না, বিমানবাহিনীর কমোডর হিলাল আহমেদ ফ্রান্স থেকে ভারতে রাফাল নিয়ে আসেনি

বিমানবাহিনীর মুখপাত্র বুমকে জানান—কমোডর হিলাল আহমেদ রাঠে ফ্রান্সে ভারতের এয়ার অ্যাটাশে, তিনি ওই জেট ভারতে নিয়ে আসেননি।

না, এয়ার কমোডর হিলাল আহমেদ রাঠে রাফাল যুদ্ধবিমান ফ্রান্স থেকে ভারতে উড়িয়ে আনেননি।

ভাইরাল পোস্টে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে যে, প্রথম ব্যাচের একটি বিমান উনি চালিয়ে আনেন। ওই ব্যাচের বিমানগুলি ২৯ জুলাই ভারতে এসে পৌঁছয়।
ভারতীয় বায়ুসেনার সঙ্গে যোগাযোগ করে বুম জেনেছে যে, রাথের বর্তমানে ফ্রান্সে ভারতের এয়ার অ্যাটাশে হিসেবে নিযুক্ত আছেন এবং উনি যুদ্ধ বিমানটি ভারতে চালিয়ে আনেননি। খবরে প্রকাশ, প্রথম দফার যে রাফাল বিমানগুলি ২৭ জুলাই ফ্রান্স থেকে ভারতের জন্য রওনা হয়, সেগুলিকে বিদায় জানাতে রাঠে উপস্থিত ছিলেন।
২৯ জুলাই, ৫টি রাফাল যুদ্ধবিমান আম্বালার বিমানঘাঁটিতে অবতরণ করে। বিমানগুলি ফ্রান্সের বরডও মেরিঙ্গইয়্যাক থেকে ভারতের উদ্দেশে যাত্রা করে। সে বিষয়ে আরও পড়ুন
এখানে
খবরে প্রকাশ বায়ুসেনার সাতজন বিমান চালক সেগুলিকে চালিয়ে আনেন।
ভাইরাল পোস্টটি (আর্কাইভ এখানে) তিনটি ছবির একটি কোলাজ শেয়ার করেছে, যেগুলিতে হিলাল আহমেদ রাঠে ও রাফাল জেট বিমানগুলিকে দেখানো হয়েছে।
তার সঙ্গে দেওয়া হিন্দি ক্যাপশনটিতে বলা হয়েছে, "হিলাল, যিনি রাফাল বিমান উড়িয়ে আনেন। ইনিই হলেন কাশ্মীরের বাসিন্দা এয়ার কমোডর হিলাল আহমেদ রাঠে। উনিই প্রথম রাফায়েল জেটটি ভারতে উড়িয়ে আনেন। উনি দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগে থাকেন। পড়াশোনা করেন সৈনিক স্কুলে। ১৯৮৮ সালে উনি বায়ূসেনায় যোগ দেন। এর আগে হিলাল মিগ-২১, মিরাজ-২০০০ এবং কিরণ বিমানও চালিয়েছেন। উনি বায়ুসেনা মেডেল ও বিশিষ্ট সেবা মেডেলও পেয়েছেন।"
(হিন্দি বয়ানে: रफ़ाल उड़ाने वाले हिलाल | ये हैं एयर कोमडोर हिलाल अहमद राठेर. जो मूल रूप से कश्मीर से हैं. भारत आ रहे पहले रफ़ाल लड़ाकू विमान को ये ही उड़ा रहे हैं. दक्षिण कश्मीर के अनंतनाग ज़िले के रहने वाले हिलाल ने सैनिक स्कूल से पढ़ाई की है. वो 1988 में भारतीय वायुसेना में शामिल हुए थे. हिलाल इससे पहले मिग-21, मिराज 2000 और किरण एयरक्राफ़्ट उड़ा चुके हैं. उन्हें वायू सेना मेडल मिल चुका है. 2016 में विशिष्ट सेवा मेडल भी मिला है)
বুম দেখে যে, আকাশে কেরামতি প্রদর্শন করছে এমন একটি রাফাল যুদ্ধবিমানের পুরনো ভিডিওর সঙ্গে ক্যাপশন জুড়ে দিয়ে দাবি করা হয়েছে যে, বিমানটিকে ভারতে আনার সময় পাইলটের আসনে ছিলেন এয়ার কমোডর রাঠে।
ভিডিওটির সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনে বলা হয়েছে, "পাঁচটি রাফাল জেট ভারতে এসে পৌঁছেছে। দেখুন রাফাল আর পাইলট হিলাল আহমেদের উপস্থিতি কতটা জাঁকজমকপূর্ণ।
(হিন্দিতে লেখা হয়: "भारत में 5 राफेल लडाकू विमानों का हुआ आगमन, जरा राफेल का और पायलट हिलाल अहमद का जलवा देखो)
ভাইরাল পোস্টটি নীচে দেখুন। আর্কাইভ করা আছে এখানে

