মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী গোপনে নন্দীগ্রামের দরগায় গিয়েছিলেন? না ঠিক নয়

বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে বিস্তারিত প্রতিবেদন লেখা হয়, কিন্তু উল্টো দাবি করা হচ্ছে—তিনি গোপনে মুসলিম দরগায় প্রার্থনা করেন।

নন্দীগ্রামের (Nandigram) এক দরগায় (dargah) পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) প্রার্থনা করার ভিডিও আবার শেয়ার করা হচ্ছে। দাবি করা হচ্ছে যে, সাম্প্রদায়িক প্রতিক্রিয়া এড়াতে উনি সেখানে গোপনে গিয়েছিলেন। কিন্তু বুম দেখে যে, ঘটনাটি সম্পর্কে সংবাদ মাধ্যমে বিস্তারিত লেখা হয়। এবং অফিসিয়াল হ্যান্ডেলগুলি থেকে সেটি সরাসরি দেখানও হয়।

ভিডিওটিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হাতজোড় করে থাকতে দেখা যায় আর অন্য একজন দরগায় প্রার্থনা করেন তাঁর হয়ে। পেছনে থেকে আল্লাহ ও আমিন ধ্বনি কানে আসে। এবং আসন্ন নির্বাচনে বাংলাতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাফল্য প্রার্থনা করেন ওই ব্যক্তি। ওই ভিডিওতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর কিছু পার্টি সদস্যও ছিলেন। তাঁরাও দরগায় প্রার্থনা করেন।

ভিডিওটি এই বক্তব্য সহ শেয়ার করা হচ্ছে যে, মুসলমানদের তোষণ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হিন্দুদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন।

ভিডিওটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

সোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা এই মিথ্যে দাবি করছেন যে, ভিডিওটি গোপন ক্যামেরায় তুলে প্রকাশ করে দেওয়া হয়। ক্যাপশনে বলা হয়, "মমতা দিদি...গতকাল নন্দীগ্রামে রাতের অন্ধকারে মুসলমানদর সঙ্গে প্রার্থনা করেন। আর দিনের বেলা আপনি হিন্দু ভাইদের সঙ্গে প্রতারণা করছেন। (এই ভিডিওটি লুকনো ক্যামেরা দিয়ে তোলা...এটিকে ভাইরাল করুন।)"

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ভিডিওটি টুইটারেও ভাইরাল হয়েছে। সেখানেও একই ধরনের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে 'অন্ধকারে প্রার্থনা' করার জন্য তাঁর উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

এরকম দুটি টুইট আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে


আরও পড়ুন: অসমে রাহুল গাঁধীর দেওয়া ভাষণের ছাঁটাই ভিডিও মিথ্যে দাবি সহ ভাইরাল

তথ্য যাচাই

বুম বাংলা কি-ওয়ার্ড দিয়ে ফেসবুকে সার্চ করে। তার ফলে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যাচাই করা ফেসবুক পেজে, ভাইরাল ভিডিওটির সঙ্গে মিলে যায় এমনই একটি লাইভ ভিডিও দেখতে পাওয়া যায়।

বাংলায় লেখা ক্যাপশন অনুযায়ী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৮ মার্চ ২০২১ ওই দরগায় যান।

সংবাদ সংস্থা এএনআই মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের দরগায় যাওয়া নিয়ে টুইট করে।

এর থেকে স্পষ্ট হয় যে, ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে প্রচারিত হয়েছিল, এবং সেটি কোনও গোপন ঘটনা ছিল না, যেমনটি ভাইরাল পোস্টে দাবি করা হয়েছে।

তাছাড়া বাংলা চ্যানেল ও ইরেজি সংবাদ মাধ্যমগুলি এ বিষয়ে খবর করে। আনন্দবাজার পত্রিকা (এবিপি নিউজ) এই নিয়ে একটি ফটো ফিচারও বানায়। তাতে দেখা যায়, নন্দীগ্রামে তাঁর মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্থানীয় মানুষের সঙ্গে কথা বলেন ও প্রথমে একটি মন্দির ও পরে একটি দরগায় যান। ৯ মার্চের পর থেকে উনি নন্দীগ্রামে যাওয়া শুরু করেন।

এ ছাড়াও 'মমতা ব্যানার্জি অ্যাট মাজার' (মাজারে মমতা বন্দ্যোপাধায়) এই শব্দগুলি দিয়ে আমরা গুগলে সার্চ করি। দেখা যায়, 'আজ তক' ও 'টাইমস নাও' প্রভৃতি সংবাদ মাধ্যমও ওই বিষয়ে খবর করে। এর দ্বারা প্রমাণ হয় ভিডিওটির দৃশ্য গোপনে তোলা নয়, যেমনটা ভাইরাল পোস্টে বিভ্রান্তিকর দাবি করা হয়েছে।


Claim Review :   ফাঁস হওয়া ভিডিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোপনে দরগায় যান পার্থনা করতে
Claimed By :  Facebook And Twitter Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story