না, Pfizer-এর Covid-19 ভ্যাকসিন এরকম দেখতে নয়

ফাইজার-এর ভ্যাকসিনের দু'টি ডোজ আছে এবং তা ইনজেকশনের মাধ্যমে নিতে হয়, নাক দিয়ে নিশ্বাসের সঙ্গে নয়।

মজা করার জন্য তৈরি করা ছবিতে ফাইজার-এর (pfizer) করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনকে (vaccine) ই-সিগারেটে ব্যবহৃত একটি ভেপোরাইসিং কার্ট্রিজ বা 'ভেপ' হিসেবে দেখানো হয়েছে। ছবিটি এখন সোশাল মিডিয়ায় ছড়াচ্ছে এবং অনেকেই মনে করছেন ছবিটি আসল।

ছবিটিতে ই-সিগারেটের একটি ভেপোরাইজিং কার্টরিজকে ফাইজার-এর ভ্যাকসিনের বাক্সের মধ্যে দেখানো হয়েছে। তবে সেই বাক্সে এমন সব চিহ্ন আছে যা থেকে বোঝা যায় যে, সেটি ফাইজার-বায়োএনটেক-এর কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের প্যাকেট নয়।

এমনকি ফাইজার রয়টর্সকে জানিয়েছে যে, ওই ছবিটি ভুয়ো।

যদিও ছবিটি মজা করার জন্যই তৈরি করা হয়, কিন্তু অনেক সোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারী জানতে চান যে, ভ্যাকসিনটি সত্যিই চিনে প্রস্তুত করা হয়েছে কিনা। কারণ, তেমনটাই লেখা আছে ওই ছবির প্যাকেটে।

ছবিটি প্রথম শেয়ার করা হয় ১৯ ডিসেম্বর। বেশ কিছু ভারতীয় সোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারীও ছবিটি শেয়ার করেন। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে, ফাইজার ভরতের ড্রাগ কন্ট্রোলারকে তাদের ভ্যাকসিন সম্পর্কে এখনও কোনও তথ্য দেয়নি, যদিও আপতকালীনভাবে সেটি ব্যবহার করার জন্য আবেদন করা হয়েছে।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী বিশ্বাস করে বসেন যে, এটাই কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন। তাঁর লেখা ক্যাপশনে বলা হয়, "তৈরি হও! করোনার ওষুধ এসে গেছে।"

আরও পড়ুন: বাবুল সুপ্রিয়র পর দল বদলের ভুয়ো খবরের শিকার সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়

তথ্য যাচাই

ছবিতে যে মোড়কটি দেখা যাচ্ছে, সেটিতে তিনটি ভুল আছে। সেগুলি থেকে বোঝা যায় যে, ওটি একটি ভুয়ো বস্তু, ভ্যাকসিন নয়।

প্রথমত, ফাইজার-এর লোগোর নীচে লেখা আছে, 'মেকারস অফ বোনার পিল' (যৌন উত্তেজক ওষুধ প্রস্তুতকারক)। ঠিকই যে ফাইজার 'ভায়েগ্রা' তৈরি করে, কিন্তু তা ওই কম্পানির ব্র্যান্ডিংয়ের কাজে ব্যবহার করা হয় না। ওই লেখাটি থেকে বোঝা যায় যে, ওই বস্তুটি ফাইজার-এর নয়।

দ্বিতীয়ত, প্যাকেটটির ওপর লেখা আছে, 'মেড ইন চায়না'। ভ্যাকসিনটি ফাইজার ও বায়োএনটেক যৌথ ভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি করেছে। তৃতীয়ত, প্যাকেটে লেখা আছে যে, ভ্যাকসিনটির একটাই ডোজ। কিন্তু ফাইজার-এর ভ্যাকসিনটিতে দু'টি ডোজ আছে। প্রথম ডোজটি দেওয়ার ২১ দিন পরে দ্বিতীয় ডোজটি দিতে হয়।

তাছাড়া ফাইজারের ভ্যাকসিনটি শরীরের পেশির মধ্যে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে দিতে হয়। ছবিতে যে বস্তুটিকে দেখানো হয়েছে, সেটি হল ই-সিগারেটের কার্টরিজ। সেটির 'ভেপার' বা বাষ্প নিশ্বাসের সঙ্গে নেওয়া হয়।

বুম ভারতে ফাইজার-এর প্রতিনিধির সঙ্গে যোগাযোগ করে। তিনি রয়টর্সকে দেওয়া ফাইজার-এর বিবৃতির প্রতি আমাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। একটি ই-মেল বিবৃতিতে ফাইজার রয়টার্সকে জানায় যে, ভেপরাইজার কার্ট্রিজের ছবিটি ভুয়ো।

ফাইজার-এর ভ্যাকসিন সম্পর্কে সোশাল মিডিয়ায় মিথ্যে প্রচার এই প্রথম নয়। এর আগে বলা হয়েছিল, ভ্যাকসিনটি মহিলাদের মধ্যে বন্ধ্যাত্ব সৃষ্টি করতে পারে। আবার এও বলা হয় যে, ওই ভ্যাকসিনের মধ্যে দিয়ে মানুষের শরীরে ন্যানো কম্পিউটার ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। এবং তার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি সম্পর্কে সব তথ্য তুলে নেওয়া যাবে।

আরও পড়ুন: অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবার মৃত্যুর খবর ভুয়ো

Updated On: 2020-12-30T13:30:57+05:30
Show Full Article
Next Story