সুশান্ত সিংহ রাজপুত: মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত চাওয়া ভুয়ো টুইট ভাইরাল

বিভিন্ন গণমাধ্যম আইএএনএস-এর রিপোর্টকে ভিত্তি করে খবর প্রকাশ করেছে, সুশান্তের বাবা টুইট করে মৃত্যুর তদন্তে সিবিআইয়ের দাবি তুলেছেন।

সংবাদসংস্থা আইএএনএস এবং হিন্দি দৈনিক জাগরণ টুইটারে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবার বলে দাবি করা একটি নকল অ্যাকাউন্টের টুইটকে ভিত্তি করে সংবাদ পরিবেশন করেছে । ওই অ্যাকাউন্ট থেকে করা টুইটে এই অভিনেতার মৃত্যুতে সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন বা অর্থাৎ সিবিআই তদন্তের দাবি তোলা হয়েছে। এই প্রতিবেদনটি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে পুনঃপ্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে রাজপুতের বাবা কে কে সিংহ-এর নামে তৈরি করা একটি ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে করা একটি টুইট উদ্ধৃত করা হয়। ওই উদ্ধৃতিতে বলা হয় যে তিনি দাবি করেছেন, সিবিআই এই ঘটনার তদন্তের ভার নিক।

গত ১৪ জুন অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতকে (৩৪) তাঁর বান্দ্রার ভাড়াবাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। রাজপুতের মৃত্যুতে গোটা চলচ্চিত্রমহল স্তম্ভিত হয়ে যায়। নেটিজেনরা তাঁর মৃত্যুর জন্য বলিউডের স্বজনপোষণ এবং পক্ষপাতিত্বই দায়ী বলে মনে করেন এবং তার বিরুদ্ধে সরব হন। এই ঘটনায় মুম্বই পুলিশ এখন পর্যন্ত ২৮ জনের বক্তব্য রেকর্ড করেছে।

আরও পড়ুন: না, সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী মোদী সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেননি

আইএএনএস'র প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল, "এ বার সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবা তাঁর মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত দাবি করলেন।" ওই ভুয়ো অ্যাকাউন্টের টুইটের অনুবাদের ভিত্তিতে এই প্রতিবেদন লেখা হয়। টাইমস অব ইন্ডিয়ার বিনোদন বিভাগ ই-টাইমসে ওই প্রতিবেদনের একটি সারাংশ পুনঃপ্রকাশিত হয়। এতে লেখা হয়, "বলিউডের অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুত ১৪ জুন তাঁর মুম্বইয়ের বাড়িতে আত্মঘাতী হয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। এখন এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি বাড়ছে। সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবা কেকে সিংহয়ের টুইটার অ্যাকাউন্টের কথা উঠে এসেছে। তিনি তাঁর ছেলের জন্য ন্যায় বিচারের দাবি করেছেন। তিনি এই ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন।"

প্রতিবেদনটির আর্কাইভ দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন। এই হ্যান্ডেলটির বায়োতে লেখা রয়েছে, "আনঅফিসিয়াল অ্যান্ড ফ্যান টুইটার অ্যাকাউন্ট কে কে সিং, ফাদার অব সুশান্ত সিংহ রাজপুত"। ৪ জুলাই এই অ্যাকাউন্টের একটি টুইটে রাজপুতের মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের ব্যাপারে জানানো হয়েছে।

আরও কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম, যেমন — আউটলুক, টাইমস নাউ, দ্য ট্রিবিউন, এবং মাত্রুভূমি'তে এই সংবাদ প্রকাশিত হয়।

টাইমস নাউয়ে এই ঘটনা পুনঃপ্রকাশিত হয় এবং সঙ্গে হেডলাইন দেওয়া হয়, "সুশান্ত সিংহয়ের বাবা তাঁর ছেলের মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত দাবি করেছেন।" পরে অবশ্য তারা এই প্রতিবেদনটি মুছে দেয়। প্রতিবেদনটির আর্কাইভ পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

