মালয়েশিয়ার একটি দোকানে ছাতা পড়া চর্ম সামগ্রী ভারতের বলে ভাইরাল হল

বুম দেখে ছবিটি মালয়েশিয়ার রিটেল স্টোর চেইন মেট্রোজয়ার।

জুতো, ব্যাগ ও জ্যাকেট প্রভৃতি চর্ম সামগ্রীর উপর ছাতা পড়া এক সেট মালয়েশিয়ার ছবি ভারতের বলে ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে, ছবিগুলি শেয়ার করার উদ্দেশ্য হল নষ্ট হয়ে-যাওয়া জিনিসের প্রতি সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করা, যাতে লকডাউনের পর কেউ মলে গিয়ে কেনাকাটা না করেন।

ভারতে চতুর্থ দফার লকডাউন যখন ৩১ মে প্রযর্ন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে, সেই সময়ে এই ছবিগুলি শেয়ার করা হচ্ছে। ১২ মে, জাতির উদ্দেশ্যে এক ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী চতুর্থ দফা লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছিলেন।

ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে, একটি দোকানে সাজিয়ে রাখা পার্স, বেল্ট ও জুতোয় ছাতা আর ধুলো পড়ে গেছে। ছবিগুলি ভারতে শেয়ার করা হচ্ছে আর লকডাউন উঠে যাওয়ার পর এক মাস মলে গিয়ে কেনাকাটা না করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে ক্যাপশনে। কিন্তু তাতে বলা হয়নি যে, ছবিগুলি মালয়েশিয়ার। ক্যাপশনে আরও বলা হয়েছে যে, মলের বাতাস নিঃশ্বাসের অসুবিধে সৃষ্টি করতে পারে কারণ এয়ারকন্ডিশনারের হাওয়া ছড়ানোর ভেন্টগুলিতে ছত্রাক জমা হয়ে থাকতে পারে।

টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

সাংবাদিক রোহিনী সিং ওই পোস্টের পরিপ্রেক্ষিতে টুইট করে বলেন যে, লকডাউন সম্পর্কে আগাম খবর দিলে, দোকানগুলি তাদের সামগ্রী সুরক্ষিত রাখতে পারতো।

সিং পরে অবশ্য তাঁর টুইটটি ডিলিট করে দেন।

ফেসবুকে ভাইরাল

আমরা ওই ক্যাপশনটি দিয়ে ফেসবুকে সার্চ করি। দেখা যায়, ওই একই ছবি সহ ছবিগুলি ফেসবুকেও ভাইরাল হয়েছে।

আরও পড়ুন: পরিবার নিয়ে এক পায়ে সাইকেল চালানোর ভিডিওটি লকডাউনের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়

তথ্য যাচাই

ছবিটির রিভার্স ইমেজ সার্চ করলে কিছু প্রতিবেদন আমাদের সামনে আসে। সেখানে বলা হয় ছবিগুলি মালয়েশিয়ার সাবাহ'র একটি বিক্রয় কেন্দ্রে তোলা। মালয়েশীয় সরকারের 'মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার'-এর মেয়াদ শেষে দোকান খুলে কর্মীরা দেখেন যে, মালপত্রে ছাতা পড়ে গেছে এবং অনেক জিনিস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ১৮ মার্চ নভেল করোনাভাইরাসের অতিমারি রুখতে মালয়েশীয় সরকার নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রি করে না এমন সব দোকানের ক্ষেত্রে 'মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার' (চলাচল নিয়ন্ত্রণ আদেশ) জারি করে। ৪ মে ২০২০ থেকে অনেক বিধি নিষেধ শিথিল করে দেওয়া হলে, দোকানপাট আবার ব্যবসা শুরু করার জন্য খোলে।

প্রতিবেদনগুলিতে বলা হয়, ঘটনাটি সুরিয়া সাবাহ'র মেট্রোজয়া দোকানে ঘটে। এবং সংস্থাটির অভ্যন্তরীণ ব্যবহারের জন্য ছবিগুলি তোলেন তাঁদেরই এক কর্মী।

বুম দেখে ওই বিপণন কেন্দ্রটি নিজেদের ফেসবুক পেজে ঘটনাটি ও ছবিগুলির কথা স্বীকার করে একটি বিবৃতি দিয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "জিনিসগুলির ওই অবস্থা হওয়ার নানা কারণ আছে। আমরা ব্যাপারটা তদন্ত করে দেখছি। নষ্ট হয়ে যাওয়া সব দ্রব্য আমরা সরিয়ে দিয়েছি এবং নতুন দ্রব্য নিয়ে এসেছি।"

সংস্থাটি আরও অনেক ছবি আর ভিডিও পোস্ট করে। তাতে ১৩ মে ২০২০ খোলার আগে কর্মীদের দোকানটিকে পরিষ্কার ও জীবাণু মুক্ত করতে দেখা যাচ্ছে।

মালয়েশিয়ায় কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ ঠেকাতে যে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছিল, সেগুলি ৪ মে ২০২০-তে শিথিল করা হয়। তার ফলে বেশির ভাগ ব্যবসা আবার চালু হয়। মালয়েশিয়ার শিখিল-করা লকডাউন ১২ মে, ২০২০ শেষ হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অর্থনৈতিক কাজকর্ম চালু রেখেও তার মেয়াদ এখন ৯ জুন ২০২০ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তার ফলে, দেশের সীমান্ত এবং স্কুলগুলি বন্ধ থাকবে।

আরও পড়ুন: ট্রেনের দুটি কামরার মাঝে বাচ্চা কোলে মহিলার সফরের ভিডিওটি ভারতের নয়

Updated On: 2020-05-17T21:30:12+05:30
Claim Review :   ছবি দেখায় ভারতের মলগুলিতে লকডাউনের করণে চর্ম সামগ্রীতে ছাতা পড়ে গেছে
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story