ভারত যখন অভিনন্দনের জন্য রুদ্ধশ্বাসে অপেক্ষমাণ, তখন তাঁকে নিয়ে ভুয়ো খবরের বান

অভিনন্দন সাজিয়ে লেখা ভুয়ো বিবরণী এবং তাঁর পরিবারকে নিয়ে ভুয়ো গালগল্প, সব কিছুরই পর্দাফাঁস করেছে বুম

ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে নিয়ে ভুয়ো খবরের বন্যা বইতে শুরু করে, যখন ২০১৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে তিনি ধরা পড়েন । ভারতীয় পাইলটকে নিয়ে ছড়ানো সবচেয়ে চমকপ্রদ ভুয়ো পোস্টগুলি বুম এক জায়গায় এনেছে ।

১) না, ভাইরাল ভিডিওর মহিলাটি উইং কমান্ডার অভিনন্দনের স্ত্রী নন

একটা ভিডিও ভাইরাল হয়, যাতে অভিনন্দনের স্ত্রী বিজেপির নেতাদের অনুরোধ করছেন, সৈনিকদের আত্মত্যাগ নিয়ে রাজনীতি না করতে । বুম আবিষ্কার করে যে ভিডিওর মহিলাটি জনৈকা শিরীষা রাও, যিনি গুরুগ্রামে আম আদমি পার্টির স্বেচ্ছাসেবক । তিনি অবশ্য নিজেকে কোথাও অভিনন্দনের স্ত্রী বলে দাবি করেননি, কিন্তু ভিডিওটি ভাইরাল হয় সেই বিভ্রান্তিকর ভুয়ো দাবি সমেত । এ সম্পর্কে আরও পড়ুন এখানে

২) একটি ভাইরাল হওয়া কবিতা অভিনন্দনের বোনের নামে চালিয়ে দেওয়া হয়

অভিনন্দনের জেট পাক-অধিকৃত কাশ্মীরের মাটিতে ভেঙে পড়ার পর তাঁকে যে হেনস্থার সম্মুখীন হতে হয়, তা কল্পনা করে লেখা একটি কবিতা “আমার ভাইয়ের রক্তাক্ত নাক”তাঁর বোনের লেখা বলে ভাইরাল হয়ে যায় ।



বুম আবিষ্কার করে, যে দিন অভিনন্দন ধরা পড়েন, সেই দিনই অর্থাত্ ২০১৯-এর ২৭ ফেব্রুয়ারি জনৈক বরুণ রাম আয়ার কবিতাটি লেখেন । এ বিষয়ে আরও পড়ুন এখানে

৩) উইং কমান্ডার অভিনন্দন সেজে লেখা ভুয়ো পোস্টগুলির মুখোমুখি

ফেসবুক, টুইটার এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সোশাল মিডিয়ায় অভিনন্দন সাজিয়ে তৈরি বেশ কিছু ভুয়ো বিবরণী ছড়িয়ে পড়ে ।

বুম এই বিবরণীগুলো উন্মোচন করে দেখায়, উইং কমান্ডার অভিনন্দনের নামের ইংরাজি বানানে সামান্য হেরফের ঘটিয়ে এবং WC ( উইং কমান্ডার) ও IAF (ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স) এই শব্দসংক্ষেপ ব্যবহার করে বিবরণীগুলি বানানো হয় । এ সম্পর্কে আরও জানতে এখানে পড়ুন ।

৪) না, ইনি উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের মা নন

টেলিভিসনের পর্দায় ইমরান খানকে দেখে চোখে-জল-আসা এক বৃদ্ধার দুটি ছবি এই বলে ভাইরাল করা হয় যে, ইনি নাকি অভিনন্দনের মা । ২৮ ফেব্রুয়ারি “শান্তির পথ সুগম করতে” পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অভিনন্দনকে পাক সেনাবাহিনীর হেফাজত থেকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন ।

বুম ছবিটি বিশ্লেষণ করে দেখিয়ে দেয়, এটি আদৌ অভিনন্দনের মায়ের ছবি নয় l এ সম্পর্কে আরও বিশদে জানতে এখানে পড়ুন।

৫) অভিনন্দনের বাবার কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার ভুয়ো খবর ভাইরাল হয়

ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দনের বাবা অবসরপ্রাপ্ত এয়ার মার্শাল সিমহাকুট্টি বর্তমান ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসে যোগদান করেছেন, এই মর্মে হোয়াট্স্যাপের ফরোয়ার্ড করা একটি পোস্ট সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় ।

বুম দেখে যে, এ সংক্রান্ত খবরটি ভুয়ো, কেননা কংগ্রেস দলের সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলে খবরটির কোনও উল্লেখই নেই । এ বিষয়ে আরও জানতে হলে এখানে পড়ুন।

৬) প্রধানমন্ত্রী মোদীর পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোলা মহিলা অভিনন্দনের স্ত্রী নন

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে উইং কমান্ডার অভিনন্দনের স্ত্রীর দেখা করার ভুয়ো ছবি ভাইরাল করা হয় ।

বুম খুঁজে বার করে, ভাইরাল হওয়া ছবির মহিলাটি নির্বাচন পরিচালনায় দক্ষ প্রশান্ত কিশোরের স্ত্রী জাহ্নবী দাস । এ বিষয়ে আরও জানতে এখানে ক্লিক করুন।

৭) না, এটা পাকিস্তানি সৈন্যদের সঙ্গে ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দনের নাচার ছবি নয়

সৈন্যদের নাচার একটি ভিডিও এই ভুয়ো বিবরণী সহ সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় যে, বিমানবাহিনীর উর্দি পরা ব্যক্তিটি উইং কমান্ডার অভিনন্দন ।

বুম ভিডিওটি নিবিড়ভাবে বিশ্লেষণ করে দেখেছে, নৃত্যরত সৈন্যদের একজনও অভিনন্দন নন । এ বিষয়ে আরও জানতে এখানে পড়ুন।

৮) না, এটা ভারতে ফেরার সময় উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের ভিডিও নয়

পাক সেনাবাহিনীর হাতে ধরা পড়ার কয়েক ঘন্টা পর ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান তাদের সঙ্গে কথাবার্তা বলছেন, এমন একটি ভিডিও একটা ভুয়ো বিবরণী সহ ভাইরাল হয়েছে । তাতে দাবি করা হয়েছে যে, এটা নাকি তাঁর ভারতে ফেরার সময় তোলা ছবি ।

ফেসবুকে যেমনটা দাবি করা হয়েছে, অর্থাৎ ১ মার্চ উইং কমান্ডারকে ভারতের মাটিতে ফিরিয়ে দেওয়ার সময় এই ভিডিওটা তোলা হয়নি । বুম ভিডিওটি বিশ্লেষণ করে দেখেছে, ২৭ ফেব্রুয়ারি মিগ-২১ বাইসন জেটটি গুলিবিদ্ধ হয়ে ভেঙে পড়ার সময় তা থেকে প্যারাশুটে বেরিয়ে পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে নামার পর পাকিস্তানি ফৌজের হাতে ধরা পড়ার ঠিক পরই ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়া হয় । এখানে আরও বিস্তারিত পড়ুন।

ইতিমধ্যে ভারতীয় বায়ু সেনার অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট ঘোষণা করেছে যে পাইলট অভিনন্দনের কোন সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট নেই।



Next Story