গোয়ালিয়রে শিশু-কোলে মহিলাদের মারধরের ভিডিও দিল্লির ঘটনা বলে জিইয়ে উঠল

বুম খুঁজে পায় ভিডিওটি অন্তত ৪ বছরের পুরনো। ২০১৯ সালের মে মাসে ভিডিওটি ভাইরাল হলে গোয়ালিয়র রেল পুলিশের ওই অপকর্ম সবার সামনে আসে।

গোয়ালিয়র রেল পুলিশের শিশু-কোলে মহিলাদের মারধরের পুরনো ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় দিল্লি পুলিশের অত্যাচারের সাম্প্রতিক নিদর্শন বলে ছড়ানো হচ্ছে। মূল ভিডিওটি ২০১৯ সালের মে মাসে ভাইরাল হয়েছিল। তবে গোয়ালিয়র রেল পুলিশ জানায় ভিডিওটি আরও দু'বছরের পুরনো।

দিল্লিতে ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহের দাঙ্গায় নিহতের সংখ্যা ৫০ ছড়িয়েছে। আহত প্রায় দুই শতাধিক। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে রাজনৈতিক তরজা শুরু হওয়ায় এই ভিডিওটি ভুয়ো খবরে আরও ইন্ধন যোগাচ্ছে। অনেকই সত্যি ঘটনা ভেবে ভিডিওটিকে সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন।

৪৩ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে দেখা যায় তিনজন মহিলা একটি ঘরের মেঝেই বসে রয়েছে। তাদের কোলে শিশু রয়েছে। একজন পুলিশ তাদের বেত্রাঘাত করছে, সে দৃশ্য দরজাতে দাঁড়িয়ে দেখছে আরও তিনজন পুলিশ কর্মী।

ফেসবুক পোস্টে ভিডিওটির ক্যাপশন লেখা হয়েছে, ''দিল্লি পুলিশের অবস্থা দেখুন! হে আল্লাহ তুমি ভারতের সকল মুসলমানদের হেফাজত করুন।''

এরকম দুটি ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে


একই বয়ানে ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ফেসবুকে ভাইরাল

ফেসবুক সার্চের ফলাফল।

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটির কয়েকটি মূল ফ্রেম সার্চ করে জানতে পারে ভিডিওটি মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রের। ২০১৯ সালের মে মাসে ভিডিওটি ভাইরাল হলে গোয়ালিয়র রেল পুলিশ জানায় ভিডিওটি ২ বছরের পুরনো। এব্যাপারে বিস্তারিত প্রতিবেদন পড়া যাবে আনন্দবাজার এনডিটিভির প্রতিবেদনে।


ভিডিওটি ভাইরাল হলে নিন্দার ঝড় ওঠে। ভিডিওটিতে বেত্রাঘাত করা ওই পুলিশ আধিকারিকের নাম সুভাষ মিশ্র।

জিআরপি এসপি মনীষ অগ্রবাল ঘটনাটি স্বীকার করে জানায়—পুলিশ কনস্টেবল সুভাষ মিশ্রের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। ওই ঘটনাটি নিয়ে আইবিটাইমসের প্রতিবেদনের ইউটিউব ভিডিওটি নীচে দেখা যাবে।

Updated On: 2020-03-08T20:25:34+05:30
Claim Review :   ভিডিওর দাবি দিল্লি পুলিশে শিশু কোলে মহিলাদের মারধর করছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story