তথ্য যাচাই

রাফাল বিমানগুলিকে ভারতে আনা সংক্রান্ত বেশ কিছু সংবাদ প্রতিবেদন বুম খতিয়ে দেখে। কিন্তু বায়ু সেনার অফিসার রাঠে সেগুলির একটিকে চালিয়ে আনেন, সে রকম কোনও উল্লেখ ছিল না খবরগুলিতে।
বরং বায়ুসেনার একজন অভিজ্ঞ অফিসার ও ফ্রান্সে ভারতের এয়ার অ্যাটাশে হিসেবে বিমানগুলির হস্তান্তর ত্বরান্বিত করার ক্ষেত্রে তিনি যে একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন তার উল্লেখ আছে।
৩১ জুলাই 'লাইভ মিন্ট'-এ প্রকাশিত খবরে বলা হয়, "নানান রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে যে, রাফালের দ্রুত হস্তান্তর সম্ভব করে তোলার জন্য উনি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তার আগে, ভারতের প্রয়োজন অনুযায়ী রাফাল জেটগুলির অস্ত্রসজ্জার কাজের সঙ্গেও উনি যুক্ত ছিলেন।"
'টাইমস অফ ইন্ডিয়া'র একটি প্রতিবেদনেও বিমানগুলির ডেলিভারি নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে
তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা উল্লেখ করা হয়।
বিস্তারিত জানতে বুম বায়ুসেনার সঙ্গে যোগাযোগ করে। তাঁদের মুখপাত্র ইন্দ্রনীল নন্দী নিশ্চিত করেন যে, এয়ার কমোডোর হিলাল আহমেদ রাঠে কোনও রাফায়েল বিমান চালনা করে ভারতে নিয়ে আসনেনি।
বায়ুসেনার মুখপাত্র বুমকে বলেন, "এয়ার কমোডর হিলাল আহমেদ রাঠে ফ্রান্সে ভারতের এয়ার অ্যাটাশে হিসেবে নিযুক্ত। জেটগুলির একটিও উনি চালাননি।"
২৯ জুলাই ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর দফতরের করা একটি টুইটও নজরে আসে। তাতে একটি রিপোর্ট শেয়ার করা হয় যাতে রাফাল হস্তান্তরের ক্ষেত্রে রাঠেরের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ও কাশ্মীরে তার বাড়ি ফেরার কথা বলা হয়

ভাইরাল ভিডিও
ভাইরাল ভিডিওটির স্ক্রিনগ্র্যাব নিয়ে বুম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে। দেখা যায়, ওই একই ভিডিও ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তে ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছিল।
ইউটিউব ভিডিওটির সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনে বলা হয়, "দাসো রাফাল। এমন ভয়ঙ্কর জেট প্রদর্শনী আগে কখনও হয়নি।"
ইউটিউব চ্যানেল প্যাডিপেট্রন-এ আপলোড করা ভিডিওটির বিবরণে বলা হয়, "অস্ট্রিয়ার জেল্টওয়েগ-এ ২০১৬-র 'এয়ারপাওয়ার'-এ আমি ফিল্মটি তুলি। আমি বলতে পারি, আমার ক্ষেত্রে এটাই ছিল সবচেয়ে কঠিন ছবি তোলার কাজ। ওই বিমানটি বীভৎস আওয়াজ করছিল।"
ভিডিওটি নীচে দেখুন।

জার্মানিতে অবস্থিত প্যাট্রিক নার্নে-এর সঙ্গে বুম যোগাযোগ করে। উনি নিশ্চিত করেন যে, আসল ভিডিওটি উনি ২০১৬ সালে অস্ট্রিয়ার জেল্টওয়েগ-এ অনুষ্ঠিত 'এয়ারপাওয়ার ১৬' তে তুলেছিলেন।
তবে এয়ার কমোডর হিলাল আহমেদ আগে কখনও রাফাল যুদ্ধবিমান চালিয়ে ছিলেন কিনা তা আমরা স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারিনি।

Updated On: 2020-09-14T13:07:34+05:30
Claim Review :   পোস্টের দাবি কমোডর হিলাল আহমেদ রাঠে প্রথম রাফাল জেটটি ভারতে উড়িয়ে আনেন
Claimed By :  Facebook Pages
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story