শিলং-গুয়াহাটি রাস্তায় ধস বলে ছড়ালো ইন্দোনেশিয়ার ভিডিও

বুম দেখে ভিডিওটি শিলং-গুয়াহাটি রোডে ধস নামার ঘটনা নয়, ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভার সিয়ানজুরে ৯ এপ্রিল ২০২০ মূল ঘটনাটি ঘটে।

পাহাড়ি এলাকায় ধস নেমে রাস্তার ওপরে মাটি নেমে আসার ইন্দোনেশিয়ার ভিডিও শেয়ার করে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে শিলং-গুয়াহাটি রাস্তায় নাকি ধস নেমেছে। শিহরণকারী এই ভিডিওতে অল্পের জন্য ধসের মাটি চাপা থেকে রক্ষা পান এক বাইক আরোহী।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ৩০ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায় রাস্তার পাশের উচু পাহাড়ি ঢিবির কিছু অংশে হঠাৎ করে ধস নেমে আসে। ধসের মাটি রাস্তার কিনারা পেরিয়ে মাঝ রাস্তা ঢাকতে শুরু করে। এক বাইক আরোহী ওই মাটি চাপা পড়া থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পান। আতঙ্কিত মানুষের আর্তনাদ শোনা যায়।

ভিডিওটিতে অসমীয়া সংবাদ চ্যানেলের 'DY365'-এর লোগো থাকায় নেটিজেনরা সত্য ঘটনা বলে ভুল করছেন।

ফেসবুকে এই ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "শিলং, গুয়াহাটি রোডে আজ বিকেলে।"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা এখানে

ভিডিওটি একই ক্যাপশন সহ ফেসবুকে আরও অনেকে শেয়ার করেছেন।


ভিডিওটি আমপান পরবর্তী সময়ে ফেসবুকে ভাইরাল হয়। আমপানের পর সমগ্র উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। অসম ও মেঘালয়ে আগামী দুদিন ভারি বর্ষণের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ব্রহ্মপুত্র নদের জলস্তর ক্রমশ বাড়ছে। রাজ্যের নলবাড়ি, ডিব্রুগড়, তিনসুকিয়া, দাররাং, ধিমাজি প্রভৃতির বিস্তীর্ণ এলাকা অতিবৃষ্টির জেরে প্লাবিত।

আরও পড়ুন: সাইক্লোন ফণীর দৃশ্য সোশাল মিডিয়ায় ফিরে এল দিঘাতে আমপানের তাণ্ডব বলে

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটিকে কয়েকটি মূল ফ্রেমে ভেঙে কিওয়ার্ড সার্চ করে দেখে ভিডিওটি শিলং-গুয়াহাটি সড়কের কোনও ঘটনা নয়। ৯ এপ্রিল ২০২০ এই ধস নামার ঘটনাটি ঘটে ইন্দনেশিয়ার পশ্চিম জাভার সিয়ানজুরে। এব্যাপারে একাধিক ইন্দোনেশিয় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

১০ এপ্রিল ২০২০ মেট্রো টিভি নিউজ নামে ইন্দোনেশিয়ার সংবাদ চ্যানেলে এই ধস নামা নিয়ে খবর সম্প্রচার করা হয়েছে। ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিওর শিরোনাম বাংলাতে অনুবাদ করলে দাঁড়ায়, "সিয়ানজুরে ১০০ মিটার উঁচু পাহাড়ে ধস।" (মূল ইন্দোনেশীয় ভাষায় শিরোনাম: Detik-detik Tebing Setinggi 100 Meter di Cianjur Longsor)

আরেকটি গণমাধ্যম টিভিওয়ান ৯ এপ্রিল ২০২০ ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিওতেও দেখা যাবে সংবাদটি। হটাৎ বৃষ্টির কারণেই এই ঘটনা ঘটে বলে জানানো হয়েছে মালাং টাইমসটিবিউন জোগজা-তে প্রকশিত প্রতিবেদনে। ভাগ্যের জোরে বেঁচে যাওয়া ওই বাইক আরোহীর কথাও বলা হয়। ফোনের ক্যামেরায় কেউ দৃশ্যটি তুললে, পরে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

সম্পাদিত ভিডিও ক্লিপ

অসমীয় গণমাধ্যম 'DY365'-এর ২১ মে'র ফেসবুক পোস্টের ভিডিওটিতে উল্লেখ করা হয় শিলং-গুয়াহাটি রাস্তায় কোনও ভূমিধস হয়নি।

খবরের টিকারের এই অংশটি বাদ দিয়ে ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়ানো হয়েছে।



মেঘালয় পুলিশ ২১ মে ২০২০ টুইট করে জানায়, সোশাল মিডিয়ায় ছড়ানো ভূমিধসের ভিডিও ক্লিপিংসটি ইন্দোনেশিয়ার সিয়ানজুর ও সুকানাগড়ের, মেঘালয় জাতীয় সড়কের নয়। নাগরিকদের অনুরোধ করা হচ্ছে, তারা যেন ভুয়ো ক্যাপশন সহ এই ভিডিওটি যেন শেয়ার না করে।

Claim Review :  ভিডিওতে দেখা যায় শিলং গুয়াহাটি রাস্তার পাশে ঢিবিতে ধস নামছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story