না, ভাইরাল ছবিটি নির্মীয়মান রাম মন্দিরের নয়

বুম দেখে ছবিটি বরাণসীতে কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের করিডোর নির্মাণ প্রক্রিয়ার।

একটি নির্মাণ কাজের ছবি এই মিথ্যে দাবি সমেত শেয়ার করা হচ্ছে যে, সেটি অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির ছবি।

বুম দেখে, উত্তরপ্রদেশের বরাণসীতে কাশি বিশ্বনাথ করিডোর প্রকল্পের অন্তরগত একটি নির্মাণ কাজের ছবি সেটি। অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরি ও তার পরিচালনার জন্য শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র নামের একটি ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে। বুম সেই ট্রাস্টের এক সদস্যের সঙ্গে যোগাযোগ করলে উনি বলেন, রাম মন্দিরের নির্মাণ কাজ সবে শুরু হয়েছে এবং সেখানে কোনও কাঠামো এখনও খাড়া করা যায়নি।

রাম মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠান এ বছর ৫ অগস্ট অযোধ্যায় আয়োজিত হয়।

পোস্টটির সঙ্গে দেওয়া হিন্দি ক্যাপশনে বলা হয়েছে, "অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের এটি প্রথম ছবি। ভক্তিভরে একবার জয় শ্রীরাম বলুন।"

(হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন: अयोध्या प्रभु श्री राम जी की मंदिर निर्माण का पहला तस्वीर है। तो एक बार सच्चे दिल से आप #जय_श्री_राम बोल दे।)

একই ছবি বাংলা ক্যাপশন দিয়েও ফেসবুকে পোস্ট করা হয়েছে।

ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "অযোধ্যায় ভগবান শ্রী রাম মন্দির নির্মাণের প্রথম চিত্র। যে ভাই বোনরা দেখে খুশি, একবার আপনি আন্তরিক হৃদয় দিয়ে #জয়_শ্রীরাম বলুন।#জয়_শ্রীরাম"
পোস্টটি দেখা যাবে এখানে
ও আর্কাইভ করা আছে এখানে
ছবিটি একাধিক টুইটার হ্যান্ডেল ও ফেসবুক পেজ থেকে শেয়ার করা হয়।

পোস্টগুলি দেখা যাবে এখানে; আর্কাইভ দেখুন এখানেএখানে



ওই একই ছবি টুইটারেও ভাইরাল হয়েছে।

বুম ছবিটির রিভার্স ইমেজ সার্চ করলে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি রিপোর্টে ওই একই ছবি রয়েছে।

৩০ অক্টোবর ২০২০তে, হিন্দুস্থান টাইমস-এ প্রকাশিত এক রিপোর্টে ওই একই ছবি ব্যবহার করা হয়। বলা হয়, কাশি বিশ্বনাথ মন্দিরের প্রধান কমপ্লেক্সে নির্মাণের ছবি সেটি। আসল ছবিটির জন্য 'এইচটি ফটো'কে ক্রেডিট দেওয়া হয়।


রিপোর্টটিতে বলা হয় যে, আগামী বছর অগস্ট মাসের মধ্যে কাশী বিশ্বনাথ করিডোর প্রকল্পটি শেষ করার জন্য জোর কদমে কাজ চলছে। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে, কাশী বিশ্বনাথ মন্দির চত্বর আরও বড় ও সুন্দর করে তোলার জন্য ওই প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়।

আমরা রাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টের সদস্য অনিল মিশ্রর সঙ্গে যোগাযোগ করি। মিশ্র বলেন, "রাম মন্দিরের কাজ হচ্ছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেবল ভিত খোঁড়ার কাজটাই হয়েছে।"

আমরা পঞ্জাব কেশরি কাগজের স্থানীয় সংবাদদাতা অভিষেক সাওয়ান্ত-এর সঙ্গে যোগাযোগ করি। তিনি বুমকে বলেন, রাম মন্দির যেখানে তৈরি হবে, সেখানে এখন পিলার বসানর জন্য ড্রিলিংয়ের কাজ হচ্ছে। "রাম মন্দির তৈরি হতে অনেক সময় লাগবে," বলেন সাওয়ান্ত।

ভাইরাল ছবিগুলি সম্পর্কে জানতে ছাইলে, সাওয়ান্ত বলেন, "সরকারি আধিকারিক আর ট্রাস্টের সদস্যরা ছাড়া আর কাউকেই মন্দির নির্মাণ স্থলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। সংবাদ মাধ্যম যা খবর পাচ্ছে, তা সরকারের কাছ থেকেই পাচ্ছে।"

বুম মন্দির ট্রাস্টের টুইটার হ্যান্ডেলটি ভাল করে দেখে, কিন্তু সেটির টাইমলাইনে ওই রকম কোনও ছবি দেখতে পাওয়া যায় না।

মন্দির নির্মাণ সংক্রান্ত একটি টুইটে বলা হয় মন্দিরের জন্য খোদাই-করা পাথর কারখানা থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। কিন্তু ভাইরাল ছবিটির মতো কোনও ছবি তাতে শেয়ার করা হয়নি।

Updated On: 2020-11-02T19:06:33+05:30
Claim Review :   পোস্টের দাবি ছবিটি অযোধ্যায় নির্মীয়মান রাম মন্দিরের
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story