মুম্বইয়ের ভিডিওকে বলা হল ইন্দোরে ডাক্তার হামলার জেরে পুলিশি প্রত্যাঘাত

বুম দেখে ভিডিওটি থানের মুম্ব্রাতে তোলা এবং ইন্দোরের ঘটনার সঙ্গে এটির কোনও সম্পর্ক নেই।

এক দল লোকের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জের একটি ভিডিও এই মিথ্যে দাবি সহ ভাইরাল হয়েছে যে, মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর শহরে ১ এপ্রিল ২০২০ ডাক্তারদের ওপর হামলা করার জন্য প্রত্যাঘাত করছে পুলিশ। ডাক্তার সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনা-আক্রান্তদের চিহ্নিত করতে বেরলে তাঁরা হামলার মুখে পড়েন। বুম দেখে, ভাইরাল ভিডিওটিতে যে ঘটনা দেখানো হচ্ছে, সেটি থানের কাছে মুম্ব্রাতে ২৭ মার্চ ঘটেছিল এবং ইন্দোরের সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক নেই।

হিন্দি ক্যাপশনে বলা হয়, "মামা রেগে আগুন...ইন্দোর, এমপি। সেই একই জায়গা যেখানে ডাক্তারদের ওপর হামলা হয়।" মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানকে স্থানীয়রা ভালবেসে 'মামা' বলে সম্বোধন করে থাকেন।

(হিন্দি ক্যাপশন: मामा ऑन फ़ायर... इंदौर एमपी | वही मोहल्ला है जंहा डॉक्टरों पे हमला हुआ था)

১ এপ্রিল, ডাক্তার ও মিউনিসিপ্যালিটির কর্মীরা ইন্দোরের তাতপট্টি বাখাল এলাকায় করোনাভাইরাস-আক্রান্ত ব্যক্তিদের শনাক্ত করতে গেলে, স্থানীয়রা তাঁদের ওপর হামলা করেন। সম্প্রতি ইন্দোরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঘটনা বেড়েছে। খবরে প্রকাশ, ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িত এমন সাতজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

আরও পড়ুন: পুলিশের গায়ে থুতু ছেটানোর ভিডিওটির সঙ্গে কোভিড-১৯ এর কোনও সম্পর্ক নেই

ভাইরাল ভিডিওটি নীচে দেখা যাবে। টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ভিডিওটি বিভিন্ন ফেসবুক পেজ ও টুইটারে হয়েছে।


তথ্য যাচাই

ভিডিও ক্লিপটির একটি প্রধান ফ্রেম নিয়ে বুম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে। তার ফলে ২৮ মার্চ ২০২০-তে ইউটিউবে আপলোড হওয়া একটি ভিডিও সামনে আসে। সেখানেও ওই একই ঘটনা দেখানো হয়।

ওই ভিডিওটির সঙ্গে হিন্দিতে দেওয়া বিবরণে বলা হয়েছে, "দু'টি বিবাদমান গোষ্ঠীকে লাঠিপেটা করছে পুলিশ আর সেই দৃশ্য দেখছেন পথচারিরা।" ভিডিওটির সঙ্গে দেওয়া হ্যাসট্যাগের একটি হল মুম্ব্রা পুলিশের। তাই দেখে বুম মুম্ব্রা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করলে, তাঁরা জানান যে, তাঁদের এলাকাতেই ঘটনাটি ঘটে ছিল।

"ঘটনাটির সঙ্গে লকডাউনের কোনও সম্পর্ক নেই। ওটা ছিল দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ লাঠি চালায়,'' একজন পুলিশ কর্তা বুমকে বলেন। পুলিশ আরও জানায় যে, ঘটনাটি ঘটে মুম্ব্রা শহরের কৌসা অঞ্চলের শ্রীলঙ্কা এলাকায়।

বুম একজন স্থানীয় রিপোর্টারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে, উনি আরও তথ্য দেন। উনি একটি ইউটিউবের ভিডিও শেয়ার করেন, যেটি ভাইরাল ক্লিপটির একটি বড় সংস্করণ।


ওই ভিডিওটি অনুযায়ী, ২৭ মার্চ কৌসা অঞ্চলের শ্রীলঙ্কা এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। দুই রাজনৈতিক নেতার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধলে, পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে। এক দল দাবি করে অবৈধ নির্মানের কারণে সংঘর্ষ বাধে আর অপর দল বলে লকডাউনের সময় খাবার বিতরণ করাকে কেন্দ্র করে রেষারেষি থেকেই গন্ডগোলের সূত্রপাত।

ভিডিওটিতে ঘটনাটি বিস্তারিত দেখানো হয়।

বুম ইন্দোরের ঘটনার ভিডিওগুলিও খুঁটিয়ে দেখে। দেখা যায়, দু'টি ভিডিওতে যে জায়গা দেখানো হয়েছে, সেগুলি সম্পূর্ণ আলাদা।

Claim Review :  ভিডিও দেখায় ইন্দোর পুলিশের প্রত্যাঘাত যারা কোরানাভাইরাস পরীক্ষা করতে যাওয়া ডাক্তারদের উপর হামলা করেছিল
Claimed By :  Facebook Pages & twitter users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story