এটা কি সিএএ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশি হামলা? না, ঠিক তা নয়

বুম দেখে ভিডিওটি নভেম্বর মাসের। সেই সময়, ক্ষতিপূরণ না পাওয়ার কারণে চাষিরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন।

নভেম্বর ২০১৯'র একটি ভিডিওতে দেখা যায় যে, উত্তরপ্রদেশে আন্দোলনকারী কৃষকদের নির্মমভাবে মারছে পুলিশ। সেই ভিডিও এখন শেয়ার করা হচ্ছে এই দাবি করে যে, সম্প্রতি পাস-হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের পেটাচ্ছে ইউপি পুলিশ।

বুম দেখে যে, ভিডিওটি আসলে উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ে কৃষক ও পুলিশের মধ্যে এক সংঘর্ষের ছবি। কৃষকরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন কারণ তাঁরা দাবি করছিলেন যে, তাঁদের জমি অধিগ্রহণ করা হলেও তাঁদের কোনও ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়নি।

শেয়ার-করা ভিডিওটির ক্যাপশনে বলা হচ্ছে, "হিন্দুত্ব পুলিশের আসল চেহারা দেখুন। হিন্দুত্ব পুলিশ শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারীদের আক্রমণ করছে। হিন্দুত্ব পুলিশের ভয়ঙ্কর হিংসার ফলে একজন জ্ঞান হারান। তা সত্বেও হিন্দুত্ব পুলিশ অচৈতন্য ব্যক্তিকে মেরেই চলেছে। #সিএএ, এনআরসি, এনপিআর।"

টুইটগুলি আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে



তথ্য যাচাই

বুম দেখে যে, ভিডিওটি নভেম্বর ২০১৯'এ তোলা। তখন সিএএ পাস হয়নি আর তার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী আন্দোলনও ছিল না। নভেম্বর মাসে করা বেশ কয়েকটি টুইট আমাদের নজরে আসে। তাতে এক কৃষককে অচৈতন্য না হয়ে পড়া পর্যন্ত মারতে থাকার অভিযোগ আনা হয়েছিল উন্নাওয়ের পুলিশের বিরুদ্ধে।

ওই অভিযোগের উত্তরে, ১৯ নভেম্বর ২০১৯'এ উন্নাও পুলিশ একটি ভিডিও টুইট করে। সেটি একটু অন্য দিক থেকে তোলা। যে লোকটিকে পিটিয়ে অচৈতন্য করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ, তাকে কয়েক মিনিটের মধ্যেই ছুটে পালাতে দেখা যায় পুলিশের ওই ভিডিওতে।

ওপরের ভিডিওতে লোকটিকে উঠে দাঁড়িয়ে পালাতে দেখা যাচ্ছে।

উন্নাওয়ের পুলিশ সুপার এম পি ভার্মা এক ভিডিও বার্তায় বলেন, "ইউপিএসআইডিসি (উত্তরপ্রদেশ স্টেট ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন) নির্মাণ কাজ শুরু করে দিয়েছে। এরই মধ্যে, কিছু দুষ্কৃতি আর কিছু চাষি ইউপিএসআইডিসি কর্মীদের আক্রমণ করে ও তাদের দিকে পাথর ছুঁড়তে থাকে। তারই মধ্যে এক ব্যক্তি মাটিতে পড়ে যায়, এবং একজন পুলিকে তাকে মারতে দেখা যাচ্ছে। একই সঙ্গে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। দাবি করা হয় পুলিশ এক আধমরা মানুষকে মারছে। কিন্তু অনুসন্ধানে করে দেখা যায় যে, ব্যক্তিটি 'আধমরা' ছিলেন না। একটু পরেই উনি উঠে দাঁড়ান এবং চলে যান। আমরা ঘটনাটির তদন্ত করছি এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

টুইটটি নীচে দেখা যাবে।


একই ব্যক্তি যাকে পরে দৌড়াতে দেখা যায়

ভিডিওটি আগেও ভাইরাল হয়েছিল

ঘটনাটির কয়েক দিনের মধ্যই ভিডিওটি ভাইরাল হয়। দাবি করা হয় উন্নাওয়ের কৃষকদের ওপর পুলিশি অত্যাচার ধরা পড়েছে তাতে।


ওই ঘটনা সম্পর্কে প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায় যে, ট্রান্স গঙ্গা সিটি প্রকল্পের জন্য সরকার জমি অধিগ্রহণ করে কিন্তু কৃষকরা অভিযোগ করেন যে তাঁরা কোনও ক্ষতিপূরণ পাননি। আর সেই কারণেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তাঁরা। 'ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস'-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, "ইউপির উন্নাও জেলার তিনটি গ্রামে সোমবারও উত্তেজনা ছিল, যদিও প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করার ফলে কোনও বিক্ষোভ দেখা যায়নি। শনিবার সেখানে জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারী কৃষকদের ওপর লাঠি চালিয়েছিল পুলিশ। কৃষকরা অভিযোগ করেন যে, প্রশাসন তাঁদের উত্যক্ত করছে এবং গ্রেপ্তারের ভয়ে অল্পবয়সীরা ঘরছাড়া হয়েছে। কিন্তু পুলিশ ওই অভিযোগ অস্বীকার করে। তারা বলছে আইন শৃঙ্খলা যাতে আবার বিঘ্নিত না হয় তা নিশ্চিত করার জন্যই সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।"

Updated On: 2020-01-16T13:37:30+05:30
Claim Review :  ভিডিওর দাবি নাগরিকত্ব আইন বিরোধকারীদের পুলিশ মারছে
Claimed By :  Twitter Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story