জ্বালানি মূল্যবৃদ্ধি: ২০১৮'র পেট্রল পাম্প ভাঙচুরের ভিডিও জিইয়ে তোলা হল

বুম দেখে ভিডিওটি ওড়িশার। সে সময় তেলের মাপে কারচুপি ধরা পড়লে কিছু লোক পেট্রল পাম্প লণ্ডভণ্ড করে।

দেশে জ্বালানির ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধির প্রেক্ষিতে ওড়িশায় একটি পেট্রল পাম্প লণ্ডভণ্ড করার একটি পুরনো ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে যে, পেট্রল-ডিজেলের সাম্প্রতিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে জনতা এই কাজ করেছে।

বুম এই একই ভিডিও ২০১৮ থেকেই পেট্রল ও ডিজেলের দাম নাগাড়ে বেড়ে চলেছে এবং ২৭ জুনও পেট্রলের দর লিটারে ২৫ পয়সা এবং ডিজেলের দর লিটারে ২৭ পয়সা বাড়ানো হয়।
মূল্য যুক্ত কর বা ভ্যাট-এর (VAT) পার্থক্যের কারণে রাজ্যে-রাজ্যে পেট্রল-ডিজেলের দামও আলাদা-আলাদা। ২৮ জুন এই দর কত ছিল, তা জানতে
এখানে
ক্লিক করুন।
ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে একদল লোককে একটি পেট্রল পাম্প লণ্ডভণ্ড করতে দেখা যাচ্ছে। পোস্টটির হিন্দি ক্যাপশনের বাংলা অনুবাদ করলে দাঁড়ায়: "জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে জনসাধারণের ক্ষোভ এ বার ফেটে পড়েছে l আরও অনেক কিছুই ঘটবে l বন্ধুরা এটই ভিডিওটি শেয়ার করুন যতক্ষণ না এটা মোদীর দরবার অবধি পৌঁছয় l"
ভাইরাল পোস্টগুলি নীচে দেখুন, আর সেগুলোর আর্কাইভ সংস্করণ এখানে এবং এখানে
টুইটারেও ভিডিওটি শেয়ার হয়েছে।

তথ্য যাচাই

একই ধরনের ভুয়ো ক্যাপশন দিয়ে এর আগেও এই ফুটেজটি ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দাবি করা হয়েছিল, ওড়িশায় পেট্রলের দাম ১০০ টাকা প্রতি লিটার ছাপিয়ে গেছে।

ওড়িশার পুরীর হসপিটাল স্কোয়ারে খুন্তিয়া পেট্রল পাম্পে এই ঘটনাটি ঘটেছিল। তথ্য যাচাই করতে গিয়ে বুম পুরীর কুম্ভারপদা পুলিশ স্টেশনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কনস্টেবল সে সময় বুমকে জানান, পেট্রলের দরবৃদ্ধির জন্য নয়, ঘটনাটির মূলে ছিল তেল চুরির ব্যাপার।

পুরো রিপোর্টটা পড়ুন:
ওড়িশায় কি একটি পেট্রল পাম্প জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির জন্য আক্রান্ত হয়েছিল? একটি তথ্য-যাচাই
"ঘটনার দিন এক ক্রেতা পাম্প তেল চুরি করায় রেগে যান। যতটা তেল ভরার কথা, তার চেয়ে অনেক কম তেল দিয়ে পাম্পের লোকেরা পুরো দাম দাবি করে l এতে ক্রুদ্ধ হয়ে ক্রেতাটি পাম্পের লোকেদের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করে এবং পাম্পে উপস্থিত অন্যান্যরাও পাম্পের বিরুদ্ধে তেল চুরির একই অভিযোগ এনে সেই গোলমালে যোগ দেয় এবং পাম্পে হামলা চালায়" বলে কনস্টেবলটি বুমকে জানায়।

ওড়িশা টিভি-র এক স্থানীয় রিপোর্টার মধুসূদন বুম-কে জানান, "ঘটনার সূত্রপাত রাত সোয়া দশটা নাগাদ, আর তার পরেই লোকেরা পাম্প লণ্ডভণ্ড করতে শুরু করে। এর কিছুক্ষণ পরে পুলিশ এসে হস্তক্ষেপ করে এবং জনতার উপর লাঠি-চার্জ করে।"

এ ছাড়াও আমরা একটা প্রতিবেদন খুঁজে পেয়েছি, যেটা এই তথ্যকে সমর্থন করে।

Updated On: 2020-06-29T15:04:01+05:30
Claim Review :   ভিডিও দেখায় জ্বালানির দাম বৃদ্ধির কারণে লোকজন একটি পেট্রোল পাম্প ভাঙচুর করছে
Claimed By :  Facebook Posts & Twitter Handles
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story