জাগরণে যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় তার শিরোনাম ছিল, "সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু: তাঁর বাবা ঘটনার সিবিআই তদন্তের জন্য সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছেন। তিনি বলেছেন, তাঁর আত্মা তদন্তের জন্য আর্তনাদ করছে।" এই প্রতিবেদনের সারাংশের অনুবাদ, "শনিবার রাজপুতের বাবা অনেকগুলি টুইট করে নিজের মতামত জানান। তিনি বলেন, তাঁর ছেলের আত্মা তার মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের জন্য কাঁদছে।"

অন্য একটি সংবাদ প্রতিষ্ঠান নিউজ ২৪ অনলাইন তাদের একটি প্রতিবেদনে এই ভুয়ো অ্যাকাউন্টের টুইটের উল্লেখ করে। ওই প্রতিবেদনের শিরোনাম দেওয়া হয়, "বড় খবর: সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবা তাঁর ছেলের মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত দাবি করলেন।" আর্কাইভ দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

এই ভুয়ো টুইটার হ্যান্ডেলের কথার ওপর ভিত্তি করে ফেসবুকেও এই কথাটি ভাইরাল হয়েছে যে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের বাবা তাঁর ছেলের মৃত্যুর ঘটনায় সিবিআই তদন্ত দাবি করেছেন।
বুম নিশ্চিত ভাবে জানতে পেরেছে যে রাজপুতের বাবার এই অ্যাকাউন্টটি আনফিসিয়াল। ২০২০ সালের ২৪ জুন তৈরি করা এই অ্যাকাউন্টটির আগের আর্কাইভ দেখলে জানা যায় এর আগে এই ইউজার অ্যাকাউন্টটিকে মিথ্যে ভাবে "অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট কেকে সিং, ফাদার অব সুশান্ত সিং রাজপুত" বলে উল্লেখ করেছে। টুইটগুলিকে বিশ্বাসযোগ্য করার জন্যই তা করা হয়েছিল। এর মধ্যেই অ্যাকাউন্টটির ফলোয়ার সংখ্যা ১০,০০০-এর বেশি।
আগের বায়োসমেত এই অ্যাকাউন্টের আর্কাইভ দেখতে এখানে ক্লিক করুন। নিচে টুইটার অ্যাকাউন্টটির পুরানো এবং নতুন বায়োর তুলনা দেখতে পাবেন। এ থেকে বোঝা যায় অ্যাকাউন্টটি কেকে সিং'র নয়।
ওই হ্যান্ডেলের টুইটগুলি বার বার রিটুইট হওয়ার পর এই অ্যাকাউন্টটি বায়ো বদলে দেয়। খুব মন দিয়ে লক্ষ করলে দেখা যাবে প্রথমে এই হ্যান্ডেলটি বলিউডের স্বজনপোষণ নিয়ে টুইট করছিল। পরে দেখা যায় অভিনেতার মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের দাবিতে এখানে ভোট করা হয়েছে।
২ জুলাই এই হ্যান্ডেল থেকে করা একটি টুইটে মৃত অভিনেতাকে 'আমার ছেলে' বলে উল্লেখ করা হয়েছে। নিজেকে বাবা হিসাবে উল্লেখ করে একটি আবেগপ্রবণ বার্তায় বলা হয়েছে যে তিনি "দৃঢ় ভাবে জানেন যে রাজপুত নিজেকে হত্যা করেনি।" টুইটটির আর্কাইভ দেখতে
এখানে
ক্লিক করুন।
৪ জুলাই এই হ্যান্ডেল থেকে লেখক নিজেকে 'আমি' হিসাবে উল্লেখ করে রাজপুতের মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত দাবি এবং সেজন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার বিষয়ে টুইট করা হয়েছে।

Updated On: 2020-07-07T17:42:25+05:30
Claim Review :   সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা কে কে সিং ছেলের মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন
Claimed By :  IANS & Twitter Users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story