আদানি-উইলমার-এর বিজ্ঞাপন লাগানো ট্রেনের ভিডিও ভুয়ো দাবি সহ ভাইরাল

আদানি-উইলমার বিজ্ঞাপনটি হল ট্রেনের ইঞ্জিন ব্র্যান্ডিং প্রয়াসের অঙ্গ, যা থেকে রেলের আয় হয়।

আদানি উইলমার-এর বিজ্ঞাপন লাগানো একটি ট্রেনের ইঞ্জিনের ভিডিও মিথ্যে দাবি সমেত ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে যে, গৌতম আদানি পরিচালিত আদানি গ্রুপ ভারতীয় রেল কব্জা করে নিয়েছে। আদনি উইলমার হল একটি খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুতকারক কম্পানি।আদানি উইলমার-এর বিজ্ঞাপন লাগানো একটি ট্রেনের ইঞ্জিনের ভিডিও মিথ্যে দাবি সমেত ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে যে, গৌতম আদানি পরিচালিত আদানি গ্রুপ ভারতীয় রেল কব্জা করে নিয়েছে। আদনি উইলমার হল একটি খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুতকারক কম্পানি।

ভিডিওটিতে একটি ডাব্লিউএপি-৭ ইঞ্জিন দেখা যাচ্ছে। সেটির স্টেশন কোড হল ভদোদরা। ক্যামেরা প্যান করে ইঞ্জিনটির একটি পাশের অংশ দেখানো হয়। সেখানে আদানি উইলমার নামটি লেখা রয়েছে আর তার গা ঘেঁষে রয়েছে সাফোলা আটার বিজ্ঞাপন।
আদানি উইলমার হল একটি যৌথ উদ্যোগ। আদানি গ্রুপ ও সিঙ্গাপুরের কৃষি পণ্যের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান উইলমার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড যৌথ উদ্যোটি তৈরি করে্ছে। আদানি উইলমার প্রধানত ভোজ্য তেল ও খাদ্য শস্য নিয়ে ব্যবসা করে।
বর্তমানে, দিল্লিতে যে কৃষক আন্দোলন চলছে, তারই পটভূমিতে শেয়ার করা হচ্ছে ভিডিওটি। কৃষকদের অভিযোগ যে, নতুন কৃষি আইন কৃষি ও বিপননের ক্ষেত্রে কৃষকদের স্বার্থের বিনিময়ে, আদানি ও আম্বানিদের মত বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলিকে সুবিধে করে দেবে।
ভিডিওটির সঙ্গে দেওয়া ক্যাপশনে বলা হয়েছে, "আদানি বিমানবন্দর...আদানি বন্দর...আদানি বিদ্যুৎ...আদানি কোল ইন্ডিয়া...আদানি রেল.."
পোস্টটির আর্কাইভ এখানে দেখা যাবে।
একই ধরনের একটি পোস্টের আর্কাইভ দেখা যাবে এখানে
কৃষকদের আন্দোলনকেও জুড়ে দেওয়া হয়েছে একটি পোস্টে। সেটির ক্যাপশনে দাবি করা হয়েছে, "ভারতীয় রেলে, আদানির তাজা আটার বিজ্ঞাপন দেখার মতো। এখন আমরা বলতে পারি যে, কৃষকদের আন্দোলন সত্যের পথেই এগোচ্ছে।
(হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন: भारतीय रेल पर अदानी के फ़्रेश आटे का विज्ञापन देखने लायक़ हैं। अब तो दावे के साथ कह सकते है की किसानों की लड़ाई सत्य के मार्ग पर हैं।)
পোস্টটির আর্কাইভ এখানে দেখুন।
একটি একই ধরনের পোস্টের আর্কাইভ দেখুন এখানে

কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গাঁধী বঢরাও তাঁর ফেসবুক পেজ থেকে ভিডিওটি শেয়ার করেন। (আর্কাইভ দেখতে এখানে ক্লিক করুন)।

গুজরাট কংগ্রেসের সভাপতি হার্দিক প্যাটেলও একই ভিডিও টুইট করেন। আর ক্যাপশনে বলেন, "ভারতীয় রেলে আদানির আটার বিজ্ঞাপন দেখিয়ে দিচ্ছে যে, কৃষকদের আন্দোলন ঠিক পথেই এগোচ্ছে। প্রিয়াঙ্কা গাঁধী বঢরা পরে টুইটটি রিটুইট করেন।
(হিন্দিতে লেখা আসল ক্যাপশন: भारतीय रेल पर अदानी के फ़्रेश आटे का विज्ञापन देखने लायक़ हैं। अब तो दावे के साथ कह सकते है की किसानों की लड़ाई सत्य के मार्ग पर हैं।)
টুইটটির আর্কাইভ
এখানে
দেখুন।
একই ধরনের ক্যাপশন সমেত টুইটের আর্কাইভ এখানেএখানে দেখুন।
যাচাই করার জন্য বুমের হেল্পলাইনেও আসে ভিডিওটি।

তথ্য যাচাই

ভিডিওটিতে ইঞ্জিনের নম্বরটি ছিল ডাব্লিউএপি৭ ৩০৫০২। কি-ওয়ার্ড 'আদানি ডাব্লিউএপি৭ ইঞ্জিন' দিয়ে সার্চ করলে, আমরা ইঞ্জিন ব্র্যান্ডিংযের ওপর একটি লেখা দেখতে পাই।তাতে বলা হয়, ব্র্যান্ডিং হল ট্রেনের ইঞ্জিন ও কামরায় বিজ্ঞাপন দেওয়ার একটি উপায়, যার মাধ্যমে রেল কিছুটা অর্থ উপার্জন করে।
ফিন্যানশিয়াল এক্সপ্রেস-এ প্রকাশিত একটি রিপোর্টে বলা হয়, রেলের গুজরাট ডিভিশনের ভদোদরা, ইঞ্জিনে বিজ্ঞাপন বাবদ বছরে ৭৩.২৬ লক্ষ টাকা আয় করে। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০তে, বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য আদানিরা প্রো-রাটা ভিত্তিতে ৫টি ডাব্লিউএপি-৭ ইঞ্জিন পায়।
ভারতীয় রেলের তৈরি এই ভিডিওতে বিভিন্ন ইঞ্জিনের ওপর বিজ্ঞাপন দেখা যাচ্ছে। ঠিক যেমনটি দেখা যাচ্ছে ভাইরাল ভিডিওটিতে।

আদানি উইলমার ওয়েবসাইটে একটি প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আদানি ও ফরচুন-এর বিজ্ঞাপন লাগানো ট্রেন ইঞ্জিনগুলি ভদোদরা স্টেশন থেকে তাদের যাত্রা শুরু করেছে। এবং সেগুলির স্টেশন কোড হল 'বিআরসি'। ভাইরাল ভিডিওটিতেও আমরা একই স্টেশন কোড দেখতে পাই।

সরকারের তথ্য যাচাই করার সংস্থা পিআইবি ফ্যাক্ট চেক টুইট করে বলে যে, ভিডিওটিতে যা দাবি করা হয়েছে তা মিথ্যে।
"এই দাবিটি বিভ্রান্তিকর। এটা নেহাতই একটা ব্যবসায়িক বিজ্ঞাপন। ট্রেন ভাড়া ছাড়াও আয় বৃদ্ধি করাই এর লক্ষ্য," পিআইবি ফ্যাক্ট চেক-এর হিন্দি টুইটে বলা হয় এ কথা।
Claim Review :   পোস্ট দাবি করে শিল্পপতি আদানি ভারতীয় রেল কিনে নিয়েছে
Claimed By :  Social Media Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story