নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদের ছবি জুড়ল কৃষকদের "দিল্লি চলো' বলে

বুম যাচাই করে দেখে সম্পর্কহীন দুটি ছবি নিয়ে ভুয়ো দাবি করা হয়েছে নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী শিখ প্রতিবাদীরা আবার কৃষক আন্দোলনে।

এ বছরের গোড়ার দিকে পাঞ্জাব এবং দিল্লিতে নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী প্রতিবাদে অংশগ্রহণ করছেন, কৃষক সংগঠনের নেতাদের এমন দুটি ছবি এখন শেয়ার করা হয়েছে এবং সঙ্গে দাবি করা হয়েছে যে ওই একই নেতাদের সাম্প্রতিক চলা 'দিল্লি চলো' কৃষকদের প্রতিবাদে অংশ নিতে দেখা গেছে।

কোলাজের একটি ছবিতে ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের (বিকেইউ) সদস্যদের দিল্লির শাহিনবাগের প্রতিবাদে দেখা যাচ্ছে এবং অন্যটি কৃষক ইউনিয়নের নেতাদের পুরানো ছবি, যাতে তাঁদের লুধিয়ানায় মুসলিমদের সিএএ বিরোধী বিক্ষোভে সমর্থন জানাতে দেখা যাচ্ছে। বিকেইউ-এর শিখ সদস্যদের মুখ গোল করে চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছে এটা বোঝাতে যে দুটি ক্ষেত্রেই একই লোকেদের উপস্থিত থাকতে দেখা যাচ্ছে।

বুম ছবির এক ব্যক্তিকে মনজিত সিং ধানের বলে চিনতে পারে এবং তিনি জানিয়েছেন যে ছবিটিকে শাহিনবাগের বলে দাবি করা হচ্ছে সেটি আসলে পাঞ্জাবের লুধিয়ানার ছবি।

দুটি ছবিতে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে যথাক্রমে শাহিনবাগের প্রতিবাদস্থল ও দিল্লির কৃষক প্রতিবাদ। যখন ছবিটি এই দাবি নিয়ে ভাইরাল হয়েছিল যে ছবিতে যে মহিলাকে দেখা যাচ্ছে তিনি রাজকুমারী বনসল, যাঁকে কিছু দক্ষিণপন্থী ট্রল থেকে হাথরস ভাবী নাম দেওয়া হয়, বুম তখন এই ছবির সত্যতা যাচাই করেছিল।

নীচে ওই একই বক্তব্যের সঙ্গে ফেসবুক পোস্টটি দেখতে পাবেন। আর্কাইভ করা আছে এখানে

ছবিটি টুইটারেও একই দাবি নিয়ে ভাইরাল হয়েছে। ওই টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

সত্যতা যাচাই করার জন্য বুম তার হেল্পলাইন নম্বরেও ছবিটি পায়।


তথ্য যাচাই

ছবি ১


বুম বিকেইউ-ভারতী কিষাণ ইউনিয়ন একতা আগ্রাহন-এর/ / ਭਾਰਤੀ ਕਿਸਾਂਨ ਯੁਨੀਅਨ ਏਕਤਾ ਉਗਰਾਹਾਂ অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ভাল করে লক্ষ করে এবং লুধিয়ানার নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদীদের সঙ্গে বিকেইউ-এর নেতাদের ছবি দেখতে পায়। ওই ছবিটি তাদের পেজে ৩ মার্চ আপলোড করা হয়। ছবিটির সঙ্গে যে ক্যাপশন দেওয়া হয় তাতে প্রবল বর্ষণের জন্য লুধিয়ানার একটি নাগরিকত্ব আইন বিরোধী মিছিল স্থগিত করার কথা ঘোষণা করা হয়।

আমরা তার পর বিকেইউ'র সোশাল মিডিয়া টিমের সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং তাঁরা জানান যে ছবিটি নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদের লুধিয়ানা চ্যাপ্টারের এবং ছবিতে তার সঙ্গে যুক্ত শিখ নেতাদের দেখা যাচ্ছে।

ছবিতে যে সব বিকেইউ নেতাদের দেখা যাচ্ছে তাঁরা হলেন (বামদিক থেকে) বিকেইউ'র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট (একতা আগ্রাহন) ঝান্ডা সিংহ জেঠুকে, বিকেইউ (একতা দাকুন্ডা)-র মনজিত সিংহ ধানের, এবং সৌদাগর সিংহ থাডানি।

মনজিত সিংহ ধানের বুমকে জানান, "এই ছবিটি লুধিয়ানার মালেরকোটলায় নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদ চলার সময় তোলা হয়। এই জায়গাটি লুধিয়ানার শাহিন বাগ নামে পরিচিত"। বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদন অনুসারে মালেরকোটলা পাঞ্জাবের নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রতিবাদের কেন্দ্র হয়ে ওঠে এবং বহু মানুষ সেখানে এই প্রতিবাদকে সমর্থন জানাতে উপস্থিত হন।

ছবিটি দিল্লির বিখ্যাত নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদকেন্দ্র শাহীন বাগে তোলা হয়েছে বলে যে দাবি করা হয়েছে তা ভুল।

ধানের আরও জানান যে দ্বিতীয় ছবিতে যে তিনজনকে দেখা যাচ্ছে তা তাঁদের ছবি নয়। তিনি বলেন, "এঁরা অন্য বিকেইউ সদস্য, আমরা নই।"

ছবি ২


এই ছবিটি আসলে শাহীনবাগের। এই ছবিটি এবছর ফেব্রুয়ারি মাসে বিকেইউ কিষাণ ইউনিয়ন একতা আগ্রাহণ পেজে আপলোড করা হয়। আমরা বিকেইউ-এর মহিলা মোর্চার সভাপতি হরিন্দর কাউর বিন্দুর সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং তিনি নিশ্চিত ভাবে জানান যে ছবিটি শাহিন বাগের এবং নাগরিকত্ব আইন-বিরোধী প্রতিবাদ চলার সময় যখন বিকেইউ সদস্যরা প্রতিবাদীদের জন্য লঙ্গরের আয়োজন করেছিলেন তখন ছবিটি তোলা হয়।

বিন্দু বলেন, "এবছর জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি মাসে লঙ্গর আয়োজন করার জন্য বিকেইউ সদস্যরা প্রায়ই শাহিন বাগ যেতেন। সে রকম সময়েই এই ছবিটি তোলা হয়। বয়স্ক মানুষদের হাতে আমাদের পতাকা দেখা যাচ্ছে।" যদিও বিন্দু ছবিতে যে মহিলাকে দেখা যাচ্ছে তিনি বনসল কি না, বা ছবির শিখ পুরুষরা কারা, তা নিশ্চিত ভাবে বলতে পারেননি, কিন্তু তিনিই নিশ্চিত ভাবেই জানিয়েছেন যে ছবিটি সম্প্রতি চলা কৃষক প্রতিবাদের ছবি নয়।

বুমের বিস্তারিত তথ্য যাচাই পড়ুন এখানে

ছবিতে যাদের মুখ চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছে বুম নিজে স্বতন্ত্রভাবে তাদের পরিচয় জানতে পারেনি।

আরও পড়ুন: কৃষক বিক্ষোভ: ২০১৮ সালে মহারাষ্ট্রে আয়োজিত 'লং মার্চের' ছবি ফিরে এল

Updated On: 2020-12-11T11:56:07+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি শহিন বাগের বিকেইউ সদস্যরা
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story