ব্রিটেনের অতি দক্ষিণপন্থী ভাষ্যকার রটালো ভারতের পুরনো ভিডিও

ভিডিওটি সাম্প্রতিক নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভের ছবি বলে চালিয়ে দেওয়া হয়েছে।

রক্ষণশীল ব্রিটিশ মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ক্যাটি হপকিনস ২০১৭ সালে পাথর ছোঁড়ার একটি ভিডিও ভারতে নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভের দৃশ্য বলে শেয়ার করেছেন।

হপকিনস ৯ সেকেন্ডের ক্লিপটি ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯-এ টুইট করেন। ক্যাপশনে লেখেন, "নাগরিকত্ব বিল বিরোধী ইসলামপন্থীর মানসিকতা। এই ধরনের নাগরিক কেন ভারত চাইবে? হিন্দুরা তৈরি করে। ইসলামপন্থীরা ভাঙ্গে। চালিয়ে যান, মোদী। সিএবি২০১৯ এর জন্য হুররে।" টুইটটির আর্কাইভ সংস্করণ দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

ফুটেজটিতে ফেজ টুপি-পরা একটি লোককে বাসের ওপর পাথর ছুঁড়তে দেখা যাচ্ছে।

টুইটটি ব্যাপক হারে শেয়ার করা হয়। প্রায় ১১,০০০ বার রিটুইট করা হয় সেটি এবং লাইক পায় ২২,০০০।

তথ্য যাচাই

ভিডিওটির প্রধান ফ্রেমগুলি নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করা হয়। তাতে দেখা যায় যে, ওই একই ক্লিপ শৌর্য নামের একটি ফেসবুক পেজে অগস্ট ২০১৯-এ শেয়ার করা হয়। সঙ্গে ছিল হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন। বাংলা করলে তা দাঁড়ায় এই রকম: দেশের ভালর জন্য, ঘাম রক্ত ঝরিয়ে আপনি যত ট্যাক্সই দিন না কেন, এই টুপি পরা লোকেরা তা মুহূর্তে নষ্ট করে দেবে। এই লোকগুলি কারা?

এর থেকে স্পষ্ট হয় যে, ফুটেজটি চার মাস পুরনো এবং নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভের সঙ্গে সেটির কোনও সম্পর্ক নেই।

আরও জানতে আমরা রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। তার ফলে, ইউটিউবে জানুয়ারি ২০১৭-র আরও পুরনো একটি ভিডিও সামনে আসে। তাতে গুজরাটের সুরাটে একটি বাস দুর্ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয় যাতে এক পথচারীর মৃত্যু হয়।

গুজরাটিতে লেখা ক্যাপশনে বলা হয় যে, ওই দুর্ঘটনা বিপুল উত্তেজনা সৃষ্টি করে এবং এক বিক্ষুব্ধ জনতা বিআরটিএস বাসটির ওপর পাথর ছুঁড়তে শুরু করেন।

যে ক্লিপটি হপকিনস শেয়ার করেছেন, সেটি ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিওর একটি কাটছাঁট করা সংস্করণ। পূর্ণাঙ্গ ভিডিওটিতে বাসটির দিকে টুপি-পরা লোকটি ছাড়াও আরও এক ব্যক্তিকে ইঁট ছুড়তে দেখা যাচ্ছে।

Updated On: 2019-12-23T12:23:05+05:30
Claim Review :   ভিডিওর দাবি নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীরা একটি বাসে পাথর ছুঁড়ছে
Claimed By :  Katie Hopkins
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story