মিথ্যে: এই ভিডিও করোনাভাইরাসের প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে না

বুম দেখে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সঙ্গে ভিডিওটির কোনও সম্পর্ক নেই।

চিনে মারণ করোনাভাইরাসের আক্রমণ স্বাস্থ্য সংক্রান্ত একরাশ ভুল তথ্য প্রচারে ইন্ধন যোগাচ্ছে। সাম্প্রতিকতম সংযোজন হল একটি ভিডিও যেটিতে এক ব্যক্তির ঠোঁট থেকে লার্ভা জাতীয় প্রাণী বের করতে দেখা যাচ্ছে। অথচ, করোনাভাইরাসের সঙ্গে সেটির কোনও সম্পর্ক নেই।

১ মিনিট ৩৭ সেকেন্ডের ওই ক্লিপটিতে, এক ব্যক্তিকে অন্য একজনের ঠোঁটের চামড়ার তলা থেকে চিমটের সাহায্যে লার্ভা জাতীয় পরজীবী বের করতে দেখা যাচ্ছে।

শেয়ার-করা ভিডিওটির ক্যাপশনে বলা হয়েছে, "করোনাভাইরাস একটি খুব নতুন ও মারাত্মক ভাইরাস। চিন তার জন্য ভুগছে। ভারতে তা যে কোনও সময় আসতে পারে। আজ থেকে আগামী ৯০ দিন ঠাণ্ডা পানীয়, আইসক্রিম, কুলফি ইত্যাদি, যে কোনও ধরনের প্রিজার্ভড বা সংরক্ষিত খাবার, মিল্কশেক, বরফ, আইসকোলা ও ৪৮ ঘন্টার আগে তৈরি মিষ্টি এড়িয়ে চলুন।

আরও পড়ুন: গুজব সতর্কতা: করোনাভাইরাস নিয়ে ভাইরাল হল ভুয়ো ''জরুরি বিজ্ঞপ্তি"

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে " target="_blank" rel="nofollow">এখানে

আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইন নম্বরে (৭৭০০৯০৬১১১) ভিডিওটি ও তার সঙ্গের বার্তাটির সত্যতা জানতে চেয়ে বার্তা পাঠানো হয়েছে।


ওই একই ক্যাপশন দিয়ে আমরা ফেসবুকে সার্চ করি। দেখা যায়, ভিডিওটি ওই বিভ্রান্তিকর ক্যাপশনসহ সেখানেও ভাইরাল হয়েছে।


বুম দেখে ভিডিওটি পুরনো এবং করোনাভাইরাসের সঙ্গে তার কোনও সম্পর্ক নেই। ভিডিওটি তোলা হয়েছিল অক্টোবর ২০১৯'এ আর করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে ডিসেম্বর ২০১৯'এ।

আমরা ভিডিওটিকে ফ্রেমে ফ্রেমে ভেঙ্গে রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন ইয়ানডেক্সের সাহায্যে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। দেখা যায়, ভিডিওটি ২৪ অক্টোবর ২০১৯ ইউটিউবের মাধ্যমে ইন্টারনেটে আসে।

ওই ভিডিওটি ১ মি ৪৫ সেকেন্ড দৈর্ঘের, ভাইরাল ভিডিওটির থেকে সামান্য বেশি। তাতে ভাইরাল ভিডিওর দৃশ্যটিই দেখা যায়। কিন্তু সেটির স্প্যানিশ ভাষায় লেখা ক্যাপশন ইংরেজি করলে দাঁড়ায়, "ঠোঁটে কেঁচো"। (আসল ক্যাপশনটিতে লেখা ছিল: Gusano en el labio)

বুম অবশ্য নিজের উপায়ে ভিডিওটির উৎস খুঁজে পায়নি।

আরও পড়ুন: চিনে করোনাভাইরাস: যা যা জানা জরুরি

করোনাভাইরাসের আকৃতি আণুবীক্ষণিক। খালি চোখে তা দেখা যায় না। ভিডিওতে যেমন দেখানো হয়েছে, তেমন কোনও লার্ভা জাতীয় প্রাণী নয় সেটি।

তাছাড়া ভাইরাল ভিডিওর ক্যাপশনে যে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, কোনও দেশের গবেষণায় সাবধানতার তালিকায় সে কথা বলা হয়নি। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নিজস্ব টুইটার হ্যান্ডেল থেকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকা শেয়ার করা হয়েছে। তাতেও, ভাইরাল বার্তায় যে পদক্ষেপগুলির কথা বলা হয়েছে, তার একটিও নেই।

Updated On: 2020-01-31T15:17:54+05:30
Claim Review :  ভিডিও দেখায় করোনাভাইরাসের প্রতিক্রিয়া
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story