লকডাউন কার্যকরী করতে কেনিয়া কি মাসাই জনগোষ্ঠীকে কাজে লাগিয়েছে? একটি তথ্যযাচাই

কোভিড-১৯ রুখতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যাপারে সচেতনতামূলক প্রচারের জন্য ভিডিওটি তৈরি করেন কেনিয়ার ইউটিউবার আরিসা নেলসন।

কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য কেনিয়ার একজন কৌতুকাভিনেতার ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় মিথ্যে দাবি সহ ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে লকডাউন বলবদ হওয়া সত্ত্বেও যে সব তরুন-তরুণীরা রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন, ওই কৌতুকাভিনেতা তাঁদের উদ্দেশ্যে চাবুক চালাচ্ছেন।

সোশাল মিডিয়ায় ওই ভিডিও এই দাবি সহ ছড়াচ্ছে যে, কেনিয়া সরকার লকডাউন অমান্যকারী জনসাধরণকে শায়েস্তা করার জন্য মাসাই জনগোষ্ঠীর লোকজনকে ব্যবহার করছে।

বুম কৌতুকাভিনেতা আরিসা নেলসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে। উনি বলেন, ভিডিওটি একমাত্র সচেতনতা সৃষ্টি করার জন্যই তৈরি করা হয়। কোভিড-১৯ অতিমারি ছড়িয়ে পড়ার পর অনেক দেশই ভাইরাসটির সংক্রমণ রুখতে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে।

আরও পড়ুন: খোলা জায়গায় ডিম ফুটে বেরিয়ে পড়েছে মুরগির বাচ্চা, এই ভিডিওটি ভারতের নয়

ভাইরাল ভিডিওটির ক্যাপশনে বলা হয়, "লকডাউন চালু করার পর কেনিয়ার সরকার মাসাই আদিবাসীদের ব্যবহার করে, কারণ পুলিশকে কেউ গুরুত্ব দেয় না (মাসাইরা কাউকে সাহসী বলে গণ্য করে না, যদি না সে কেবল লাঠির সাহায্যে সিংহ না মারতে পারে)। তাই সরকার তাদের সর্দারকে বলে তাঁর লোকেদের শহরে নিয়ে আসে কার্ফু কার্যকর করতে। তারপর ২৪ ঘন্টায় একটি পিঁপড়েও দেখা যায়নি রাস্তায়।"

ভিডিওটি নীচে দেখুন। এই ধরণের দুটি ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে


বিভ্রান্তিকর ক্যাপশনসহ ভিডিওটি ফেসবুকে ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হয়েছে।


যাচাই করার জন্য ভিডিওটি বুমের হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইনেও আসে।

নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে, কেনিয়ায় সন্ধ্যে থেকে সকাল অবধি কার্ফু বলবদ করা হয়েছে। সে দেশে ওই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৮ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ ব্যক্তির।

তবে কার্ফু কার্যকর করতে কেনিয়ার পুলিশ অমানবিক উপায় অবলম্বন করার ফলে সমালোচনার মুখে পড়ে। খবরে প্রকাশ করোনা কার্ফু কার্যকর করতে গিয়ে, নিজের বাড়ির ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে থাকা ১৩ বছরের একটি ছেলেকে কেনিয়াতে গুলি করে মেরে ফেলা হয়েছে।

আরও পড়ুন: জোন্সটাউন হত্যাকান্ডের পুরনো ছবিকে করোনাভাইরাসে মৃতদের শায়িত লাশ বলা হল

তথ্য যাচাই

কেনিয়ার নাইরোবিতে বসবাসকারী আরিসা নেলসন একটি বড় ভিডিও আপলোড করেছিলেন ইউটিউবে। আমরা সেটির হদিস পাই। ভিডিওটি ২ এপ্রিল ২০২০-তে আপলোড করা হয়। তাছাড়া, কেনিয়ার সরকার মানুষকে বাড়ির মধ্যে থাকতে বাধ্য করার জন্য মাসাই জনগোষ্ঠির লোকজনকে নিয়োগ করেছে, সে রকম কোনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।

নেলসনের চ্যানেলের নাম 'এমবুজি সেলার'। বুম আরিসা নেলসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে। উনি বলেন, ভিডিওটি সচেতনতা বৃদ্ধি আর বিনোদনের জন্য তৈরি করা হয়। এবং সে দেশের মাসাই জনগোষ্ঠির সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক নেই। "ওটা বিনোদনের জন্য তৈরি করা হয়, কিন্তু তার একটা শিক্ষামূলক দিকও আছে। ওই ভিডিওর মাধ্যমে আমি সকলকে এক মিটারের দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলেছি," বলেন নেলসন।

আরও পড়ুন: লকডাউনে পুরী সৈকতে হরিণ? ছড়ানো হল ফরাসি চিত্রনির্মাতার পুরনো ভিডিও

নেলসন যে দীর্ঘ ভিডিও আপলোড করেছিলেন, সেটি নীচে দেওয়া হল। ভিডিওটি স্থানীয় ভাষায় 'তানজানিয়া', 'কমেডি' ও 'বিনোদনের' মত শব্দের সঙ্গে ট্যাগ করা আছে। তা থেকে বোঝা যায় যে, ভিডিওটি কৌতুকধর্মী।

এমবুজি সেলারের ফেসবুক পেজেও বলা আছে যে, উনি একজন কৌতুকাভিনেতা। পেজটি চালান আরিসা নেলসন। নেলসনের আরও একটি হাসির ভিডিও দেখা যাবে এখানে

Updated On: 2020-04-10T18:55:19+05:30
Claim Review :  ভিডিওর দাবি কেনিয়া সরকার লকডাউন অমান্যকারীদের শায়েস্তা করতে মাসাই জনগোষ্ঠীর মানুষকে কাজে লাগাচ্ছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story