করলে, উনি দাবিটিকে মিথ্যে বলে খারিজ করে দেন।

তানিস্কের একটি সাম্প্রতিক বিজ্ঞাপনে আন্তঃধর্মীয় পারিবারিক সম্পর্কের মাহাত্ম্য তুলে ধরার পরিপ্রেক্ষিতে ভাইরাল দাবিটি শেয়ার করা হচ্ছে। বিজ্ঞাপনটিতে এক অন্তঃসত্বা হিন্দু পুত্রবধুর জন্য তাঁর মুসলমান শ্বশুরবাড়ির আত্মীয়দের সাধ অনুষ্ঠান আয়োজন করতে দেখানো হয়। বিজ্ঞাপনটি ওই কম্পানির 'একাত্মভম' অলঙ্কার সংগ্রহ প্রচার করার জন্য দেখানো হচ্ছিল। কিন্তু বিজ্ঞাপনটি ভারতের দক্ষিণপন্থী মহলে প্রতিবাদের ঝড় তোলে। সোশাল মিডিয়ায় তীব্র বিরোধিতার সম্মুখীন হওয়ায়, কম্পানিটি শেষমেশ বিজ্ঞাপনটি তুলে নেয়।

ভাইরাল পোস্টটিতে দু'টি ছবি আছে – শহি ইমাম বুখারির ও তানিস্কের বিজ্ঞাপনটির একটি স্ক্রিনশট।

পোস্টটির সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনটি এই রকম: "হাহাহা! সেকুলার লিবারালানডউউস-রা কোথায়? জামা মসজিদ তানিস্কের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করতে চলেছে। কারণ, বিজ্ঞাপনে তারা সাধ অনুষ্ঠান দেখায়। সেটি হিন্দু সংস্কৃতির অঙ্গ। মুসলমানদের সে রকম কোনও প্রথা নেই। তানিস্ক নিঃশব্দে সংস্কৃতি ও প্রথা নষ্ট করছে। আর সেই সঙ্গে ইসলাম ধর্মের ক্ষতি করছে।"


টুইট ও পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে

পোস্টগুলি ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটারেও ভাইরাল হয়েছে।


তথ্য যাচাই

তানিস্কের বিরুদ্ধে মসজিদ ফতোয়া জারি করেছে বা করতে চলেছে, সেই সংক্রান্ত খবরের জন্য সার্চ করি আমরা। কিন্তু সে রকম কোনও রিপোর্টের খোঁজ পাওয়া যায় না।

তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করলে, জামা মসজিদের শাহি ইমাম আহমেদ বুখারি ভাইরাল দাবিটি উড়িয়ে দেন।

"আপনারা তো জানেন যে, সোশাল মিডিয়ায় এই ধরনের গুজব ছড়ান হয়। ফতোয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। গুজব ছড়ানো আর উপদ্রব সৃষ্টি করা ছাড়া শোসাল মিডিয়ার আর কাজ কি," বুমকে বলেন বুখারি।

দিল্লির জামা মসজিদের সহকারি শাহি ইমাম সৈয়দ শাবান বুখারির যাচাই-করা ফেসবুক পেজে আমরা একটি পোস্ট দেখতে পাই। পোস্টটি ১৪ অক্টোবরের অর্থাৎ, জামা মসজিদ ফতোয়া জারি করতে চলেছে, সপ্তাহ শেষে এই গুজবটি ছড়ানোর বেশ কয়েকদিন আগেই পোস্টটি করা হয়।

তানিস্কের বিজ্ঞাপনটি যেদিন তুলে নেওয়া হয়, তার পরের দিনই সেটি শেয়ার করা হয় ওই পোস্টে। আর সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনে বলা হয়, "আমার কাছে এটি খুবই সুন্দর। বিভাজনটা উগ্রপন্থীদের মনের মধ্যে রয়েছে। মুসলমান হিসেবে আমরা হিন্দুদের খুব ভাল বন্ধু। আমরা একে অপরকে ভালবাসি। আর সুরক্ষার প্রশ্ন উঠলে, বলতে হয়, আমাদের বাড়িতে হিন্দুরা দ্বিগুণ সুরক্ষিত। ভালবাসাকে তুলে ধরে তানিস্ক খুব ভাল কাজ করেছে।"

Show Full Article
Next Story