বিজেপি কর্মীরা মুসলিম মহিলাদের ভেক ধরেছে বলে ছড়ালো সম্পর্কহীন ছবি

বুম দেখে ভাইরাল হওয়া ছবিগুলি পুরানো ও দুটি ভিন্ন জায়গার—একটি ছবি মিশরের এক ছেলেধরার, অপরটি ইন্দোরের কানওয়ার যাত্রীদের।

সোশাল মিডিয়ায় দুটি বিভিন্ন জায়গার সম্পর্কহীন ঘটনাক্রমের তিনটি ছবি বিভ্রান্তিকর দাবি সহ শেয়ার করা হচ্ছে। ফেসবুক পোস্টে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে, বিজেপি রাজনৈতিক দলের তরফে এক পুরুষ ও কিছু মহিলাদের বোরখা পরিয়ে মুসলিম সাজানো হয়েছে।

ফেসবুক পোস্টের প্রথম ছবিতে এক পুরুষকে কাঁচুলি পরে মাথায় বিশেষ ইসলামিক মহিলাদের পোষাক পরে মহিলা সাজতে দেখা যাচ্ছে। বক্ষাবরণ এর পোশাক অনাবৃত দেখা যাচ্ছে ওই জিন্স পরিহিত যুবকের।

দ্বিতীয় ছবিতে এক দল কালো বোরখা পরিহিত মহিলাকে অন্যন্য গৈরিক পরিধানের ব্যক্তিদের সঙ্গে কাঁধে বাঁক নিয়ে জলের কলস বহন করতে দেখা যাচ্ছে। তৃতীয় ছবিটি দ্বিতীয় ছবিরই জুম করা অংশ। ছবিদুটি পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে পর্যবেক্ষণ করলেই তা বোঝা যায়।

ফেসবুক পোস্টটি সম্ভবত কোনও পুরনো ফেসবুক পোস্টের স্ক্রিনশট। পোস্টিতে ক্যাপশনে লেখা আছে, "বিজেপি মানেই ভারতীয় জালিয়াত পার্টি... পার্টির (বিকৃত) হিন্দু ক্যাডারদের নকল স্তন লাগিয়ে বোরখা পরিয়ে মুসলিম মহিলা সাজিয়ে মিছিল করাচ্ছে। এর চেয়ে নিম্নস্তরের কোনো রাজনৈতিক দল হতে পারে?

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম ক্যাপশন সার্চ করে একই বয়ানের পুরনো পোস্টটি খুঁজে পেয়েছে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে


আরও পড়ুন: মিথ্যে: জাপানি নোবেল বিজয়ী তাসুকু হঞ্জো বলেছেন সার্স-কভ-২ মানুষের তৈরি

তথ্য যাচাই

বুম রিভার্স সার্চ করে জানতে পারে ছবি দুটির একটিতেও কেউ মুসলিম সাজেনি যেমনটি ফেসবুক পোস্টে ভুয়ো দাবি করা হয়েছে। নীচে ছবিগুলি খণ্ডন করা হল।

বোরখা পরা পুরুষ

বোরখা পরা পুরুষের ছবিটি মিশরের। ২০১৭ সালের অগস্ট মাসে মিশরে ছেলেধরার অভিযোগে লোকটিকে গ্রেপ্তার করা হয়। মহিলা সেজে সে ওই কাজ করত। স্থানীয় মানুষ কায়রোর নর্থ ৯০ স্ট্রিটে, ফান সিটির ৮ নম্বর গেটের কাছে অবস্থিত একটি মলের মধ্যে তাকে পাকড়াও করে। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

ছবিটি ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে ভুয়ো দাবি সহ ভাইরাল হয়েছিল। ভুয়ো ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হয়েছিল ছবির ব্যক্তিটি দিল্লিস্থিত জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ব বিদ্যালয়ের ছাত্র। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাশের বিরুদ্ধে সে সময় সারাদেশে ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-বিক্ষোভের আঁচ ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিতে ক্যাম্পাসের ভিতরে প্রবেশ করে। বুম ছবিটিকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে তথ্য যাচাই করেছিল। বিস্তারিত প্রতিবেদনটি পড়া যাবে এখানে

মুসলিম কানওয়ার যাত্রী

ভাইরাল ফেসবুক পোস্টের অপর দুটি ছবি অর্থাৎ কালো বোরখা পরে মুসলিম মহিলাদের কাঁধে বাঁক নিয়ে জলের পাত্র নিয়ে হেঁটে যাওয়ার ছবিটি মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের। ২০১৫ সালের একটি সর্বধর্মের সৌহার্দ্যপূর্ণ কানওয়ার যাত্রায় অংশ নিয়ে ছিলেন তাঁরা। শৈব উপাসকরা প্রতি বছর শ্রাবন মাসে কানওয়ার যাত্রায় বের হন। ভাইরাল ছবিটি দেখা যাবে ২০১৭ সালের ১৩ জুলাই প্রকাশিত নিউজট্রেন্ড নামের একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে

ওই প্রতিবেদনটিতে হিন্দিতে শিরোনাম লেখা হয়েছিল: "শ্রাবণ বিশেষ: যখন মুসলিম মহিলারা কানয়ারী যাত্রা বের করলেন, জানুন তারপর কী হল...!" (মূল হিন্দি শিরোনাম - "सावन विशेष : जब मुस्लिम महिलाओं ने निकाली कांवड़ यात्रा, जानिये फिर आगे क्या हुआ ..!")

নিউজট্রেন্ড-এর প্রতিবেদনে রয়েছে ছবিটি

ছবিটির ক্যাপশন লেখা আছে, "ইন্দোরে মসুলিম মহিলারা কানওয়ার বের করেছেন" (মূল হিন্দি ক্যাপশন: "इंदौर में मुस्लिम महिलाओं ने निकाला कांवड़")

ইন্দোরের সর্বধর্মের কানওয়ার যাত্রা নিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস-এর প্রতিবেদন পড়া যাবে এখানে

আরও পড়ুন: লকডাউনে আবার ফিরে এল, ২০১৪'র 'অব কি বার মোদী সরকার' ছাপ-মারা রুটির ছবি

Updated On: 2020-04-29T14:33:56+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি বিজেপি পুরুষ ও মহিলাদের মুসলিম সাজিয়েছে
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story